মুজিব: সাধারণ মানুষ থেকে সুপারহিরো হয়ে ওঠার গল্প

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৯:২৮, নভেম্বর ১৬, ২০১৭ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:৪২, নভেম্বর ১৬, ২০১৭

গ্রাফিক নভেল ‘মুজিব’ নিয়ে লিট ফেস্টে সেশনছাপ্পান্ন হাজার বর্গমাইলের এ দেশে একটি নামের সঙ্গে সবাই পরিচিতি। সেই নামটি হলো বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। কিন্তু বঙ্গবন্ধু কে ছিলেন? তিনি বাংলাদেশের স্থপতি, জাতির জনক। আবার তিনিই সাধারণ পরিবারে বেড়ে ওঠা শিশু, মা-বাবার আদরের সন্তান। কৈশোরে সে খেলতে ভালোবাসে, গ্রামের ছোটখাটো বিবাদে জড়িয়ে পড়ে লাঠি হাতে তুলে নিতেও কুণ্ঠাবোধ করে না। এমন একজন সাধারণ মানুষ থেকে বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা হয়ে ওঠার পেছনের গল্প চিত্রের মাধ্যমে সবার সামনে তুলে আনার প্রয়াস গ্রাফিক নভেল ‘মুজিব’।
বঙ্গবন্ধুর জীবনের বিভিন্ন গল্প নিয়ে গ্রাফিক নভেলটি প্রকাশ করেছে ঢাকা ট্রান্সলেশন সেন্টার। বৃহস্পতিবার (১৬ নভেম্বর) বাংলা একাডেমিতে ‘ঢাকা লিট ফেস্ট ২০১৭’-এর প্রথম দিনে সিরিয়ার কবি আদোনিস বঙ্গবন্ধুর জীবনীভিত্তিক এই বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করেন।
বঙ্গবন্ধুর জীবনের গল্পকে সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়ার এই উদ্যোগ নিয়ে পরে উন্মুক্ত আলোচনায় বসেন নভেলটির প্রকাশক রাদওয়ান মুজিব সিদ্দীক, কার্টুনিস্ট রাশেদ ইমাম তন্ময়, গ্র্যান্টা ম্যাগাজিনের অনলাইন সম্পাদক লিউক নেইমা, শিক্ষক আরজু ইসমাইল। বাংলা একাডেমির আব্দুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে ‘মুজিব: টেকিং হিস্টোরি টু দ্য নেক্সট জেনারেশন’ শীর্ষক আলোচনা পর্বটি সঞ্চালনা করেন সাহিত্যিক ও শিক্ষক জেরি পিন্টো।
আলোচনায় বক্তারা বলেন, বর্তমান সময়ে লেখার চেয়ে ছবি বেশি কথা বলে। সাধারণ মানুষের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য, বিশেষ করে তরুণ প্রজন্মের কাছে পৌঁছানোর মাধ্যম হিসেবে তাই গ্রাফিক নভেল বা কমিককে বেছে নেন এ উদ্যোগের পেছনের ব্যক্তিরা।
এ প্রসঙ্গে রাদওয়ান মুজিব সিদ্দীক স্মৃতি রোমন্থন করে বলেন, ‘আশির দশকে বাংলাদেশে ইতিহাস বিচ্যুতির এক কালো অধ্যায় ঘটে যায়। বঙ্গবন্ধুকে বাংলাদেশের ইতিহাস থেকে মুছে ফেলার চর্চা চলে। সেই সময় পেরিয়ে গেছে। বঙ্গবন্ধুর নিজের লেখা আত্মজীবনী এখন সবার হাতে। কিন্তু তরুণ প্রজন্মের কাছে নেতা বঙ্গবন্ধুর বদলে মানুষ বঙ্গবন্ধুর ইতিহাস পৌঁছে দেওয়ার দায়িত্ববোধ থেকেই আমরা এ উদ্যোগ নিয়েছি।’
কমিক আঁকতে পছন্দ করেন কার্টুনিস্ট রাশেদ ইমাম তন্ময়। অনেক কমিক এঁকেছেনও। সে সূত্রে বিশ্বের বড় বড় সব সুপারহিরোর নাম তার ঠোঁটের ডগায়। কিন্তু নিজের দেশের কোনও সুপারহিরোর নাম বলতে গেলেই আটকে যেতে হয় বলে জানালেন তিনি। একজন কার্টুনিস্টের দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে এ কাজের সঙ্গে সম্পৃক্ত হওয়ার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘দেশে কমিক প্রচলিত করার সুপ্ত বাসনা এবং নিজেদের সুপারহিরোকে গ্রাফিক নভেলের মাধ্যমে সবার সামনে তুলে আনতে চেয়েছিলাম। সেই জায়গা থেকেই এ পরিশ্রম। আর সুপারহিরোর কথা বলতে গেলে বাংলাদেশে বঙ্গবন্ধুর বিকল্প আর কে আছে!’
স্কুল শিক্ষার্থীদের কাছে এ নভেলটি পৌঁছাচ্ছে কিনা, দর্শকদের এমন প্রশ্নের জবাবে আরজু ইসমাইল বলেন, ‘বিশেষ শিক্ষা উপকরণ হিসেবে গ্রাফিক নভেল শ্রেণিকক্ষে শিশুদের কাছে জনপ্রিয় করা সম্ভব। কেননা, শিশুরা পড়ার সঙ্গে সঙ্গে যখন ছবির মাধ্যমে কিছু জানে, তখন সেটা তাদের মধ্যে বেশি স্থায়ী হয়।’
‘মুজিব’ নভেলটি অবারিত করার মাধ্যমে তৃণমূল পর্যায়েও ছড়িয়ে দেওয়া সম্ভব বলে বক্তারা অভিমত জানান আলোচনায়।
আরও পড়ুন-
আদোনিসের হাতে ‘মুজিব’ গ্রন্থ

আমি মানুষের পক্ষের কবি: আদোনিস

বাংলার নারীরা সাহসের সঙ্গে এগিয়ে যাচ্ছে

জনপ্রিয় লেখকই হতে চেয়েছিলাম: ইমদাদুল হক মিলন

ফেক নিউজের বিপক্ষে মূলধারার গণমাধ্যমকে দাঁড়াতে হবে

/টিআর/

লাইভ

টপ