আগে আরও তিন বার অভিযান চালানো হয় নাখালপাড়ার ওই বাড়িতে

Send
আমানুর রহমান রনি
প্রকাশিত : ১৪:৪১, জানুয়ারি ১২, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:০১, জানুয়ারি ১২, ২০১৮

নাখালপাড়ায় র‌্যাবের অভিযানরাজধানীর তেঁজগাও থানাধীন পশ্চিম নাখালপাড়ার 'রুবি ভিলা' নামের ওই বাড়িতে আগেও অভিযান চালিয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। র‌্যাব ও পুলিশ এর আগে আরও তিনবার অভিযান চালানোর কথা জানিয়েছে। ২০১৩, ২০১৬ ও গতবছর সেখানে অভিযান চালানো হয়। বৃহস্পতিবার রাতের অভিযান নিয়ে মোট চার বার অভিযান চালানো হলো সেখানে। আগের অভিযানগুলোয় বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতারও করা হয় বলে জানান এলাকার বাসিন্দা ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।  

নাখালপাড়ার বাসিন্দা ও ২৫ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক নাসির উদ্দিন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘গত বছরের ১৪ আগস্ট এই বাড়িতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা অভিযান চালায়। তখন অন্তত ১০ জনকে গ্রেফতার করা হয়। শুনছি তারাও জঙ্গি। এরপর তাদের কী হয়েছে আর জানি না।’

নাসির উদ্দিন পশ্চিম নাখালপাড়ার ৭৪ নম্বর বাড়ির মালিক। তিনি আরও বলেন, ‘এরও তিনবছর আগে আরও একবার অভিযান চালিয়ে আরও ১০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। এসব কারণে আমাদের এলাকায় কোনও মেস ভাড়া দেই না।’নাখালপাড়ায় র‌্যাবের অভিযান

তার প্রতিবেশী আরেক বাড়িওয়ালা সারোয়ার আলম। তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘এই বাড়িতে এর আগেও একাধিকবার আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অভিযান চালিয়েছে।’

তেজাগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাজহারুল ইসলাম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘গত বছর আমরা ওই বাসায় অভিযান চালিয়েছিলাম। তখন জামায়াত শিবিরের তিন কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে নাশকতার মামলা ছিল।’

নাখালপাড়ার ওই বাড়িতে আগেও অভিযান চালানোর খবর নিশ্চিত করে র‌্যাবের মুখপাত্র মুফতি মাহমুদ খান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘এর আগে ২০১৩ ও ২০১৬ সালে র‌্যাব আরও দুইবার অভিযান চালায় এই বাসায়। সে সময় কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়েছিল।’

এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, পশ্চিম নাখালপাড়ার ১৩/১ রুবী ভিলা নামের যে ছয় তলা বাড়িতে র‌্যাব অভিযান চালায় তার মালিক সাব্বির হোসেনের গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহে। তিনি বিমান বাহিনীতে ফ্লাইট অফিসার হিসেবে কাজ করতেন বলে জানিয়েছে র‌্যাব। তার বাড়ির পাঁচ ও ছয়তলায় মেস ভাড়া দেওয়া হয়। একবার পুলিশ তাকে গ্রেফতার করছিল, পরে আবার ছেড়ে দেয়। তার দুই মেয়ে ও এক ছেলে। মেয়েদের বিয়ে হয়েছে। ছেলে স্ত্রী নিয়ে তিনি বাড়িটির দোতলায় থাকেন।রাজধানীর পশ্চিম নাখালপাড়ায় জঙ্গি আস্তানা

ওই বাড়ির মেসে ভাড়া থাকেন ঢাকা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থী পারভেজ (১৮)। তার বাবা কামাল হোসেন গাজীপুরে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন, তাদের বাড়ি বরিশালের বাবুগঞ্জে। শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে বাংলা ট্রিবিউনকে কামাল হোসেন বলেন, ‘পারভেজ ভোররাত সোয়া ৪টার দিকে আমাকে ফোন করে। সে জানায় বাসায় গোলাগুলি হচ্ছে। বাইরে থেকে দরজা লাগানো। ওরা বের হতে পারছে না। এরপরই আমি গাজীপুর থেকে নাখালপাড়ায় চলে আসি। আমার ছেলের সঙ্গে সর্বশেষ সকাল ৮টায় কথা হয়েছে। এরপর থেকে মোবাইল বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে।’

পশ্চিম নাখালপাড়ার বাসিন্দা সাইফুল ইসলাম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘রাত সাড়ে ১২টার দিকে প্রথমে একটা শব্দ পাই। এর কিছুক্ষণ পর আবার শব্দ। শীতের কারণে বাসার দরজা-জানালা সব বন্ধ ছিল। তাই শব্দ খুব আস্তে শোনা গেছে। আমরা প্রথমে ভেবেছি আতশবাজি হচ্ছে। পাশেই চ্যানেল আই এর অফিস থাকায় প্রায়ই এমন আতশবাজি হয়। আমরা তাই ভেবেছিলাম।’

র‌্যাবের মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজির আহমেদ জানান, নাখালপাড়ার ওই বাড়ির ভেতর তিন জঙ্গী আত্মঘাতী হয়েছে। গত ৪ জানুয়ারি ভুয়া আইডি কার্ড ব্যবহার করে তারা ওই বাড়িটি ভাড়া নেয়। তিনি আরও জানান, বাড়িওয়ালা সাব্বির হোসেন জানেনই না তার বাড়িতে নতুন ভাড়াটিয়া উঠেছে। তিনি তার বাড়িটি ভাড়া দেওয়ার জন্য রুবেল নামে একজনকে দায়িত্ব দিয়ে রেখেছেন। রুবেলই মেস ভাড়া দিয়ে থাকে।

ছবি: সাজ্জাদ হোসেন।
আরও পড়ুন- ভুয়া জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে বাসা ভাড়া নেয় তিন 'জঙ্গি'

/এফএস/

লাইভ

টপ
x