অতিরিক্ত শ্রেণি শিক্ষকদের অনশন কর্মসূচি স্থগিত

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১১:৫২, ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৩:২৮, ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৯

অতিরিক্ত শ্রেণি শিক্ষকদের সংবাদ সম্মেলনশিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান নওফেলের আশ্বাসে অনশন কর্মসূচি স্থগিত করেছেন চাকরি স্থায়ী করার দাবিতে আন্দোলনরত অতিরিক্ত শ্রেণিশিক্ষকরা (এসিটি)। তবে দাবি পূরণ না হলে মার্চ থেকে কঠোর কর্মসূচিতে যাবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন তারা। বৃহস্পতিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে রাস্তায় অনশনরত শিক্ষকরা সংবাদ সম্মেলন করে এ ঘোষণা দেন।

শিক্ষকরা জানান, দেশের দুর্গম এলাকায় মাধ্যমিকের শিক্ষার্থীদের ঝরে পড়া রোধ এবং শিক্ষার্থীদের ইংরেজি, গণিত ও বিজ্ঞান ভীতি দূর করতে সেকেন্ডারি এডুকেশন কোয়ালিটি অ্যান্ড একসেস এনহ্যান্সমেন্ট প্রজেক্ট (সেকায়েপ)-এর আওতায় ২১০০ প্রতিষ্ঠানে ৫২০০ অতিরিক্ত শ্রেণিশিক্ষক (এসিটি) নিয়োগ করে সরকার।

২০০৮ সালে চালু হওয়া প্রকল্পের আওতায় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাস করা মেধাবী শিক্ষার্থীদের বাছাই করে নিয়োগ দেওয়া হয় ২০১৫ সালে। ২০১৭ সালে প্রকল্পটির মেয়াদ শেষ হলে শর্ত অনুযায়ী চাকরির ধারাবাহিকতা রক্ষা না করায় এসব শিক্ষক প্রতারণার শিকার হন বলে অভিযোগ ওঠে। পরে তাদের চাকরির ধারাবাহিকতা রক্ষার আশ্বাস দেওয়া হয়। তবে ১৪ মাস ধরে তারা বেতন পাননি।

এসব কারণে চাকরি স্থায়ী করার দাবিতে ৩ ফেব্রুয়ারিতে অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেন শিক্ষকরা। গত ৫ ও ৬ ফেব্রুয়ারি প্রতীকী অনশন করেন তারা। এতেও সরকারের পক্ষে কোনও আশ্বাস না পেয়ে গত ৭ ফেব্রুয়ারি অনশন কর্মসূচি শুরু করেন। বুধবার (১২ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ এসিটি অ্যাসোসিয়েশনের নেতারা শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান নওফেলের সঙ্গে সাক্ষাৎ করলে উপমন্ত্রী তাদের চাকরির ধারাবাহিকতা রক্ষার প্রতিশ্রুতি দেন। এরপর তারা আন্দোলন থেকে সরে আসার ঘোষণা দেন।

সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত শ্রেণিশিক্ষকদের সংগঠন বাংলাদেশ এসিটি অ্যাসোসিয়েশনের যুগ্ম সম্পাদক সাদাতুল মুঈদ ব্রিফ করেন। এ সময় সংগঠনের সভাপতি কৌশিক চন্দ্র বর্মন, সহ-সভাপতি রফিকুল ইসলাম রাফিসহ অন্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

/এইচএন/এসএমএ/টিটি/এমওএফ/

লাইভ

টপ