শুক্রবারও অব্যাহত থাকবে তাপদাহ

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২০:০৩, এপ্রিল ২৫, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:৪৮, এপ্রিল ২৫, ২০১৯

গরমে হাঁসফাঁস করতে করতে পানির সন্ধানে পাইপের ওপর এসে বসেছে একটি পাখি। (ছবি: ফোকাস বাংলা)

তীব্র গরম আর তাপদাহে নাজেহাল দেশের মানুষ। বৈশাখের শুরুতেই তাপদাহে অতিষ্ঠ সারাদেশ। আজ ১১ বৈশাখ বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল)  দেশের প্রায় সব অঞ্চলের ওপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে তাপপ্রবাহ। আগামীকালও এই তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে। তবে শনিবার কোথাও কোথাও তা কমতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। 

তীব্র গরমের কারণে আজ দুপুরের দিকে রাজধানীর কয়েকটি এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, তাপদাহে ক্লান্ত মানুষ খুঁজছে ছায়া ও বিশ্রাম। আরোহী থাকা সত্ত্বেও রিকশাঅলারা যাত্রী তুলতে চাইছে না। গণপরিবহনে যাত্রী সংখ্যাও ছিল তুলনামূলক কম। এছাড়া ফুটপাতে শরবত ও পানীয়ের দোকানে দেখা যায় মানুষের ভিড়। প্রাণিকূলেও বেড়েছে পানির জন্য ছটফটানি। পানির আশেপাশে পাখি, কুকুর, বেড়ালের ঘোরাঘুরিতেই বোঝা যায় গরমে কাহিল এসব প্রাণিও। 

গতকাল বুধবারও তাপমাত্রা ছিল বেশি। বুধবার ঢাকার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আজ সেটি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৭ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। আজ দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল রাজশাহীতে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এছাড়া বেশিরভাগ অঞ্চলের তাপমাত্রা ছিল ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ওপরে। আজ ঢাকা, ফরিদপুর, মাদারীপুর, রাজশাহী, পাবনা ও সৈয়দপুর অঞ্চলসহ চট্টগ্রাম, বরিশাল, খুলনা ও সিলেট বিভাগের ওপর দিয়ে মৃদু তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে।

গরমে বেড়েছে ফ্যানের বেচাকেনা। (ছবি: ফোকাস বাংলা)

আজ ঢাকা বিভাগের মধ্যে ফরিদপুরে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৭ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, চট্টগ্রামে বিভাগের মধ্যে সীতাকুণ্ড ও ফেনীতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৭ দশমিক ৩,  ময়মনসিংহে নেত্রকোনায় ৩৬ দশমিক ৫, সিলেটে ৩৬ দশমিক ৭, রাজশাহীতে ৩৮, রংপুর বিভাগের মধ্যে দিনাজপুরে ৩৬ দশমিক ৪, খুলনা বিভাগের মধ্যে খুলনা, যশোর ও চুয়াডাঙ্গায় ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং বরিশাল বিভাগের মধ্যে পটুয়াখালীতে ৩৭ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। 

আবহাওয়াবিদ বজলুর রশিদ জানান, আজ দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এটি আরও বাড়তে পারে। সারাদেশের ওপর দিয়ে তাপদাহ বয়ে যাচ্ছে। তিনি জানান, আগামীকাল এই আবহাওয়া অব্যাহত থাকবে। শনিবার কিছু কিছু এলাকায় বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে। বৃষ্টি হলে কমে যেতে পারে তাপমাত্রা। 

আবহাওয়া অধিদফতরের ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়, নিরক্ষীয় ভারত মহাসাগর ও এর আশেপাশে দক্ষিণ বঙ্গোপসাগর এলাকায় একটি লঘুচাপ তৈরি হয়েছে। লঘুচাপের বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থান করছে। এর প্রভাবে অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে।

আবহাওয়ার দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাসে বলা হয়, চলতি মাসে ১ থেকে ২ নিম্নচাপ সৃষ্টি হতে পারে। এর মধ্যে একটি ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে। এ মাসেই উত্তর থেকে মধ্যাঞ্চল পর্যন্ত ২ থেকে ৩টি মাঝারি বা তীব্র বজ্রঝড় বা কালবৈশাখী  ও দেশের অন্য এলাকায় ৫ থেকে ৬টি হালকা বা মাঝারি ধরনের বজ্রঝড় বা কালবৈশাখী হতে পারে। এছাড়া উত্তর ও উত্তর পশ্চিমাঞ্চলে একটি তীব্র তাপপ্রবাহ (প্রায় ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস) এবং অন্য এলাকায় ১ থেকে ২টি মৃদু ( ৩৬ থেকে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস ) অথবা মাঝারি (৩৮ থেকে ৪০ ডিগ্রি) তাপপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে।

 

/এসএনএস/টিএন/

লাইভ

টপ