behind the news
Vision  ad on bangla Tribune

হাল্ট প্রাইজ প্রতিযোগিতার ফাইনালে ব্র্যাকের ‘টিম সিনারজি’

ব্রাক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি১৫:৫৭, মার্চ ১৩, ২০১৬

শিক্ষার্থীদের নোবেল পুরস্কার হিসেবে পরিচিত হাল্ট প্রাইজ প্রতিযোগিতার ফাইনালে উঠেছে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের দল ‘টিম সিনারজি’।
এশিয়ার আঞ্চলিক পর্বে সেরা হয়ে দলটি এখন বিশ্ব মঞ্চের অন্য আঞ্চলিক দলগুলোর সাথে প্রতিযোগিতা করবে। এর আগে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের দলটি অস্ট্রেলিয়ান ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, লন্ডন স্কুল অফ ইকোনোমিকস, ইউনিভার্সিটি অফ টরেন্টোর দলকে হারিয়েছে।
প্রসঙ্গত, বিশ্বের বিভিন্ন শীর্ষ বিশ্ববিদ্যালয়গুলো থেকে আসা তরুণ সমাজ সেবক ও উদ্যোক্তাদের জন্য ‘হাল্ট পুরস্কার’ প্রতিযোগিতা চালু হয়।
হাল্ট আন্তর্জাতিক বিজনেস স্কুলের তত্ত্বাবধানে এবং সুইডিশ উদ্যোক্তা বার্টিল হাল্ট এবং তাঁর পরিবারের আর্থিক সহায়তায় এ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।
যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক রাষ্ট্রপতি বিল ক্লিনটন বিশ্বের অসহায় মানুষের উপর প্রভাব ফেলে এমন একটি সামাজিক সমস্যা চিহ্নিত করেন। এরপর এ সমস্যা সমাধানে তিনি প্রতিযোগীদের উদ্দেশ্যে একটি চ্যালেঞ্জ ছুঁড়েদেন। তিন থেকে চার সদস্যের এক একটি প্রতিযোগী দল সমস্যাটি সমাধানের জন্য ভিন্ন ভিন্ন সামাজিক উদ্যোগের উদ্ভাবনী ধারণা তৈরি করে।
প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের ১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার,আন্তর্জাতিক ব্যবসায়ী সংগঠনে প্রশিক্ষণ এবং পরামর্শ গ্রহণের সুযোগ দেওয়া হয়।
এছাড়া চূড়ান্ত প্রতিযোগিদের ‘ক্লিনটন গ্লোবাল ইনিশিয়েটিভ’-এর সদস্য পদ এবং পরীক্ষামূলক অর্থসংস্থানের সুবিধা দেওয়া হয়।
২০০৯ সাল থেকে এ পর্যন্ত আয়োজিত প্রতিযোগিতার মধ্য শিক্ষার সুব্যবস্থা, সুপেয় পানির অপ্রতুলতা, আবাসন সমস্যা, নির্ভরযোগ্য শক্তি ও সৌর ব্যবস্থাপনা, খাদ্য ও স্বাস্থ্য সমস্যার বিষয়ে বিভিন্ন পরামর্শ উঠে এসেছে।
বিশ্বের বিভিন্ন কলেজ ক্যাম্পাসে হাল্ট-প্রাইজ প্রতিযোগিতার  ‘ক্যাম্পাস রাউন্ড’ আয়োজন করা হয়। আঞ্চলিক প্রতিযোগিতায় বিজয়ী দল ‘জেনারেল এপ্লিকেশন’ রাউন্ডে অংশগ্রহণ ছাড়া সরাসরি পাঁচটি আঞ্চলিক সমাপনী রাউন্ডের (বোস্টন, স্যান-ফ্রান্সিসকো, লন্ডন, সাংহাই, দুবাই) একটিতে অংশ নেওয়ার সুযোগ পায়।
/এসএনএইচ

লাইভ

টপ