সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, দুর্নীতি ও মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান চলবে: প্রধানমন্ত্রী

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ০১:১১, মে ২২, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০১:১৩, মে ২২, ২০১৯

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা (ফাইল ছবি-ফোকাস বাংলা)সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, দুর্নীতি ও মাদকের বিরুদ্ধে যে অভিযান চলছে, তা অব্যাহত থাকবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘শান্তি ছাড়া উন্নয়ন সম্ভব নয়। সরকার দেশকে একটি উন্নত, সমৃদ্ধ ও শান্তিপূর্ণ দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে কাজ করে যাচ্ছে।’

মঙ্গলবার (২১ মে) গণভবনে বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দের সম্মানে আয়োজিত ইফতার মাহফিলে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘দেশে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, মাদক ও দুর্নীতিবিরোধী চলমান অভিযান অব্যাহত থাকবে। সব ক্ষেত্রে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রেখে উন্নয়নের ধারা যেন অব্যাহত রাখতে পারি, সে জন্য আমরা কাজ করে যাচ্ছি।’

সবার কাছে দোয়া কামনা করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘পবিত্র রমজান মাসে আপনারা সবাই দোয়া করবেন, এ দেশকে আমরা যেন একটি উন্নত দেশ হিসেবে গড়ে তুলে বিশ্বব্যাপী মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত করতে পারি। গ্রাম পর্যায়ের মানুষও যেন সুন্দর এবং উন্নত জীবন পান, সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হন, সেটাই আমরা কামনা করি, সেটাই আমাদের প্রচেষ্টা।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘দেশের জনগণ আমাকে সেবা করার সুযোগ দিয়েছেন বলেই, বাংলাদেশ আজ বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করেছে। দেশের এই অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রা যেন অব্যাহত থাকে।’

সরকার প্রধান বলেন, ‘কাজের মাধ্যমে জনগণের যদি এতটুকুও কল্যাণ করতে পারি, তাহলে আমার বাবা-মা’সহ গণতন্ত্র ও মুক্তিযুদ্ধে জীবন উৎসর্গকারীদের আত্মা শান্তি পাবে।’

বিগত নির্বাচনে বিজয়ের কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘জনগণের এই আস্থা ও বিশ্বাস যেন অব্যাহত থাকে। আর সেইসঙ্গে আজ বাংলাদেশকে আমরা যে উন্নয়নের পথে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি, সেই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রেখে জাতির পিতার ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন যেন আমরা বাস্তবায়ন করতে পারি। যার যার কর্মস্থলে থেকে সবাই এই প্রচেষ্টা চালাবেন, যেন আমাদের এই মাতৃভূমির হারানো গৌরবকে আমরা আবার ফিরিয়ে আনতে পারি। বিশ্বের দরবারে বাংলাদেশকে আবারও যেন মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত করতে পারি। ’৭৫-এর ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে হত্যার পর যে গৌরব আমরা হারিয়ে ফেলেছিলাম।’

তিনি বলেন, বাংলাদেশ আজ উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা পেয়েছে। সবাইকে সম্মিলিতভাবে প্রচেষ্টা চালাতে হবে, যেন এই উন্নয়নশীল দেশকে আমরা উন্নত-সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে পারি।’

ইফতার মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন—জাতীয় অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যারয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান, অ্যাটর্নি জেনারেল মাহাবুবে আলম, দৈনিক জনকণ্ঠের উপদেষ্টা সম্পাদক তোয়াব খান, বিচারপতি মেজবাউদ্দিন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদ ওবায়দুল কাদের, প্রধানমন্ত্রীর সাবেক উপদেষ্টা ডা. মোদাচ্ছের আলী, প্রকৌশলী ড. শামিমুজ্জামান বসুনিয়া, কৃষিবিদ মীর্জা আবদুল জলিল, বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন, এফবিসিসিআই’র সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম প্রমুখ।

ইফতারের আগে দেশের শান্তি, সমৃদ্ধি ও উন্নতি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। মোনাজাতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও ১৫ আগস্ট শহীদ এবং মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের আত্মার শান্তি কামনার পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রীর সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করা হয়।

 

/এমএইচবি/আইএ/

লাইভ

টপ