তরুণদের আগ্রহ কম রাজনৈতিক ও ধর্মীয় পোস্টে

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৮:৩০, মে ২৭, ২০১৭ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:২৬, মে ২৭, ২০১৭

বাংলাদেশে সামাজিক যোগাযোগের সবচেয়ে জনপ্রিয় মাধ্যম ফেসবুকে অ্যাকাউন্ট আছে দেশের বেশিরভাগ তরুণের তবে বিভিন্ন সময় ফেসবুকে প্রকাশিত রাজনৈতিক কিংবা ধর্মীয় পোস্টে তাদের তেমন আগ্রহ নেই।

আপনার কি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট আছে?সম্প্রতি বাংলা ট্রিবিউন দেশব্যাপী ২৪০০ জনের ওপর পরিচালিত‘তারুণ্য ২০১৭: নতুন প্রজন্ম যা ভাবছে’ শীর্ষক এক জরিপে অংশগ্রহণকারীদের কাছে জানতে চেয়েছিল তাদের ফেসবুকে অ্যাকাউন্ট আছে কিনা জবাবে ৮০ শতাংশ হ্যাঁ সূচক জবাব দিয়েছেন।

ফেসবুকে রাজনৈতিক পোস্ট সম্পর্কে আপনার অনুভূতি কী?

অপর একটি প্রশ্নে তাদের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল ফেসবুকে বিভিন্ন সময় তারা যে রাজনৈতিক পোস্ট দেখতে পান সে সম্পর্কে তাদের অভিমত কী? উত্তরে প্রায় ৩৪ শতাংশ (সংযুক্ত করেন না ২৩.১৭ এবং বিরক্ত লাগে কিংবা ব্লক করে দেন ১০.৬৭ শতাংশ) জানিয়েছেন এই ধরনের পোস্টে তারা নিজেদের সংযুক্ত করেন না অথবা এই ধরনের পোস্টগুলো তারা ব্লক করে দেন। ২৯ শতাংশ বলেছেন ভালো না লাগলেও এই ব্যাপারে তারা কিছু মনে করেন না। প্রায় ২৫.৭১ শতাংশ এ ধরনের পোস্টের নিজের সংযুক্ত করেন বলে জানিয়েছেন।

Page-5-6-7-13

ধর্মীয় পোস্টগুলোর ক্ষেত্রেও একই চিত্র দেখা গেছে। প্রায় ৩৪ শতাংশ (সংযুক্ত করেন না ২৩.০৪ এবং বিরক্ত হন কিংবা ব্লক করেন ১০.৫৮ শতাংশ) এসব পোস্টে নিজেদের জড়ান না, বিরক্ত হন এবং ব্লক করেন। প্রায় ২২.৮৩ শতাংশের কাছে এসব পোস্ট ভালো লাগে না, তবে দেখলে মাইন্ডও করেন না। প্রায় ৩২.৫৪ শতাংশের কাছে এ ধরনের পোস্ট ভালো লাগে এবং তারা এসব পোস্টে নিজেদের সংযুক্ত করেন বলে জানিয়েছেন।

জরিপ পরিচালনা: বাংলা ট্রিবিউন

জরিপ পরিচালনার সময়কাল: ১ এপ্রিল - ৬ এপ্রিল, ২০১৭
নমুনা সংগ্রহের প্রক্রিয়া:
 
  • দৈব চয়ন পদ্ধতিতে সারাদেশের ৮ টি বিভাগীয় শহর ও ২৪টি জেলার গ্রামীণ অঞ্চল থেকে ২৪০০ জন তরুণের ওপর এই জরিপটি পরিচালনা করা হয়।
  • শহুরে ও গ্রামীণ জনপদের সমান সংখ্যক তরুণের কাছ থেকে নমুনা নেওয়া হয়েছে।
  • প্রতিটি বিভাগের বিভাগীয় শহরের বাসিন্দাদের শহুরে হিসেবে ধরা হয়েছে।
  • জেলার গ্রামাঞ্চলের প্রতিনিধিদের গ্রামীণ জনপদের প্রতিনিধি হিসেবে ধরা হয়েছে।
  • প্রতিটি বিভাগীয় শহর থেকে ১৫০ জনের ওপর জরিপ পরিচালনা করা হয়েছে।
  • গ্রামীণ ডাটার জন্য বিভাগীয় শহর ব্যাতিত তিনটি জেলাকে নির্বাচন করা হয়েছে।
  • বড় বিভাগের ক্ষেত্রে বিভাগীয় শহর ব্যতিত জেলাগুলো দৈবচয়নে নির্ধারণ করা হয়েছে।
  • প্রতিটি জেলার গ্রামীণ জনপদ থেকে ৫০ জনের ওপর জরিপ চালানো হয়েছে।

 

/এস জি

 

লাইভ

টপ