ডাকসু’র সাংস্কৃতিক সম্পাদকের বিরুদ্ধে অশোভন আচরণের অভিযোগ

Send
ঢাবি প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ০৩:০০, এপ্রিল ২৫, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০৭:৪১, এপ্রিল ২৫, ২০১৯

ডাকসুঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের বার্ষিক প্রীতি সম্মিলনী অনুষ্ঠানে সংগঠনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে অশোভন আচরণের অভিযোগ উঠেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাংস্কৃতিক সম্পাদক আসিফ তালুকদারের বিরুদ্ধে। বুধবার (২৪ এপ্রিল) বিকালে সংগঠনটির সভাপতি আমিরুল ইসলাম এবং সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান এক বিজ্ঞপ্তিতে এ অভিযোগের কথা জানিয়েছেন। তবে তিনি এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন আসিফ তালুকদার দাবি করেছেন, টিএসসিতে কোনও শিক্ষার্থীকে প্রবেশ করতে না দেওয়ায় ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা আমাকে জানালে আমি তাদের অধিকার নিয়ে কথা বলতে যাই।

অভিযোগপত্রে উল্লেখ করা হয়, সকল নিয়ম-নীতি মেনে গত ২০ এপ্রিল বৃহস্পতিবার ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশন বার্ষিক প্রীতি সম্মিলনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সন্ধ্যা সোয়া ৬ টার দিকে অনুষ্ঠান শুরু হলে ডাকসুর সাংস্কৃতিক সম্পাদক দলবল নিয়ে টিএসসির গেইটে আসেন এবং অনুষ্ঠান পণ্ড করার অপচেষ্টা চালান। এ সময় তিনি কর্মকর্তা এবং বিএনসিসির সদস্যদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন। গেইটে কর্তব্যরত বিএনসিসি কর্মী ও স্বেচ্ছাসেবকদের সরিয়ে দিয়ে মূল গেইট খুলে দেন তিনি। ফলে বহিরাগতরা ভেতরে প্রবেশ করে।

এর আগে এ ঘটনার বিচার এবং প্রতিবাদ জানিয়ে ডাকসুর সভাপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের কাছে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন সংগঠনটির শীর্ষ দুই নেতা।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ডাকসুর সাংস্কৃতিক সম্পাদক আসিফ তালুকদার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন অ্যালামনাই এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগঠন টিএসসিতে তাদের প্রোগ্রাম করে। অনুষ্ঠান চলাকালে আয়োজকরা টিএসসিতে কোনও শিক্ষার্থীকে প্রবেশ করতে দেয় না। এই নিয়ে শিক্ষার্থীরা ক্ষুব্ধ। বিষয়টি শিক্ষার্থীরা আমাকে জানালে আমি তাদের অধিকার নিয়ে কথা বলতে যাই। আমি শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধি, তাই তারা বিষয়টি আমাকে জানায়। পরে আমি গিয়ে গেইট খুলে দিয়েছি। অনুষ্ঠানের আগের দিন অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের সঙ্গে আমার এ বিষয়ে কথা হয়। তখন তারা আমার সহযোগিতাও চেয়েছে, কিন্তু আমি বলেছি শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচয়পত্র দেখিয়ে ভেতরে প্রবেশ করতে দিতে হবে। তারা আমার প্রস্তাবে রাজিও হয়েছে। কিন্তু অনুষ্ঠানের সময় তারা শিক্ষার্থীদের প্রবেশে বাধা দিলে বিষয়টি জানতে পেরে আমি শিক্ষার্থী প্রতিনিধি হিসেবে পদক্ষেপ নিয়েছি। তবে, তাদের সঙ্গে অশোভন আচরণের প্রশ্নই উঠে না।’

 

/এসএসএ/এএ/

লাইভ

টপ