জুলহাজের খুনিদের গ্রেফতারের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীকে জন কেরির ফোন

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ০০:১২, এপ্রিল ২৯, ২০১৬ | সর্বশেষ আপডেট : ০৬:২৭, এপ্রিল ২৯, ২০১৬

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরিকলাবাগানে জোড়া খুনের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেছেন। বৃহস্পতিবার রাত ৯টার পর প্রধানমন্ত্রীকে টেলিফোন করেন জন কেরি। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইংয়ের পেইজে দেওয়া এক বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়।

উভয়ের মধ্যে কুশল বিনিময় শেষে জন কেরি প্রধানমন্ত্রীকে বলেন, ‘জুলহাজ ছিলেন আমাদের সহকর্মী। হত্যাকারীদের খুঁজে বের করে বিচারের মুখোমুখি করার জন্য পদক্ষেপ নিতে আমরা অনুরোধ জানাচ্ছি।’

আরও পড়ুন: কলাবাগানে জোড়া খুন: সিসিটিভি ফুটেজ ও খুনিদের ফেলে যাওয়া ব্যাগই গোয়েন্দাদের ভরসা

এ সময় প্রধানমন্ত্রী কলাবাগানের ওই দুর্ভাগ্যজনক ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করার জন্য কেরিকে ধন্যবাদ জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যে কোনও ধরনের হত্যাকাণ্ডকে আমরা ঘৃণা করি। নিহতদের একজন আমার সরকারের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নিকট আত্মীয়।’

আরও পড়ুন:  বিশিষ্টজনদের প্রতিক্রিয়া: এটা যুক্তরাষ্ট্রের দ্বৈতনীতি!

শেখ হাসিনা আরও বলেন, ‘আমার পরিবারের সকল সদস্য হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছেন। আজ  (বৃহস্পতিবার) শেখ জামালের জন্মদিন। আমার এই ছোট ভাইকে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট স্বপরিবারে হত্যা করা হয়। বঙ্গবন্ধুর দুইজন হত্যাকারী এখনও যুক্তরাষ্ট্রে আশ্রয় নিয়ে রয়েছেন। তাদের দেশে ফেরত পাঠানোর জন্য ব্যবস্থা নিতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি অনুরোধ জানাচ্ছি। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সঙ্গে কাউন্টার টেরোরিজম বিষয়ে আমাদের পারস্পারিক সহযোগিতার সম্পর্ক রয়েছে। এই সহযোগিতার আওতায় এফবিআই বাংলাদেশে এসেছে। আমি আশা করি,এ বিষয়ক সহযোগিতার ক্ষেত্র অব্যাহত থাকবে। কোনও তথ্য পেলে তা বিনিময় করা হবে’

জবাবে জন কেরি বলেন, ‘কাউন্টার টেরোরিজম সংক্রান্ত সহযোগিতা আরও এগিয়ে নিতে যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিশা দেশাই দিশওয়ালকে বাংলাদেশে পাঠানো হবে।’

আরও পড়ুন: নিরাপত্তায় নিজস্ব উদ্যোগ, তবুও শঙ্কা

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘২০১৫ সালে যারা প্রকাশ্যে মানুষ পুড়িয়ে হত্যা করেছে, তারাই এই হত্যাকারীদের মদদ জোগাচ্ছে। তারা ইমাম, পুরোহিত ও পাদ্রিদের টার্গেট করেছে। এসব ঘটনা ঠান্ডা মাথার হত্যাকাণ্ড।’

প্রধানমন্ত্রী সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রে একই পরিবারের আটজনকে হত্যার ঘটনায় নিন্দা জানান। এছাড়াও ক্যালিফোর্নিয়ায় বাংলাদেশি দম্পতির হত্যাকারীদের গ্রেফতার করে দ্রুত বিচার করার অনুরোধ জানান।

প্রসঙ্গত, গত সোমবার সন্ধ্যা পৌনে ছয়টায় রাজধানীর কলাবাগানের ৩৫, উত্তর ধানমণ্ডির আছিয়া নিবাসের দ্বিতীয় তলায় চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয় ইউএসএআইডি’র কর্মকর্তা জুলহাজ মান্নান (৩৫) ও তার বন্ধু বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র মাহবুব তনয়কে (২৫)। জুলহাজ সমকামীদের অধিকার-বিষয়ক সাময়িকী ‘রূপবান’-এর সম্পাদনার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। আর তনয় লোকনাট্য দলের সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন।

 /পিএইচসি/এনএস/এপিএইচ/  

/আপ-এএ/

লাইভ

টপ