বড় বাজেট বাস্তবায়নে সক্ষম নয় বাংলাদেশ

Send
শফিকুল ইসলাম
প্রকাশিত : ০১:১৮, জুন ০৭, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ১৩:৩৯, জুন ০৭, ২০১৮

বাজেট ২০১৮-২০১৯সক্ষমতার অভাবে বাজেট শতভাগ বাস্তবায়ন হয় না। তাই বরাদ্দ পাওয়া অর্থ খরচ করতে না পারার আশঙ্কায় বছরের মাঝামাঝি বাজেট সংশোধন করে সরকার। প্রতিবছর বাজেটের আকার বাড়লেও তা দক্ষতার অভাবে বাস্তবায়ন না হওয়ায় বাজেট বড় হওয়ার বিষয়টি প্রশ্নের মুখোমুখি দাঁড়িয়েছে। প্রস্তাবিত বাজেট বাস্তবায়নের হার প্রতিবছরই কমছে বলেও পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়ন, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগ (আইএমইডি) সূত্রে জানা গেছে ।

জানা গেছে, আসন্ন ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেটের আকার হতে পারে ৪ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকার কম-বেশি, যা মোট জিডিপির ১৭ শতাংশ।

সূত্র জানায়, বাজেট বাস্তবায়ন সংক্রান্ত প্রাপ্ত তথ্যেও ব্যাপক গরমিল রয়েছে। অর্থ মন্ত্রণালয়ের হিসাবের সঙ্গে (বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো-বিবিএস) আবার বিবিএস-এর মহাহিসাব নিরীক্ষকের দফতর থেকে পাওয়া তথ্য মেলে না। প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের হিসাবে ভিন্নতা রয়েছে। ২০১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেট ঘোষণা করা হয়েছিল ৪ লাখ ২৬৬ কোটি টাকার, পরবর্তীতে সংশোধিত বাজেটের আকার নামিয়ে আনা হয়েছে ৩ লাখ ৭১ হাজার কোটি টাকায়। এ বাজেটও শতভাগ বাস্তবায়ন সম্ভব হবে না। তবে ২০১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেট ৯৩ শতাংশ পর্যন্ত বাস্তবায়ন সম্ভব হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে অর্থমন্ত্রীর এ আশা পূর্ণ হবে না বলে জানান বিশ্লেষকরা। তবে অর্থমন্ত্রী নিজেও বাজেট বাস্তবায়নের হার নিয়ে অসন্তোষ জানিয়েছিলেন। গত ২৮ মে এক অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী বলেছেন, বাজেট বাস্তবায়নের হার প্রতিবছর কমছে। এক সময় ৯৫ শতাংশ বাজেট বাস্তবায়ন হতো, এখন তা ৮০ শতাংশে নেমেছে।

আগের বছরগুলোয় ঘাটতি বাজেটের পরিমাণ মোট জিডিপির ৬ থেকে ৭ শতাংশ হলেও বর্তমানে তা অনেকাংশে কমে এসেছে। ২০১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেটে ঘাটতি ধরা হয়েছে মোট দেশজ উৎপাদনের (ডিজিপি) ৫ দশমিক ৪ শতাংশ। সেই হিসেবে মোট ৪ লাখ ২৬৬ কোটি টাকার মধ্যে ঘাটতি ১ লাখ কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এর আগে ২০১৫-১৬ অর্থবছরে বাজেট ঘাটতির পরিমাণ ছিল ৯৭ হাজার কোটি টাকা। এর ফলে ব্যাংক খাত থেকে ঋণ নেওয়ার প্রবণতা প্রতিবছরই বাড়ে।

অর্থ মন্ত্রণলয়ের একটি সূত্র জানায়, ২০১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেটে সামগ্রিক ঘাটতি ১ লাখ ১২ হাজার ২৭৬ কোটি টাকা, যা ২২ লাখ ২৩ হাজার ৬০০ কোটি টাকার মোট জিডিপির ৫ শতাংশের মধ্যেই রয়েছে। যদিও সংশোধিত বাজেটে এর আকার কমে দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৭১ হাজার ৪৯৫ কোটি টাকা। এক্ষেত্রে ঘাটতি কমে দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ১২ হাজার ৪১ কোটি টাকা।

পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়ন, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগ (আইএমইডি) সূত্র জানায়, ২০১২-১৩ অর্থবছর বাজেট ঘাটতি ছিল ৪ দশমিক ৮ শতাংশ। ২০১৩-১৪ সালে বাজেট ঘাটতি ছিল ৪ দশমিক ৬ শতাংশ। ২০১৪-১৫, ২০১৫-১৬ এবং ২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাজেটে পাঁচ শতাংশ করে ঘাটতি ছিল। আর আসন্ন ২০১৮-১৯ অর্থবছরে এসব অঙ্কের ক্ষেত্রে সব রেকর্ড ছাড়িয়ে যেতে পারে। ঘাটতি জিডিপির ৫ শতাংশের মধ্যেই থাকবে। অর্থমন্ত্রীর ভাষ্যমতে, আগামী অর্থবছরের বাজেটের আকার হতে পারে ৪ লাখ ৬০ হাজার কোটি টাকার কম-বেশি। আগামী অর্থবছরে বাজেট ঘাটতি হতে পারে ১ লাখ ২৫ হাজার কোটি টাকা। তাহলে মোট বাজেট থেকে ঘাটতি বাদ দিলে বাজেট থাকে মাত্র ৩ লাখ ৩৩ হাজার কোটি টাকা। প্রতিবছরই এটি হয়।

গত অর্থবছরে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) বাস্তবায়িত হয়েছে ৮৯ শতাংশ। তার আগের বছর ৯২ শতাংশ। তার আগের বছর ৯১ শতাংশ এবং ২০১৩-১৪ অর্থবছরে এডিপি বাস্তবায়ন হয়েছিল ৯৩ শতাংশ। আর এই অর্থবছরের ৯ মাসে খরচ হয়েছে এডিপির মাত্র ৫২ শতাংশ অর্থ।

পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়ন, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের (আইএমইডি) তথ্যমতে, গত অর্থবছরে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) বাস্তবায়িত হয়েছে ৮৯ শতাংশ। তার আগের বছর ৯২ শতাংশ, তার আগের বছর ৯১ শতাংশ এবং ২০১৩-১৪ অর্থবছরে এডিপি বাস্তবায়ন হয়েছিল ৯৩ শতাংশ। আর এই অর্থবছরের ৯ মাসে খরচ হয়েছে এডিপির মাত্র ৫২ শতাংশ অর্থ।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ড. এ বি মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, বাজেট বড় হলেই বাস্তবায়ন সম্ভব হয় না। বাজেট শতভাগ বাস্তবায়নের সক্ষমতা অর্জন এখনও অনেক দূরে। দক্ষতার অভাবেই বাজেট বাস্তবায়ন হয় না বলেও মনে করেন তিনি।

এ প্রসঙ্গে অগ্রণী ব্যাংকের চেয়ারম্যান ড. জায়েদ বখত বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, বাজেট শতভাগ বাস্তবায়ন না হওয়া নতুন কোনও বিষয় নয়। প্রতিবছরই বাজেট বাস্তবায়নে অগ্রগতি হচ্ছে। সেদিকটি বিবেচনায় আনলে বিষয়টি পজেটিভ। একসময় বাংলাদেশের জাতীয় বাজেট করা হয়েছিল ৭৮৯ কোটি টাকা। এখন সেই বাংলাদেশ সাড়ে ৪ লাখ কোটি টাকার বাজেট দেয়। এটি নিঃসন্দেহে অগ্রগতি। তবে দক্ষতা বাড়ানোর কোনও শেষ নেই। এ চেষ্টা অব্যাহত রাখতে হবে।

এ প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, বাজেট বাস্তবায়নে সক্ষমতা না থাকলে এত অগ্রগতি বাংলাদেশের হলো কী করে? আজ বাংলাদেশ আর সেই অবস্থানে নেই। এ বছর ৯১ থেকে ৯৩ শতাংশ বাজেট বাস্তবায়ন হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন অর্থমন্ত্রী।

/এসআই/এএইচ/চেক-এমওএফ/

লাইভ

টপ