Vision  ad on bangla Tribune

পুলিশের দাবি হার্ট অ্যাটাকে মৃত্যুজামালপুরে ইউপি নির্বাচনে ব্যাপক সহিংসতা, নিহত ১

জামালপুর প্রতিনিধি১৭:২১, মার্চ ৩১, ২০১৬

ব্যাপক সহিংসতার মধ্য দিয়ে জামালপুর জেলার মেলান্দহ উপজেলার ইউপি নির্বাচন শেষ হয়েছে। এ সময় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, ইট-পাটকেল নিক্ষেপ, সংঘর্ষ ও গুলি বর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। নিহতের নাম রফিকুল ইসলাম (৫০)।

মেলান্দহ উপজেলার শ্যামপুর ইউনিয়নের উত্তর বালুরচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে সংরক্ষিত মহিলা মেম্বর প্রার্থী মর্জিনা বেগম (মাইক প্রতীক) এর সমর্থকদের সঙ্গে মেম্বার প্রার্থী ওয়াহেদ আলী ( টিউব ওয়েল প্রতীক) এর সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় প্রতিপক্ষের  নিক্ষেপ করা ইটের আঘাতে রফিকুল ইসলাম মারা যান।

জামালপুরতবে মেলান্দহ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাসিমুল ইসলাম দাবি করেছেন, রফিকুল ইসলাম হার্ট অ্যাটাকে মারা গেছেন।
নয়া নগর ইউনিয়নের মামা-ভাগিনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী শফিউল আলমের সমর্থকরা ব্যালট পেপার ছিনতাই করে ছিল মারার চেষ্টা করলে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী এমদাদুল হকের সমর্থকরা তাতে বাধা দেয়।এ সময় তাদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। সংঘর্ষ থামাতে পুলিশ ৬ রাউন্ড ফাঁকা গুলি বর্ষণ করে । পরে কেন্দ্রটির নির্বাচন বন্ধ রাখা হয়। এই ইউনিয়নের মালঞ্চ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর সমর্থকরা ব্যালট পেপার ছিনতাই করতে গেলে প্রতিপক্ষের সঙ্গে সংঘর্ষ বাধে। এ সময় সেলিম (৩০) নামে এক যুবক আহত হন। পরে পুলিশ ৫ রাউন্ড ফাঁকা গুলি বর্ষণ করে । অন্যদিকে আদ্রা ইউনিয়নের আব্দুল মান্নান উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে দুজন মেম্বর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধলে পুলিশ কয়েক রাউন্ড গুলি চালায়। পরে কেন্দ্রটিতে ভোটগ্রহণ স্থগিত করে দেওয়া হয়।

এ ব্যাপারে মেলান্দহ উপজেলার ইউএনও জন কেনেডি জাম্বিল কেন্দ্র দুটি বন্ধ করার সত্যতা স্বীকার করেন।

অপরদিকে নির্বাচনে ব্যাপক অনিয়ম ও ভোট কারচুপির অভিযোগ এনে বিএনপির তিন চেয়ারম্যান প্রার্থী আদ্রা ইউনিয়নের জাহাঙ্গীর আলম, মাহমুদপুর ইউনিয়নের নূরে আলম তালুকদার রুনু এবং নাংলা ইউনিয়নের নূরল হক জঙ্গী নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন। মেলান্দহে মোট ১০টি ইউনিয়নে নির্বাচন হয়েছে। অপর ১টি ইউনিয়নের নির্বাচন মামলার কারণে স্থগিত রয়েছে।

অপর দিকে জামালপুর সদর উপজেলার ১৫ টি ইউনিয়নের নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে । এসব ইউনিয়নে কোনও ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

/টিএন/

samsung ad on Bangla Tribune

লাইভ

টপ