ক্যাপ্টেন আবিদ সুলতান মারা গেছেন

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১১:৪০, মার্চ ১৩, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ১৩:০০, মার্চ ১৩, ২০১৮

পাইলট আবিদ সুলতান নেপালে ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের বিমান বিধ্বস্তের ঘটনায় বৈমানিক আবিদ সুলতান মারা গেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন ইউএস বাংলা কর্তৃপক্ষ।

রাজধানীর বারিধারায় অবস্থিত ইউএস বাংলার করপোরেট অফিসে দুর্ঘটনার সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান ইউএস বাংলা’র গণসংযোগ বিভাগের মহাব্যবস্থাপক কামরুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘আমরা কাল জানিয়েছিলাম ক্যাপ্টেন আবিদ ক্রিটিক্যাল অবস্থায় বেঁচে আছেন। কিছুক্ষণ আগে আমরা খবর পেলাম তিনি আর বেঁচে নেই।’

সংবাদ সম্মেলনে কামরুল ইসলাম বলেন, ‘হতাহতদের হাসপাতালে চিকিৎসা এবং লাশ বহনের খরচ ইউএস বাংলা বহন করবে। লাশের তথ্য ও পরিচয় নির্ধারণ করার জন্য আমাদের আরও কিছু সময় দিতে হবে।’

তিনি বলেন, সৈয়দপুরে দুর্ঘটনায় যে এয়ারক্রাফট ছিল, এটা সেই এয়ারক্রাফট নয়। এর আগেও নেপালের এই এয়ারপোর্টে ৭০টি বিমান দুর্ঘটনার ঘটনা ঘটেছে।’

কামরুল ইসলাম বলেন, ‘কন্ট্রোল টাওয়ারের সঙ্গে পাইলটের কথোপকথনের যে অডিও বের হয়েছে, সেখানে কন্ট্রোল টাওয়ারের কিছু মিস-গাইডেন্স দেখেছি আমরা। আমরা তদন্তের পর সঠিক কারণ পুরোপুরি  বলতে পারবো। প্রাথমিকভাবে আমরা বুঝতে পেরেছি—ক্যাপ্টেনের এখানে কোনও দোষ নেই। কারণ, তার ৭০০ ঘণ্টারও বেশি ফ্লাইট পরিচালনা এবং এই এয়ারপোর্টে শতাধিক ল্যান্ডিংয়ের নজির আছে।’

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পাইলটকে জোরপূর্বক ডিউটিতে পাঠানোর যে অভিযোগ এসেছে সে বিষয়ে তিনি বলেন, ‘একজন পাইলট চাইলে টেক অফ করার ঠিক আগ মুহূর্তেও যদি নিজেকে ঠিক মনে না করেন, তিনি স্বেচ্ছায় প্লেন থেকে নেমে যেতে পারেন। কর্তৃপক্ষের কোনও অধিকার নেই জোরপূর্বক ফ্লাইট পরিচালনা করার। আমরা বিভিন্ন গণমাধ্যমে বিভিন্ন তথ্য পাচ্ছি, কিন্তু সঠিক তথ্য পাওয়ার জন্য আমাদের একটু সময় দিতে হবে। আমাদের প্রশাসনিক লোকজন কাঠমান্ডুতে আছেন, তারা যাচাই-বাছাই করে যে তথ্য পাঠাবেন, তা আমরা আপনাদের জানাবো। ’

প্রসঙ্গত, সোমবার চারজন ক্রু ও ৬৭ যাত্রী মিলে৭১ জন আরোহী নিয়ে ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট ঢাকা থেকে রওনা দিয়ে নেপালের স্থানীয় সময় দুপুর ২টা ২০ মিনিটে কাঠমান্ডু বিমানবন্দরে পৌঁছায়। অবতরণের সময় বিমানটিতে আগুন ধরে যায়। এরপর বিমানবন্দরের কাছেই একটি ফুটবল মাঠে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়। নেপালের সেনাসূত্রে জানা গেছে, ৫০ জন নিহত হয়েছেন এই দুর্ঘটনায়।



/এসও/এসএসএ/এপিএইচ/চেক-এমওএফ/

লাইভ

টপ