সাগর-রুনির কবর কবে জিয়ারত করবেন তিনি?

Send
উদিসা ইসলাম
প্রকাশিত : ১৮:৩৪, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:৩৮, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৮

সাগরের মা সালেহা মনিরসাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের ছয় বছরেও তাদের কবর জিয়ারত করেননি সাগরের মা সালেহা মনির। তার এক কথা, যেদিন সাগর-রুনির খুনিকে তিনি দেখবেন, সেইদিন কবর জিয়ারত করবেন। তার আগে নয়।


রবিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) কথা হয় সালেহা মনিরের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘জানি না, কত দিন অপেক্ষা করতে হবে। কিন্তু তবু আমি খুনির চেহারা না দেখে কবরের সামনে যাবো না।’
তিনি দোয়া করেন তার স্নেহের নাতি মেঘের জন্য। যেখানেই থাকুক, ভালো থাকুক ও।
হত্যাকাণ্ডের বিচার চেয়ে স্মারকলিপি নিয়ে সাংবাদিকদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে দেখা করার বিষয়টি উল্লেখ করে সালেহা মনির বলেন, ‘কেন ছয় বছর পর ডিএনএ টেস্ট করার কথা আবার? এটা কি শাক দিয়ে মাছ ঢাকা? বলা হচ্ছে, একজনের ডিএনএ মিলছে না, সব পাওয়া যাচ্ছে। এটার কিছুই বুঝলাম না। কোন দেশে বাস করছি? এখনও ডিএনএ টেস্ট নিয়েই পড়ে আছে। আমার একটাই প্রশ্ন, সাগর-রুনি কোনও দেশদ্রোহী-সন্ত্রাসী ছিল না, রাজনীতি করতো না, তাহলে কেন তাদের খুনিকে ধরা হবে না?’
আমারও তো কবরে গিয়ে জিয়ারতের অধিকার আছে বলে কান্নায় ভেঙে পড়েন সালেহা মনির।
তিনি বলেন, ‘আমি তো যেতে পারি না কবরস্থানে। আমি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। সাগরের খুনিকে যেদিন দেখবো, সেদিন যাবো সাগরের কাছে। তার আগে নয়। গিয়ে আমার সন্তানকে বলবো, “দেখ, তোর খুনিকে ধরা হয়েছে বাবা।” এ বাংলার মাটিতে এ বিচার হবেই। যেই দোষী হোক না কেন, বিচার হবে।’
‘কী এমন হয়েছিল যে সাগর-রুনিকে এভাবে মারা হলো? সাগরের সঙ্গে যে নির্মমতা হয়েছে, এরকম আর কোথাও হয়নি! আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এত কিছু পারে, আর এটা বের করতে পারে না? এটা তো পাকিস্তানি বর্বরতাকেও হার মানায়।’
মেয়েই এখন সব দেখে-শুনে রাখে জানিয়ে সালেহা মনির বলেন, ‘আমার মেয়েটাই সব করছে। এক মুহূর্তের জন্যও চোখের আড়াল করে না। আমার সাগর তো এখন নেই,মেয়ে সব দেখে-শুনে রাখে।’


আরও পড়ুন: মেঘের জীবন

 

/এইচআই/

লাইভ

টপ