অশুভ শক্তি মৃত্যুর গুজব রটিয়ে বেড়াচ্ছে: নানক

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ০২:৪৩, এপ্রিল ০৯, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ০৭:৩৯, এপ্রিল ০৯, ২০১৮

সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছেন জাহঙ্গীর কবির নানক



কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীদের মধ্যে অশুভ উদ্দেশ্য চরিতার্থকারীরা ছাত্র মৃত্যুর গুজব রটিয়ে বেড়াচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক। তিনি বলেন,
‘আন্দোলনরতদের ভেতরে কিছুসংখ্যক অশুভ উদ্দেশ্য চরিতার্থকারীরা ঢুকে পড়েছে। তারা একটি স্বাভাবিক শিক্ষার পরিস্থিতি নষ্ট করার জন্য বিভিন্ন ধরনের গুজব রটিয়ে বেড়াচ্ছে।’
রবিবার (৮ এপ্রিল) দিবাগত রাত দেড়টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ক্যাম্পাসে তিনি কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনকারীদের উদ্দেশে সরকারের আলোচনার প্রস্তাব দেন জাহঙ্গীর কবির নানক। এই আন্দোলনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী নিহত হয়েছেন- এমন গুজবের পরিপ্রেক্ষিতে তিনি এসব কথা বলেন।
গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার সময় নানক বলেন, ‘আমি সব শিক্ষার্থীকে বলতে চাই, আমরা ছাত্র আন্দোলন থেকে বেড়ে ওঠা রাজনীতিবিদ। আমরা পরিষ্কারভাবে বলতে চাই, কোনও ছাত্র মারা যায়নি। এটি নিছক গুজব, অপপ্রচার এবং অপশক্তির এটি একটি রটনামাত্র।’
শিক্ষার্থীদের নিজ নিজ স্থানে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানিয়ে সরকারের এই প্রতিনিধি বলেন, ‘আমি আশা করব, আন্দোলনরত ছাত্রছাত্রীরা তাদের শিক্ষাঙ্গনে ফিরে যাবেন। ছাত্রাবাসের সব ছাত্রছাত্রীরা তাদের হলে ফিরে যাবেন। আগামীকাল (সোমবার) মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে আলোচনা করে কোটা সংস্কার নিয়ে চূড়ান্ত সমাধান করা হবে।’
এর আগে, সোমবার সকাল ১১টায় আন্দোলনকারীদের সঙ্গে সরকারের পক্ষ থেকে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বৈঠকের প্রস্তাব দেন নানক। তিনি বলেন, কোটা নিয়ে সৃষ্ট এই পরিস্থিতি সরকারের কাম্য নয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিষয়টি অবগত রয়েছেন। তিনি আন্দোলনরত শিক্ষার্থী নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করে বিষয়টি সমাধান করার নির্দেশ দিয়েছেন।
উল্লেখ্য, পূর্বঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী, রবিবার দুপুর ২টায় ঢাবি কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে থেকে শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীদের পদযাত্রা শুরু হয়। পরে রাজু ভাস্কর্য হয়ে নীলক্ষেত ও কাঁটাবন ঘুরে পদযাত্রাটি শাহবাগ মোড়ে আসে। বিকাল ৩টা থেকে সেখানেই অবস্থান নেন। এ সময় শাহবাগের আশপাশের সড়ক দিয়ে গাড়ি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। অবস্থান ধরে রাখলে রাত পৌনে ৮টার দিকে টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে আন্দোলনকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয় পুলিশ। এ সময় কয়েকজনকে আটকও করে পুলিশ। এরপরই পুলিশ আন্দোলনকারীদের ধাওয়া দেয়। এ সময় পুলিশ ও আন্দোলনকারীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।
পুলিশের অ্যাকশনের পর শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীরা অবস্থান নেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার ও টিএসসি এলাকায়। সবশেষে তারা ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আক্তারুজ্জামানের বাসভবনের সামনে অবস্থান নিয়ে স্লোগান দিতে থাকেন। তারা উপাচার্যের বাসভবনের গেট ভেঙে ভেতরে ঢোকার চেষ্টা করেন এবং বাসভবনে ইট-পাটকেল ছুঁড়তে থাকেন।
আরও পড়ুন-
শাহবাগ মোড়ে কোটা সংস্কারের দাবিতে অবস্থান

ঢাবি উপাচার্যের বাসভবনের সামনে আন্দোলনকারীরা

কোটা সংস্কার আন্দোলন: গোলাপ না নিয়ে পিছু হটলো পুলিশ

কোটা সংস্কার আন্দোলন: সকাল ১১টায় বৈঠকের প্রস্তাব সরকারের

কোটা সংস্কার আন্দোলন: পুলিশের লাঠিচার্জ-টিয়ারশেলে আহত ৩১

কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনকারীদের ওপর টিয়ার শেল ও লাঠিচার্জ ( ভিডিও)

/এআরআর/আরজে/এসও/সিএ/এআর/টিআর/

লাইভ

টপ