জিকে শামীমের প্রতিষ্ঠানকে নোটিশ দেওয়ার নির্দেশ

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২২:১০, অক্টোবর ০৯, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:৫৩, অক্টোবর ০৯, ২০১৯

গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়জি কে শামীমের মালিকানাধীন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান জি কে বি অ্যান্ড কোম্পানি প্রাইভেট লিমিটেডকে নোটিশ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী গণপূর্ত অধিদফতর (পিডব্লিউডি) প্রতিষ্ঠানটিকে এই নোটিশ দেবে। নোটিশের জবাব ঠিকভাবে পাওয়া না গেলে প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্যও গণপূর্ত অধিদফতরকে মন্ত্রণালয় থেকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বাংলা ট্রিবিউনকে গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেন, ‘আমরা মন্ত্রণালয় থেকে জি কে শামীমের প্রতিষ্ঠানকে নোটিশ করার জন্য গণপূর্ত অধিদফতরকে নির্দেশ দিয়েছি। তারা প্রতিষ্ঠানটিকে নোটিশের মাধ্যমে জবাব চাইবে। নোটিশে তাদের যেসব প্রকল্প রয়েছে, সেগুলোর কাজ কেন বন্ধ রয়েছে, সে বিষয়ে জবাব চাওয়া হবে। তারা যদি ঠিকভাবে কাজগুলো অব্যাহত না রাখে, তাহলে আমরা আইনগত ব্যবস্থা নেবো। বিকল্প চিন্তা করবো। পৃথক ঠিকাদার নিয়োগ করবো। কারণ, কারও জন্য তো সরকারের প্রকল্প বন্ধ থাকতে পারে না।’

জানতে চাইলে গণপূর্ত অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী মো. সাহাদাত হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘যদি কোনও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান তাদের কাজ বন্ধ রাখে, নিয়ম অনুযায়ী সেই প্রতিষ্ঠানকে সংশ্লিষ্ট নির্বাহী প্রকৌশলী নোটিশ করেন। তারা যদি নোটিশের জবাব না দেন, তখন আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হয়।’ নোটিশ করা হয়েছে কিনা জানতে চাইলে প্রকৌশলী মো. সাহাদাত হোসেন বলেন, ‘এমন তথ্য আমার কাছে নেই। ফাইলপত্র না দেখে বলতে পারবো না।’

যোগাযোগ করা হলে জি কে বি অ্যান্ড কোম্পানি প্রাইভেট লিমিটেডের মার্কেটিং ম্যানেজার মো. নাজিম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘এখনও কোনও নোটিশ পাইনি। যদি আমাদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টই বন্ধ রাখা হয়, তাহলে কাজ কীভাবে চালিয়ে যাবো? অনেক প্রতিষ্ঠান ও শ্রমিকরা টাকা পাবে। তাদের টাকা দিতে পারছি না। এখন নোটিশ করলে কি লাভ হবে?’

বিভিন্ন স্পোর্টস ক্লাবের আড়ালে ক্যাসিনো ব্যবসা চালানোর অভিযোগে ১৮ সেপ্টেম্বর অভিযান শুরু করে র‌্যাব। বিভিন্ন ক্যাসিনো থেকে সরঞ্জামসহ নগদ টাকা জব্দ করা হয়। প্রথমে গ্রেফতার করা হয় ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে। আলোচনায় আসে টেন্ডার কিং হিসেবে পরিচিত যুবলীগ নেতা জি কে শামীমের নাম। পরে র‌্যাব তাকে নিকেতনের বাসা ও কার্যালয়ে অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করে। ২৩ সেপ্টেম্বর জি কে শামীম ও তার পরিবারের সবার ব্যাংক লেনদেন স্থগিত করার নির্দেশ দিয়ে এগুলোর হিসাব চায় বাংলাদেশ ব্যাংক।

জানা গেছে, বর্তমানে জি কে শামীমের প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ৫৬টি প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে। এরমধ্যে শামীমের মালিকানাধীন জি কে বি অ্যান্ড কোম্পানি প্রাইভেট লিমিটেডের নামে এককভাবে রয়েছে ১৪টি প্রকল্প। আর বাকি ৪২টি প্রকল্প জয়েন্ট ভেঞ্চারে (জেবি)। এসব প্রকল্পে ব্যয় ধরা হয়েছে ৪ হাজার ৬৫৯ কোটি টাকা।

/এসএস/এনআই/এমওএফ/

লাইভ

টপ