behind the news
Rehab ad on bangla tribune
Vision Refrigerator ad on bangla Tribune

পাঁচ মামলাতেই খালেদার জামিন

সালমান তারেক শাকিল, আদালত থেকে০৯:২৭, এপ্রিল ০৫, ২০১৬



জামিনে পেয়ে আদালত থেকে বেরিয়ে আসছেন খালেদা জিয়ারাষ্ট্রদ্রোহ, নাশকতা, গ্যাটকো দুর্নীতি মামলাসহ পাঁচ মামলায় জামিন পেয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালত ও মহানগর মুখ্য হাকিম আদালত বিভিন্ন মামলায় এসব জামিন মঞ্জুর করেন। পাঁচ মামলার পাঁচটিতেই জামিন পেয়ে দুপুর সোয়া একটার দিকে খালেদা জিয়া আদালত প্রাঙ্গণ ত্যাগ করেন।

খালেদার আইনজীবী অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া এবং অ্যাডভোকেট মাসুদ আহমেদ তালুকদার বলেন, খালেদা জিয়া ৫ মামলাতেই জামিন পেয়েছেন। তিনি তিনবারের প্রধানমন্ত্রী বিধায় আদালত দ্বিধাহীনভাবে তার জামিন মঞ্জুর করেছেন। আর খালেদা জিয়া সবসময় আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। সময়সীমার মধ্যেই তিনি আদালতে হাজির হয়েছেন।

প্রথমে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কামরুল হোসেন মোল্লার আদালতে পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করে যাত্রী হত্যার ঘটনায় বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলায় (মামলা নম্বর ৫৯) আত্মসমর্পণ করে জামিন চাওয়ার পর আদালত তার জামিন মঞ্জুর করেন। বিএনপির দলীয় আইনজীবী জেসমিন আক্তার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। আদালত এই মামলার পরবর্তী শুনানির জন্য ২৭ এপ্রিল তারিখ নির্ধারণ করেন। একই মামলায় খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেনেও আত্মসর্মপন করে জামিন আবেদন করলে আদালত তারও জামিন মঞ্জুর করেন।

এরপর বিএনপি চেয়ারপারসন ৩ নম্বর বিশেষ জজ আদালতে গিয়ে গ্যাটকো দুর্নীতি মামলায় জামিন আবেদন করলে আদালত তার জামিন মঞ্জুর করেন। বিএনপির আইনজীবী ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, গ্যাটকো মামলার পরবর্তী শুনানির জন্য আদালত আগামী ১৩ এপ্রিল তারিখ নির্ধারণ করেছেন।

এছাড়া, সিএমএম কোর্টে যাত্রাবাড়ীতে বাসে পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করে যাত্রী হত্যার ঘটনায় দায়ের করা পৃথক একটি হত্যা মামলা (মামলা নম্বর ৫৮), নৌ-পরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খানের মিছিলে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় খালেদা জিয়াসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে গুলশান থানায় দায়ের করা মামলা, মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা নিয়ে কটূক্তি করায় ঢাকার সিএমএম আদালতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায়ও খালেদার জামিন মঞ্জুর করা হয়।

সিএমএম কোর্টের এই তিন মামলায় জামিনের বিষয়ে অ্যাডভোকেট শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, সিএমএম কোর্টে পরপর তিনটি মামলায় শুনানি হয়। শুনানি শেষে আদালত খালেদা জিয়ার জামিন মঞ্জুর করেন।

অন্যদিকে ব্যারিস্টার মাহবুবউদ্দীন খোকন জানান, আদালতে খালেদা জিয়া কোনো কথা বলেননি। প্রত্যেকটি এজলাসেই তিনি বিচারকের অনুমতি নিয়ে বসে ছিলেন। যা কিছু বলার তা আইনজীবীরাই বলেছেন।

খালেদা জিয়ার জামিনের বিষয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী আবদুল্লাহ আবু জানান, আত্মসর্মপনের পর আদালত খালেদা জিয়ার জামিন মঞ্জুর করেছেন। এটা আদালতের ব্যাপার। তবে একটি স্থিতিশীল সরকারকে অস্থিতিশীল করার জন্যই যে অবরোধের সময় বিভ্ন্নি নাশকতা করা হয় তা প্রমাণিত। এইসব নাশকতার দায় অবরোধের ডাক দেওয়া খালেদা জিয়ার উপরই বর্তায়। সেজন্য যাত্রাবাড়ীতে বাসে হামলার ঘটনার দায়ও তাকেই নিতে হবে। প্রাথমিকভাবে পুলিশের চার্জশিটেও বিষয়টি প্রমাণিত হয়েছে।

এর আগে, মঙ্গলবার সকাল ১০টা ৪০ মিনিটে খালেদা জিয়া আদালতে পৌঁছান। এ সময় শত শত নেতা-কর্মী ব্যানার, মিছিল, স্লোগান সহকারে খালেদা জিয়ার গাড়িবহরকে অনুসরণ করেন। তারা আদালতের গেটে অবস্থান নিয়েছেন। এসময় আদালতের নিচেই দলীয় আইনজীবীরা স্লোগান দেন। খালেদা জিয়ার আদালতে যাওয়াকে কেন্দ্র করে বিএনপি ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের মিছিলে গুলিস্তান, নয়াবাজার এলাকায় যানজটের সৃষ্টি হয়। এছাড়া মহানগর দায়রা জজ আদালত প্রাঙ্গণে ব্যাপক পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

প্রসঙ্গত, গত ৩০ মার্চ খালেদা জিয়াসহ ২৮ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। পরে তার আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া জানান, খালেদা জিয়া আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তিনি ৫ এপ্রিল আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন চাইবেন।

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের বর্ষপূর্তিতে গত বছর ৫ জানুয়ারি থেকে লাগাতার অবরোধের ডাক দেন খালেদা জিয়া। লাগাতার ওই অবরোধের মধ্যে গত বছরের ২৩ জানুয়ারি রাতে যাত্রাবাড়ীর কাঠেরপুল এলাকায় গ্লোরি পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাসে পেট্রোল বোমা হামলা চালায় দুর্বৃত্তরা। এতে ২৯ জন যাত্রী মারাত্মক দগ্ধ হন। ঘটনার পরদিন ২৪ জানুয়ারি খালেদা জিয়াকে হুকুমের আসামি করে যাত্রাবাড়ী থানায় দুটি মামলা দায়ের করে পুলিশ। ঘটনার প্রায় আটদিন পর নূর আলম (৬০) নামের একজন চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে মারা যান।

খালেদা জিয়ার আদালতে যাওয়া উপলক্ষে সকাল থেকেই ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে  বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের জনসংযোগ শাখার উপকমিশনার মারুফ হোসেন সরদার। তিনি বলেন, যেকোনও ধরনের পরিস্থিতি মোকাবেলায় পুলিশ সতর্ক থাকবে।

ছবি: নাসিরুল ইসলাম

এসটিএস/এমও/আপ-  এপিএইচ

লাইভ

Nitol ad on bangla Tribune
টপ