‘খালেদা জিয়ার মামলা নিয়ে কার্লাইল মন্তব্য করলে আদালতের নজরে আনা হবে’

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৭:৩৯, জুলাই ১২, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:০০, জুলাই ১২, ২০১৮

 

লর্ড কার্লাইল ছবি সংগ্রহীতআইনজীবী হিসেবে বিচারাধীন বিষয় নিয়ে জনসম্মুখে কথা বলা আদালত অবমাননার শামিল বলে মন্তব্য করেছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়ের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার আপিল চলাকালে ব্রিটিশ আইনজীবী লর্ড কার্লাইল যদি কোনও বিরূপ মন্তব্য করেন, তবে তা আদালতের নজরে আনা হবে।’ বৃহস্পতিবার (১২ জুলাই) সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

কার্লাইল যদি অন্য কোনও দেশে বসে মামলার বিষয়ে মন্তব্য করেন, সেক্ষত্রে আপনারা তার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ আনবেন কিনা, এমন প্রশ্নের জবাবে দুদকের এই আইনজীবী বলেন, ‘আদালত অবমাননার অভিযোগ আনতে হলে ঘটনা ঘটতে হবে বাংলাদেশের মধ্যে। আমাদের সীমার মধ্যে বসে মন্তব্য করলে, তবেই তার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ আনা যাবে। তারপরও তিনি যদি সংবাদ সম্মেলন করেন, অবশ্যই আদালতের নজরে আনবো।’

খুরশীদ আলম খান বলেন, ‘তিনি (কার্লাইল) একজন হাইপ্রোফাইল ল’ইয়ার। কিন্তু তিনি যে কাজটা করতে যাচ্ছেন, সেটা অত্যন্ত অসৌজন্যমূলক। তিনি ভারতে গিয়ে একটি স্বাধীন রাষ্ট্রের (বাংলাদেশের) বিচার ব্যবস্থা নিয়ে মন্তব্য করবেন, সমালোচনা করবেন, এটা কোনও সুস্থ-বিবেকবান মানুষ গ্রহণ করবে না। আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানাই। তিনি ভারতে যেতেই পারেন। এটা স্বাভাবিক। কিন্তু একটি স্বাধীন সার্বভৌম দেশের বিরুদ্ধে আরেকটি দেশে গিয়ে মন্তব্য করবেন, এটা তার পক্ষ থেকে আমরা আশা করিনি। কাগজে (দৈনিক পত্রিকায়) যেটুকু জেনেছি, তিনি এ মামলা (জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট) নিয়ে কথা বলবেন। এ মামলাটির আপিল পেন্ডিং আছে। আপিলের রায়ে কী হবে, সেটা আমরাও জানি না। খালেদা জিয়ার আইনজীবীরাও জানেন না।’ তিনি আরও বলেন, ‘বিচারাধীন একটি মামলা নিয়ে আমরা কোনও মন্তব্য করি না। এখানে রায়ে কী হবে, না হবে, তা তো আমরা জানি না। মাত্র (বৃহস্পতিবার) এ মামলার আপিল শুনানি শুরু হলো। একজন সাধারণ মানুষ ভুল করতে পারেন। কিন্তু একজন আইনজীবী হয়ে তার তো এটা ভুল হওয়ার কথা নয়।’
প্রসঙ্গত, গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছর কারাদণ্ডাদেশ দেন বিচারিক আদালত। রায় ঘোষণার পরপরই খালেদা জিয়াকে নাজিম উদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। তিনি এখন সেখানেই আছেন। এ মামলায় খালাস চেয়ে করা খালেদা জিয়ার আপিলের ওপর হাইকোর্টে শুনানি শুরু হয়েছে বৃহস্পতিবার (১২ জুলাই)। মামলাটি নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করতে চেয়ে ভারত থেকে ফেরত যান ব্রিটিশ আইনজীবী লর্ড কার্লাইল।

/বিআই/এমএনএইচ/চেক-এমওএফ/

লাইভ

টপ