এএসপিদের ওসি পদে নিয়োগের প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৮:৩৩, জুন ১৮, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:৫০, জুন ১৮, ২০১৯

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী (ফাইল ছবি)

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, দেশের থানাগুলোয় আগে অফিসার-ইন-চার্জ বা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পদের দায়িত্ব দেওয়া হতো একজন সাব–ইন্সপেক্টরকে (এসআই)। আর এখন থানার ওসি পদে নিয়োগপ্রাপ্ত হন পুলিশের একজন ফার্স্ট ক্লাস অফিসার। সুতারাং যখন যা প্রয়োজন, তখন তাই করা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, ‘দেশের থানাগুলোয় ওসি পদে অতিরিক্ত পুলিশ সুপারদের (এএসপি) পদায়নের প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে। সবসময় সবকিছু একই থাকে না; উন্নয়নের সঙ্গে অনেক কিছু এগিয়ে যায়।’

মঙ্গলবার (১৮ জুন) সচিবালয়ের সভাকক্ষে সুরক্ষাসেবা বিভাগের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘জনগণের প্রয়োজনে যখন যা প্রয়োজন, সরকার তখন তা করবে। জনগণের স্বার্থে ও কল্যাণে সবসময়ই সবকিছু করবো। থানার ওসি পদে কর্মকর্তা পরিবর্তনের যে সিদ্ধান্ত রয়েছে তা নিয়ে সময়মতো সবার সঙ্গে বসে পরামর্শ করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘উন্নয়ন যেমন একটি চলমান প্রক্রিয়া, তেমনি এএসপিদের ওসি পদে নিয়োগও একটি চলমান প্রক্রিয়া।’ তিনি জানান, আগে একটি থানায় ২০ জন কনস্টেবল থাকতো, এখন সেখানে ৫০ জন করা হয়েছে। একটি থানায় একসময় দুইজন এসআই থাকতো, এখন সেখানে ত্রিশ থেকে চল্লিশ জন এসআই থাকে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘মাদক অধিদফতরকে আমরা ঢেলে সাজাচ্ছি। যেখানে যা প্রয়োজন তার ব্যবস্থা করছি। মাদকের বিরুদ্ধে আমরা জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছি। ২৬ জুন মাদক দিবস পালিত হবে। শুধু দিবস পালন নয়, মাদকের চাহিদা ও সরবরাহ হ্রাস করতে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।’

চুক্তি স্বাক্ষরের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘মন্ত্রণালয়ের চারটি দফতর ও সংস্থার সঙ্গে চুক্তি হলো। সারাবছর তাদের যে টার্গেট দেওয়া হবে তা তারা সম্পাদন করবে।’

 

/এসআই/এমএ/

লাইভ

টপ