যন্ত্রাংশ কেনা হলেও চালু হচ্ছে না কুবির কম্পিউটার ল্যাব

Send
কুবি প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৭:৩৭, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:৩৯, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৯

দুই বছরেরও অধিক সময় ধরে অব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে আছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের কম্পিউটার ল্যাবটি। সম্প্রতি স্পেশিফিকেশন ও প্রাক্কলন নির্ধারণ কমিটির মাধ্যমে ল্যাবটির জন্য ১৭টি মনিটর কেনা হলেও ল্যাব চালুর ব্যাপারে নেই কোনও দৃশ্যমান অগ্রগতি।

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়
অনুষদের ডিন অফিস সূত্র জানায়, ২০০৯ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের জন্য ২৬টি কম্পিউটার নিয়ে এ ল্যাবটি তৈরি করা হয়। প্রথম দিকে ল্যাব তদারক কমিটির আওতায় এটি পরিচালিত হলেও পরে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের বিভিন্ন বিভাগের জন্য এটি বরাদ্দ দেওয়া হয়। কিছুদিন আগে ল্যাবটি পরিষ্কার করার উদ্দেশ্যে খোলা হলে দেখা যায়, এতদিন ধরে অব্যবহৃত অবস্থায় থাকায় এর অধিকাংশ কম্পিউটারসহ অন্যান্য যন্ত্রপাতি নষ্ট হয়ে গেছে।
এদিকে গত ১৭ জুলাই বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দফতর থেকে প্রেরিত একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়; কম্পিউটার সামগ্রী, অফিস সরঞ্জামাদি ও আসবাবপত্রের স্পেশিফিকেশন ও প্রাক্কলন নির্ধারণ কমিটির মাধ্যমে এই ল্যাবের জন্য ১৭টি মনিটর কেনা হয়েছে। তবে নতুন এ কম্পিউটারগুলো যুক্ত হবার পরও চালু হয়নি ল্যাবটি। এই অনুষদের শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, ল্যাবটি চালু না থাকায় অনুষদের বিভিন্ন বর্ষের শিক্ষার্থীরা কম্পিউটারভিত্তিক কোর্সের ব্যবহারিক জ্ঞান থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।
গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী শুভ হাসান বলেন, ‘আমাদের বর্তমান সেমিস্টারে বেসিকস অব কম্পিউটার নামে একটি কোর্স আছে। আমাদের ল্যাব সুবিধা না থাকায় এ কোর্সটির জন্য কেবল তাত্ত্বিক জ্ঞান অর্জনেই আমাদের সীমাবদ্ধ থাকতে হচ্ছে।’
এ বিষয়ে জানতে চাইলে সমাজ বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ড. মাসুদা কামাল বলেন, ‘ল্যাবটি সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের অধীনে আসে দুই বছর আগে, তখন থেকেই অচল দেখেছি। এর আগে আইটি সেকশনের অধীনে ছিল। তবে এটি চালু করার জন্য ৩-৪ মাস আগে কিছু যন্ত্রাংশ চেয়ে পাঠিয়েছি প্রশাসনের কাছে। অল্প কিছু পেয়েছি, বাকিগুলো পেলেই ল্যাবটি সংস্কার করে চালু করা যাবে।’
আইসিটি সেলে যোগাযোগ করা হলে আইসিটি সেলের কর্মকর্তা নাসির উদ্দীন জানান, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ল্যাবটি আইসিটি সেল বা ল্যাব তদারক কমিটির অধীনে নয়। ল্যাবটি বর্তমানে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের তত্ত্বাবধানে আছে। এটা দেখভাল করার দায়িত্ব তাদেরই।
এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. আবু তাহের বলেন, ‘সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ থেকে ল্যাবের জন্য কিছু যন্ত্রাংশ চেয়েছে। আরও কিছু অনুষদ ও বিভাগ থেকেও চাহিদা এসেছে। সবগুলো নিয়ে এবং প্রকৌশল দপ্তরের নির্দেশনা অনুযায়ী টেন্ডার প্রক্রিয়ায় যাওয়া হবে।’
কবে নাগাদ ল্যাবটি চালু হতে পারে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আগামী সপ্তাহেই আমরা ডিনদের নিয়ে মিটিংয়ে বসবো। আশা করি এক মাসের মধ্যেই কাজ সম্পন্ন হবে।’

/এনএ/

লাইভ

টপ