মা-মেয়ের ‘ভালোবাসা’র গল্প

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৬:২৬, নভেম্বর ১৭, ২০১৭ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:১৪, নভেম্বর ১৭, ২০১৭

অনুষ্ঠানে সারা যাকের ও নন্দনা সেন‘রঙধনু আঁকা পুরো নীল আকাশটা আমি তোমার জন্য এনে দেবো, কোকাকোলার বোতলে ভরে।’ আদরের ছোট্ট মেয়েটির জন্য মায়ের ভালোবাসা কবিতার ভাষায় প্রকাশ পায় এভাবেই। মায়ের সঙ্গে মেয়ের ভালোবাসার জায়গাটিই এমন। নাড়ির বন্ধন, যাকে ছিন্ন করা অসম্ভব। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে মা-মেয়ের সম্পর্কের খুনসুটি গড়িয়ে শক্ত হয়ে ওঠে ভিত।
মা-মেয়ের মধ্যকার ভালোবাসা নিয়ে আড্ডার ছলে এমন আলোচনায় বসেছিলেন সাহিত্যিক নবনীতা দেব সেনের মেয়ে সাহিত্যিক, অভিনেতা, নারী ও শিশু অধিকারকর্মী নন্দনা সেন এবং অভিনেতা, পরিচালক, সমাজকর্মী সারা জাকের। ‘ঢাকা লিট ফেস্ট ২০১৭’-এর দ্বিতীয় দিনে বাংলা একাডেমি লনে ‘মাদারস অ্যান্ড ডটারস’ শীর্ষক সেশনে সকাল সোয়া ১১টায় আড্ডায় মেতে ওঠেনন তারা। এই প্রতিবেদনের শুরুতেই লেখা কবিতার লাইন দুইটি মেয়ে নন্দনার জন্য মা নবনীতার লেখা- সেটাও জানান নবনীতাই।
সেশনে মায়ের লেখা কবিতা আবৃত্তি করে শোনান নন্দনা। জানান, ছোট্ট টুম্পাকে (নন্দনা সেনের ডাক নাম) নিয়ে মায়ের লেখাগুলো পড়ে কতটা আপ্লুত হয়ে যান তিনি। রোমন্থন করেন টুকরো টুকরো স্মৃতি।
মায়ের সঙ্গে কলকাতায় যে বাড়িতে নন্দনা বড় হয়েছেন, তার নাম ছিল ‘ভালোবাসা’। কলকাতার লোকেরা সাধারণত গৃহস্থ ঘরকে বাড়ি বলে সম্বোধন করলেও মায়ের স্মৃতি আঁকড়ে ধরে নিজের বাড়ির নামও ‘ভালোবাসা’ রাখেন নন্দনা।
মেয়ের জন্য লেখা কবিতা পড়ছেন নন্দনা সেনস্মৃতির সফরে বাদ পড়েন না নন্দনার নানী রাধা রাণী দেবীও। ১২ বছরে বিয়ে, ১৩ বছরে বিধবা আবার ২৮ বছরে পুনর্বিবাহ। সে সময়ে আইন পক্ষে থাকলেও বেশ সমালোচিত হতে হয়েছিল তাকে। রাধা রাণী, নবনীতা দেব সেন, নন্দনা সেন- এ তিন প্রজন্মের মা-মেয়ের সম্পর্কের গাঁথুনি নিয়ে নিজের পরের লেখার কাজে হাত দিয়েছেন নন্দনা। বইটির নাম রাখতে যাচ্ছেন ‘মাদার টাং।
নন্দনা বলেন, ‘রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর রাধা রাণীর নাম রাখতে চেয়েছিলেন নবনীতা, কিন্তু এ প্রস্তাব ফিরিয়ে দেন তিনি। পরে নিজের মেয়ের নাম অবশ্য রেখেছিলেন তাই।’ মজার কাকতাল হলো- নন্দনা সেনের বাবা নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেনের নামও রেখেছিলেন কবিগুরু।
সেশনের সবচেয়ে আকর্ষণীয় অংশ ছিল নন্দনার লেখা ‘এক্ষুনি’ কবিতার আবৃত্তি। নন্দনা ও সারা জাকের দু’জনে মিলে দারুণ কবিতাটি আবৃত্তি করেন।

/টিআর/

লাইভ

টপ