বাংলা নয়, ইংরেজিতে সাড়া দেয় চিড়িয়াখানার নতুন অতিথি (ভিডিও)

Send
চৌধুরী আকবর হোসেন
প্রকাশিত : ১২:৩৪, আগস্ট ১২, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:৪৩, আগস্ট ১২, ২০১৯

ঢাকা চিড়িয়াখানায় নতুন অতিথি রয়েল বেঙ্গল টাইগার

মিরপুরে জাতীয় চিড়িয়াখানায় চারটি নতুন বাঘ এসেছে। আফ্রিকা থেকে আনা হলেও এগুলো রয়েল বেঙ্গল টাইগার। জন্ম আফ্রিকায় হওয়ায় বাংলাদেশের পরিবেশে তারা নতুন। এ কারণে তাদের নিয়ে সংশ্লিষ্টদের ব্যস্ততাও যেন একটু বেশিই। নতুন অতিথিদের নামও রাখা হয়েছে। চিড়িয়াখানার কিউরেটর জানান, বাঘগুলো এখনও বাংলা ভাষায় অভ্যস্ত হয়ে ওঠেনি। তাদের খানাপিনা, গোসল সবকিছুর নির্দেশনা দিতে হচ্ছে ইংরেজিতে। ইংরেজি কমান্ডে সাড়াও দেয় তারা।

চারটির মধ্যে দুটি বাঘ ও দুটি বাঘিনী। বাঘ দুটোর নাম রাখা হয়েছে টগর ও কদম। বাঘিনী দুটোর নামও ফুলের নামে বেলি ও শিউলি। চারটি  বাঘেরই গড় বয়স দুই বছর। দেশে সুন্দরবনের বাঘ ধরা নিষেধ, তাই দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে এদের কিনে আনা হয়েছে। নতুন পরিবেশে এখনও  নিজেদের খাপ খাইয়ে নিতে পারেনি নতুন আসা এই চার রয়েল বেঙ্গল টাইগার। তীব্র গরমে চিড়িয়াখানার খাঁচার ভেতরে চৌবাচ্চার পানিতে গা ভিজিয়ে সময় কাটাচ্ছে তারা। বাঘগুলোর তদারকিতে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন কেয়ারটেকাররাও।

চিড়িয়াখানায় নতুন অতিথি রয়েল বেঙ্গল টাইগারজাতীয় চিড়িয়াখানার কিউরেটর এস এম নজরুল ইসলাম বলেন, ‘জুলাই মাসের শেষের দিকে এই বাঘগুলো আনা হয়েছে। আফ্রিকায় জন্ম হওয়ায় বাংলাদেশের পরিবেশে তাদের অভ্যস্ত হতে কিছুটা সময় লাগবে। গরমে তাদের কিছুটা কষ্ট হচ্ছে। এজন্য সব সময় খাঁচার চারপাশে পানি ছিটিয়ে দেওয়া হয়। এছাড়া, খাঁচার ভেতরেও পানি রাখা হয়েছে।’

চিড়িয়াখানায় সরেজমিন দেখা গেছে, চারটি বাঘ পৃথক পৃথক খাঁচায় রাখা হয়েছে। ডোরাকাটা লম্বা আকৃতির বাঘগুলো খাঁচার ভেতরে পানির চৌবাচ্চায় বসে আছে। কিছু সময় পর পর সেখান থেকে উঠে এসে হাঁটাহাঁটি করছে। কখনও আবার শরীর এলিয়ে দিয়ে শুয়ে বিশ্রাম নিচ্ছে। কখনও উঠে এসে মাংস খাচ্ছে।

কিউরেটর এসএম নজরুল ইসলাম  বলেন, ‘বাঘগুলো আফ্রিকার, তাই তারা ইংরেজিতে অভ্যস্ত। বাংলা বুঝতে কিছুটা সময় লাগতে পারে। এখন তাদের ইংরেজিতেই কমান্ড করা হয়, ইংরেজিতে ডাকলে সাড়াও দেয়।’

/এপিএইচ/এমওএফ/

লাইভ

টপ