আজ বাংলা ট্রিবিউনের জন্মদিন

প্রকাশিত : ২২:৫৯, মে ১৫, ২০১৮

সারাংশ

১৩ মে পাঁচ বছরে পা পড়লো বাংলা ট্রিবিউনের। সংবাদের যথার্থতা ও বস্তুনিষ্ঠতাকে সঙ্গে নিয়ে দৃঢ়তায় এগিয়ে চলার অঙ্গীকার বাংলা ট্রিবিউনের–কম কথায় সব কথা।

পাঠকের প্রতি দায়বদ্ধতা ও দায়িত্বশীল সাংবাদিকতার মেলবন্ধনে ‘আসল’ খবর প্রকাশের মাধ্যমে আস্থার জায়গা তৈরি করেছে এই অনলাইন পত্রিকা। ২০১৪ সালের এইদিনে যাত্রা শুরু করেছিল প্রতিষ্ঠানটি।

১১:৩৯, মে ১৩, ২০১৮

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলা ট্রিবিউনের জেলা প্রতিনিধি সম্মেলন চলছে

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট

বাংলা ট্রিবিউনের প্রতিনিধি সম্মেলনবাংলা ট্রিবিউনের চতুর্থ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে জেলা প্রতিনিধিদের নিয়ে সম্মেলন চলছে। বিভিন্ন জেলার প্রতিনিধিরা এতে অংশ নিয়েছেন। জেলা পর্যায়ে কাজ করার অভিজ্ঞতা, সমস্যা নিয়ে আলোচনার লক্ষ্যে এই সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে। 

বাংলা ট্রিবিউনের প্রতিনিধি সম্মেলনএই সম্মেলনে উপস্থিত রয়েছেন বাংলা ট্রিবিউনের সম্পাদক জুলফিকার রাসেল, হেড অব নিউজ হারুন উর রশীদ, চিফ নিউজ এডিটর দুলাল আহমেদ চৌধুরী, চিফ রিপোর্টার উদিসা ইসলাম, বিশেষ প্রতিনিধি শেখ শাহরিয়ার জামান, জয়েন্ট নিউজ এডিটর তানজিমুল নয়ন, জেলা প্রতিনিধি সমন্বয়ক ও সিনিয়র সাব-এডিটর ফৌজিয়া সুলতানা, হেড অব মার্কেটিং বন্যা মির্জা এবং বাংলা ট্রিবিউনের সব জেলার প্রতিনিধিরা।

প্রসঙ্গত, আজ রবিবার (১৩ মে) পাঁচ বছরে পা পড়লো বাংলা ট্রিবিউনের। রাজধানীর পান্থপথে বাংলা ট্রিবিউন কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান হচ্ছে।

 

 

০০:০২, মে ১৩, ২০১৮

বাংলা ট্রিবিউনের জন্মদিন

উদিসা ইসলাম

চার বছর পূর্ণ করল বাংলা ট্রিবিউন১৩ মে পাঁচ বছরে পা পড়লো বাংলা ট্রিবিউনের। সংবাদের যথার্থতা ও বস্তুনিষ্ঠতাকে সঙ্গে নিয়ে দৃঢ়তায় এগিয়ে চলার অঙ্গীকার বাংলা ট্রিবিউনের–কম কথায় সব কথা।

পাঠকের প্রতি দায়বদ্ধতা ও দায়িত্বশীল সাংবাদিকতার মেলবন্ধনে ‘আসল’ খবর প্রকাশের মাধ্যমে আস্থার জায়গা তৈরি করেছে এই অনলাইন পত্রিকা। ২০১৪ সালের এইদিনে যাত্রা শুরু করেছিল প্রতিষ্ঠানটি।

​বাংলা ট্রিবিউন প্রচলিত অনলাইন পোর্টালের মতো নয়, এটি মাল্টিমিডিয়া। সংবাদ ছাড়াও প্রয়োজনীয় অডিও-ভিডিও উপস্থাপনের পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানটি নিয়মিত সংবাদ বিশ্লেষণধর্মী অনুষ্ঠান ফেসবুক লাইভ করে থাকে। এছাড়া, বাংলা ট্রিবিউন আলোচিত বিষয় নিয়ে প্রতি সপ্তাহে সংশ্লিষ্ট সবপক্ষের উপস্থিতিতে ‘বৈঠকি’ নামে মুক্ত আলোচনার আয়োজন করে; যেটি টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়। 

চার বছর পূর্ণ করে পাঁচ বছরে বাংলা ট্রিবিউনপ্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ ও স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। বাংলা ট্রিবিউনের পাঠক, শুভানুধ্যায়ীসহ সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়ে রাষ্ট্রপতি তার বাণীতে বলেন,  ‘মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে এই অনলাইন পত্রিকাটি বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের মাধ্যমে দেশের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড জনসম্মুখে তুলে ধরার পাশাপাশি জাতি গঠনে অবদান রাখবে–এ প্রত্যাশা করি।’

স্পিকার তার বাণীতে বলেন, ‘চার বছরের প্রচেষ্টায় এই সংবাদমাধ্যমটি আমাদেরও ভীষণ প্রিয় হয়ে উঠেছে। তথাকথিত অনলাইন নিউজ পোর্টালগুলোর মতো স্রোতে গা না ভাসিয়ে বাংলা ট্রিবিউন গুজব ও ভিত্তিহীন সংবাদ প্রচার থেকে বিরত থেকে আমাদের মুগ্ধ করেছে সব সময়।’ অতি অল্প সময়ে পাঠকের গ্রহণযোগ্যতা ও ভালোবাসা অর্জন করে নেওয়ায় বাংলা ট্রিবিউনকে আন্তরিক শুভেচ্ছা জানান তিনি।

