‘চিকিৎসা ব্যয় এখনও সাধারণ মানুষের নাগালের বাইরে’

Send
গণবি প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৭:০৫, মার্চ ১৩, ২০১৬ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:৫১, মার্চ ১৩, ২০১৬

স্বাস্থ্য খাতে বাংলাদেশের অনেক উন্নতি হলেও চিকিৎসা ব্যয় এখনও গ্রামের সাধারণ মানুষের নাগালের বাইরে বলে মনে করছেন বক্তারা।
গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিজিওথেরাপি বিভাগ আয়োজিত এক অভিজ্ঞতা বিনিময় সভায় বক্তরা এ কথা বলেন।
নবীন শিক্ষার্থীদের মাসব্যাপী অরিয়েন্টেশন শেষে গত শনিবার ‘এক মাস গ্রামে থেকে যা দেখেছি, যা শিখেছি শীর্র্ষক এ অভিজ্ঞতা বিনিময় সভার আয়োজন করে গণ বিশ্ববিদ্যালয়।
সভায় বক্তরা বলেন, চিকিৎসা ব্যয় সাধারণ মানুষের নাগালের মধ্যে না থাকায় বেশিরভাগ মানুষ মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত। তাই চিকিৎসকদের গ্রামে গিয়ে কাজ করার মানসিকতা তৈরিতে  বিশ্ববিদ্যালয়কে আরও কাজ করতে হবে।
অনুষ্ঠানের প্রধান আলোচক তত্বাধবায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা হোসেন জিল্লুর রহমান বলেন,একজন ভাল চিকিৎসক হতে হলে শুধু চিকিৎসা শাস্ত্রই নয়, গ্রামের মানুষের আর্থ সামাজিক অবস্থা সম্পর্কে জ্ঞান থাকতে হবে। তা না হলে সাধারণ মানুষের অবস্থান থেকে কোনও ভাবেই ভাল চিকিৎসা দেওয়া সম্ভব না।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিশ্বব্যাংকের সিনিয়র স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডা. বুসরা বিনতে আলম বলেন, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে একজন চিকিৎসক তৈরিতে সরকারকে লাখ লাখ টাকা ব্যয় করতে হয়। তাই দেশের প্রতি দায়বদ্ধতা থেকে চিকিৎসকদের গ্রামের মানুষের সেবা করা উচিত।
বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মেসবাহউদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে আরও উপস্থিত ছিলেন- বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হেলথ্ সিস্টেমের টিম লিডার ডা. ভেলেরিয়া ডি অলিভেরিয়া ক্রুজ, ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বেনজীর আহমেদ, গণস্বাস্থ্য সমাজভিত্তিক মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক পারভীন সুলতানা বানু প্রমুখ।


সম্প্রতি ভোলা জেলার চরফ্যাশন, ফেনীর সোনাগাজী ও দিনাজপুরের কাহারুল এলাকার প্রত্যন্ত অঞ্চল পরিদর্শন করে গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা বিভাগ ও ফিজিওথেরাপি বিভাগের শিক্ষার্থীরা। মাসব্যাপী অরিয়েন্টেশন সময়ে শিক্ষাথীরা এসব এলাকার সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্য ব্যবস্থাসহ অন্যান্য মৌলিক বিষয়াবলী পর্যবেক্ষণ করেন।

/এসি-এমটি/এসএনএইচ/

লাইভ

টপ