রোহিঙ্গা ইস্যুতে বৈঠকে বসছে বাংলাদেশ মিয়ানমার চীন

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২০:৫০, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:৫৪, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০১৯





রোহিঙ্গা ক্যাম্পযুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘ অধিবেশন চলাকালে রোহিঙ্গা সমস্যা নিয়ে ত্রিদেশীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। বাংলাদেশ, মিয়ানমার ও চীনের মধ্যে এ বৈঠক হবে। মঙ্গলবার (১৭ সেপ্টেম্বর) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে।
বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ ফারুক খান বাংলা ট্রিবিউনকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, ‘মন্ত্রণালয় আমাদের জানিয়েছে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশন চলাকালীন ত্রিদেশীয় এই বৈঠক হবে।’
আগামী ২৫ বা ২৬ সেপ্টেম্বর এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ার সম্ভাবনা হয়েছে বলে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।
সংসদীয় কমিটির বৈঠকে মিয়ানমার থেকে বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের অগ্রগতি ও মিয়ানমারের সর্বশেষ অবস্থা নিয়ে আলোচনা করা হয়।
‘কূটনৈতিক তৎপরতা অপর্যাপ্ত’
রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধানে বাংলাদেশের কূটনৈতিক তৎপরতায় সন্তুষ্ট নয় সংসদীয় কমিটি। এ ব্যাপারে আরও জোরালো কূটনৈতিক তৎপরতা চালানোর জন্য বলেছে কমিটি।
কমিটির পক্ষ থেকে বিভিন্ন দেশের উদাহরণ তুলে ধরে বলা হয়, ফিলিস্তিন ইস্যু গত ৭০ বছর ধরে চলছে। পৃথিবীর অনেক দেশে এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে, এর একটারও ফল আসেনি। মিয়ানমার তো থাইল্যান্ডসহ আশপাশে কারেন্স, শামসদেরকে বিতাড়িত করেছে, তারও সমাধান হয়নি। পৃথিবীর অনেক দেশ আছে, যাদের অর্থনৈতিক অবরোধ দিলেই কাঁপাকাঁপি শুরু করে, কিন্তু ওদের এসব করে লাভ নেই। তারা এসব বিষয়ে অভ্যস্ত হয়ে গেছে।
এ বিষয়ে কমিটির সভাপতি বলেন, ‘কমিটি বলেছে, যেভাবে ডিপ্লোম্যাসি চালানো হচ্ছে তাতে হবে না। শরণার্থী সমস্যা বহু দেশে রয়েছে। আমাদের আরও জোরালো কূটনৈতিক তৎপরতা চালাতে হবে। শক্ত অবস্থান নিতে হবে।’

আন্তর্জাতিক আদালতে যাওয়ার পরিকল্পনা
রোহিঙ্গা নির্যাতনে মিয়ানমার ও দেশটির সেনাবাহিনীর বিচারে আন্তর্জাতিক আদালতে যাওয়ার উদ্যোগের কথা জানিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এদিনের সংসদীয় কমিটির বৈঠকে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে।
এ বিষয়ে কমিটির সভাপতি ফারুক খান বলেন, ‘মন্ত্রণালয় তাদের নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ বিষয়ে অবহিত করেছেন। তারা জানিয়েছে, তারা আন্তর্জাতিক বিচার আদালত (আইসিজে) এবং আন্তর্জাতিক অপরাধ আদলতের (আইসিসি) মাধ্যমেও চেষ্টা করছে।’
এদিকে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন কার্যক্রম নিয়ে আশিয়ানভুক্ত দেশগুলোর সংসদীয় পর্যায়ে তৎপরতা চালাতে কয়েকটি দেশ সফরের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংসদীয় কমিটি। দুটি দলে ভাগ হয়ে সংসদীয় কমিটির সদস্যরা ইন্দোনেশিয়া, সিঙ্গাপুর, ফিলিপাইনস, থাইল্যান্ড ও কম্বোডিয়া সফর করবে।
কমিটির সভাপতি ফারুক খান জানান, সংসদীয় কমিটির প্রতিনিধিরা রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে মতামত তৈরি এবং মিয়ানমারের ওপর সৃষ্টিতে দেশগুলোর সংসদ ও সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ে বৈঠক করবে।
এদিকে, সংসদ সচিবালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, ভিয়েতনাম, ব্যাংকক, জার্মানি ও যুক্তরাজ্যসহ বিভিন্ন দূতাবাস বাংলাদেশি নাগরিক বিশেষ করে সিনিয়র নাগরিকদের জন্য ভিসা পাওয়ার বিষয়টি সহজ করার প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখার সুপারিশ করা হয়।
বৈঠকে বিদেশে অবৈধভাবে অবস্থানরত বাংলাদেশিদের দেশে ফেরত আনতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় যাতে কার্যকরী ভূমিকা পালন করে সেজন্য মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখার সুপারিশ করা হয়। মানবপাচারের সঙ্গে জড়িত বাংলাদেশি দালাল চক্রের বিরুদ্ধে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ারও সুপারিশ করা হয় বৈঠকে।
ফারুক খানের সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন, প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, আব্দুল মজিদ খান, হাবিবে মিল্লাত, নাহিম রাজ্জাক, কাজী নাবিল আহমেদ ও নিজাম উদ্দিন জলিল (জন) অংশ নেন।

/ইএইচএস/এইচআই/

লাইভ

টপ