এছাড়াও দেশের বুদ্ধিজীবী, রাজনীতিক, গণমাধ্যমকর্মীসহ বিদগ্ধজনেরা প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে বাংলা ট্রিবিউনকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

বাংলা ট্রিবিউনের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য সম্পর্কে প্রতিষ্ঠানটির সম্পাদক জুলফিকার রাসেল বলেন, ‘চার বছর পেরিয়ে পাঁচ বছরে পা রাখলো বাংলা ট্রিবিউন। আপনাদের অনেক শুভেচ্ছা জানাই। বাংলা ট্রিবিউন এই চার বছরে কী কী দেওয়ার চেষ্টা করেছে, তা পাঠকই ভালো বলতে পারবেন। তবে আমরা যেটা চেষ্টা করেছি, কোনও ব্যক্তি বা সংগঠনের পক্ষ অবলম্বন না করে বস্তুনিষ্ঠ খবর উপস্থাপন করার। আমরা চেষ্টা করেছি নির্ভুল সংবাদ উপস্থাপনের।’ তিনি আরও বলেন, ‘বাংলা ট্রিবিউন চেষ্টা করেছে এ সময়ে কোনও অযৌক্তিক, অনৈতিক অনুরোধকে স্পর্শ করতে না দেওয়ার। চেষ্টা করেছি সংবাদে ফেক জিনিস এবং কপি পেস্টের যে বিষয়টা আছে, সেগুলো বর্জন করার। আমাদের আরও বেশি চেষ্টা থাকবে তথ্য যাতে নির্ভুল হয়। কোনোরকম ফেক নিউজের দ্বারা আমরা যেন প্রভাবিত না হই।’

বাংলা ট্রিবিউনের প্রকাশক কাজী আনিস আহমেদ জন্মদিনের এই ক্ষণে শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, ‘চার বছর পথ খুবই ছোট। আবার দায়িত্বের দিকে এগিয়ে চলারও। বাংলা ট্রিবিউন অবিচল থাকুক তার কম কথায় সব কথা বলায়। একইসঙ্গে প্রকৃত সাংবাদিকতার নৈতিকতা দৃঢ়তায়।’ তিনি আরও বলেন, ‘ভালো সংবাদ হোক কিংবা মন্দ সংবাদ, নিশ্চিত না হয়ে তা উপস্থাপন নয়–এই নীতি ধরে রাখার পথে লড়াই করবেন যে কর্মীরা, গণমাধ্যমের ভবিষ্যৎ তাদের হাতেই থাকবে।’

চার বছর পেরিয়ে পাঁচ বছরে পা দেওয়াটা একটি নিউজ পোর্টালের সক্ষমতা প্রমাণ করে উল্লেখ করে বাংলা ট্রিবিউনের হেড অফ নিউজ হারুন উর রশীদ বলেন, ‘বাংলা ট্রিবিউন ইতোমধ্যে পাঠকের আস্থা অর্জন করতে পেরেছে। কারণ, তারা সংবাদের যথার্থতা ও বস্তুনিষ্ঠতা বজায় রাখে। তারা এই ধারা অব্যাহত রাখবে।’ বাংলা ট্রিবিউন পাঁচ বছরে পা দেওয়ার এই সন্ধিক্ষণে বাংলা ট্রিবিউন ইংরেজি ভার্সন উদ্বোধন করতে যাচ্ছে জানিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘শুধু বাংলাভাষী পাঠক নন, আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও পৌঁছানো দরকার। আমরা এমন একটা সময় পার করছি, যখন আন্তর্জাতিক অঙ্গনের দৃষ্টি রয়েছে বাংলদেশের দিকে। সব মিলিয়ে আন্তর্জাতিক পাঠকদের বাংলাদেশের দিকে আগ্রহ আছে। সুতরাং, আমরা তাদের কাছেও পৌঁছে যেতে চাই। এটিও আমরা বাংলা ট্রিবিউনের মতো বস্তুনিষ্ঠ ও সক্ষমতার সঙ্গেই করব।’

দিবসটি উপলক্ষে প্রতিনিধি সম্মেলনের পাশাপাশি বেশ কিছু আয়োজন করেছে বাংলা ট্রিবিউন। আজ রবিবার বেলা ১১টায় নিজেদের কার্যালয়ে প্রতিনিধিদের কর্মশালা অনুষ্ঠিত হবে। সারাদেশের সহকর্মীদের সঙ্গে নিয়েই বাংলা ট্রিবিউন বিশেষ এই দিনটি উদযাপন করবে। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলা ট্রিবিউন ৩২ পৃষ্ঠার বিশেষ প্রিন্ট সংখ্যা প্রকাশ করেছে।

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী বাংলা ট্রিবিউনকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, ‘এই চার বছরে বাংলা ট্রিবিউনকে সংবাদ পরিবেশনের ক্ষেত্রে যত্নবান হিসেবে আমরা দেখেছি এবং এ সময়ে তারা চেষ্টা করেছে সব সংবাদ কাভার করার জন্য। তারা পরিশীলিত, পরিমার্জিত এবং তথ্যসমৃদ্ধ সংবাদ পরিবেশনের চেষ্টা করেছে, যেটা আমাদের সাংবাদিক সমাজকে মু্গ্ধ করে এবং সাংবাদিক সমাজের মর্যাদাকে আরও উন্নততর করে।’  

 

টপ