যেভাবে নিখোঁজ হন দৃক কর্মকর্তা ইরফান

Send
আমানুর রহমান রনি
প্রকাশিত : ১৬:৫৬, এপ্রিল ০৩, ২০১৬ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:৩১, এপ্রিল ০৩, ২০১৬

ইরফানুল ইসলামশনিবার দুপুরে ডাচ বাংলা ব্যাংক থেকে টাকা তোলার পরই নিখোঁজ হয়ে যান দৃক গ্যালারির কর্মকর্তা ইরফানুল ইসলাম (৪২)।
দৃকের মার্কেটিং ম্যানেজার তাইমুর রশিদ জানান, ইরফানুল ইসলাম ছিলেন দৃকের প্রশাসনিক কর্মকর্তা। অ্যাকাউন্টও দেখতেন তিন। শনিবার দুপুর ১১টা ২৬ মিনিটের দিকে তিনি ধানমণ্ডির ৮ নম্বর সড়কের ডাচ বাংলা ব্যাংকে প্রবেশ করেন। এরপর ব্যাংক থেকে ৩ লাখ ৮ হাজার টাকা তোলেন।
তিনি অফিসের গাড়িতে করেই ব্যাংকে গিয়েছিলেন। চালক নাসির মিয়া জানিয়েছেন, ব্যাংক থেকে একটু দূরে তিনি গাড়ি পার্ক করে রাখেন। ১১টা ৪৮ মিনিটে তার সঙ্গে নাসিরের কথা হয়। এরপর দীর্ঘক্ষণ খোঁজ না পেয়ে আবারও ফোন করলে তাই মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। এরপর তিনি অফিসে ফোন করে বিষয়টি জানান।
ব্যাংকের সিসিটিভি ফুটেজে দেখা গেছে, ইরফানুল ইসলাম ১২টা ২৬ মিনিটে ব্যাংক থেকে বের হয়েছেন। এরপর থেকেই তিনি নিখোঁজ।
তার নিখোঁজ হওয়ার বিষয়টি পরিবারের সদস্যদের জানায় দৃক কর্তৃপক্ষ। এরপর দৃকের মহাব্যবস্থাপক এসএম রেজাউর রহমান কলাবাগান থানায় জিডি করেন।
তাইমুর রশিদ জানান, ১৯৯৩ সালে দৃক গ্যালারিতে যোগ দেন ইরফানুল ইসলাম। তার স্ত্রীর নাম জোহরা বেগম। একমাত্র ছেলে ইফতেখারুল ইসলাম উম্মাম। তারা রাজধানীর হাজারীবাগ থানার মনেশ্বর রোডের ৩৭/১ বাসায় বাস করেন। তাদের গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামের সাতকানিয়ার লোহাগড়ার আমতলা।

বন্ধু ও সহকর্মী ইমতিয়াজ আলম বেগ বলেন, ইরফানুল ইসলাম খুব ভালো মানুষ ছিলেন। আমার সঙ্গে তার দীর্ঘদিনের পরিচয়। দৃক গ্যালারির আগে তিনি বাংলাদেশ ফটো সোসাইটির দায়িত্ব পালন করেন।

উল্লেখ্য, রবিবার দুপুরের দিকে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকায় ইরফানুল ইসলামের লাশ পাওয়া যায়। তার পরিবারের সদস্যরা নারায়ণগঞ্জ গিয়ে লাশ শনাক্ত করেন।

/এআরআর/এজে/

লাইভ

টপ