শেষ হলো উপজেলায় পঞ্চম ধাপের ভোট, চলছে গণনা

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৬:৫৯, জুন ১৮, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:২৬, জুন ১৮, ২০১৯

জামালগঞ্জ উপজেলা নির্বাচনে নারী ভোটারদের সারি

পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের পঞ্চম ধাপে দেশের ২০ উপজেলায় ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে। এখন চলছে গণনা। মঙ্গলবার (১৮ জুন) সকাল ৯টা থেকে শুরু হয়ে একটানা ভোটগ্রহণ চলে বিকাল ৫টা পর্যন্ত। আগের চার ধাপের মতো এ ধাপেও ভোটার উপস্থিতি ছিল কম। এবারের নির্বাচনে বড় ধরনের কোনও নাশকতার খবর পাওয়া যায়নি। তবে বেশ কয়েকটি কেন্দ্রে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

নতুন সময় নির্ধারণের ব্যাপারে ইসি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, নির্বাচনে নানামুখী অনিয়ম ঠেকানোর পদক্ষেপের অংশ হিসেবে এই সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। সকাল ৮টায় ভোট শুরু হলে ভোটকেন্দ্রগুলোতে আগের রাতে ব্যালট ও বাক্স পাঠানো হতো। এতে আগের রাতে দুর্বৃত্তরা সিল মেরে বাক্স ভরে রাখতো। এসব ঠেকাতে সকালে কেন্দ্রে বাক্স পাঠানোর সুযোগ করতেই ভোটের সময় এক ঘণ্টা পেছানো হয়েছে। এখন থেকে সকাল বেলায় কেন্দ্রে ব্যালট পেপার পাঠানো হবে।

এবারের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে গাজীপুর সদর, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর, নোয়াখালী সদর ও নারায়ণগঞ্জ বন্দর উপজেলায় ইভিএমে ভোটগ্রহণ হয়েছে।

নির্বাচন কমিশন সচিব মো. আলমগীর সাংবাদিকদের বলেন, ‘সহিংসতার কারণে একজন প্রার্থীর (বরগুনার তালতলী উপজেলায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মো. রেজবি-উল-কবির জমাদ্দারের) প্রার্থিতা বাতিল করা হয়েছিল। কিন্তু তিনি হাইকোর্ট থেকে প্রার্থিতা ফিরে পেয়েছেন। আর অন্য একটি উপজেলায় অনিয়মের প্রমাণ মেলায় স্থানীয় প্রশাসনকে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়। নিরপেক্ষভাবে দায়িত্ব পালনের জন্য এবং সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে নির্বাচন কমিশন সব প্রস্তুতি নেয়।’

অনিয়মের অভিযোগ
সিরাজগঞ্জের কামারখন্দের চৌবাড়ি ইসলামিয়া উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে মঙ্গলবার (১৮ জুন) সকালে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর সমর্থকদের বিরুদ্ধে জোর করে ভোট দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। বুথের মধ্যেই সরকার দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল মতিন তালুকদারের লোকজন নৌকায় ভোট দিতে কয়েকজনের ওপর বলপ্রয়োগ করেন। ভোটাররা ব্যালট পেপার তাদের কাছে ছেড়ে দিতে রাজি না হওয়ায় বাড়ি ফেরার পথে কেন্দ্রের মধ্যেই পুলিশের সামনে চৌবাড়ি গ্রামের অধিবাসী জেলা জজ আদালতের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) অ্যাড. রেজাউল করিম ভুট্টু, খায়রুল আলম ও জহুরুল ইসলামসহ বেশ কয়েকজনকে বেধড়ক মারপিট করা হয় এবং কুপিয়ে জখম করা হয়।
এদিকে, গাজীপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নিজ কেন্দ্রে ভোট দিতে না পারা, এজেন্টদের মারধর, ভয়ভীতি দেখানো ও কেন্দ্রে প্রবেশ করতে না দেওয়ার অভিযোগে নির্বাচন বয়কট করেছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী ইজাদুর রহমান মিলন।
হবিগঞ্জে শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলায় বিরামচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর লোকজনের বিরুদ্ধে নৌকায় জোর করে ভোট, জালভোটসহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন বিদ্রোহী প্রার্থী আলী আহমদ খান।

যে ২০ উপজেলায় ভোট হয়েছে

শেরপুরের নকলা, নাটোরের নলডাংগা, সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ, গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ, পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী, বরগুনার তালতলী, গাজীপুর সদর, নারায়ণগঞ্জের বন্দর, মাদারীপুর সদর, রাজবাড়ীর কালুখালী, হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর, নোয়াখালী সদর, রাজশাহীর পবা, নেত্রকোনার পূর্বধলা, সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ, কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী, পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া, ফেনীর ছাগলনাইয়া এবং খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলায় ভোটগ্রহণ হয়েছে।

পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে গত ১০ মার্চ প্রথম ধাপে ভোট হয়। এরপর দ্বিতীয় ধাপে ১৮ মার্চ, তৃতীয় ধাপে ২৪ মার্চ ও চতুর্থ ধাপে ৩১ মার্চ ভোটগ্রহণ হয়। প্রথমবারের মতো দলীয়ভাবে অনুষ্ঠিত এই ভোটে অনিয়মের অভিযোগ তুলে বিএনপিসহ সমমনা দলগুলো বর্জন করেছে।

/এমএ/

লাইভ

টপ