ঢাবিতে মার খেলো ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতরা

Send
ঢাবি প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ২১:৪৯, মে ১৩, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:৪৭, মে ১৩, ২০১৯

মধুর ক্যান্টিনে ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত অংশ সংবাদ সম্মেলন করতে চাইলে তাদের ওপর হামলা চালায় পদভুক্ত অংশ

৩০১ সদস্যবিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটিকে বিতর্কিত ও অবৈধ আখ্যা দিয়ে বিক্ষোভ করেছেন ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতরা। একপর্যায়ে পূর্ণাঙ্গ কমিটিকে অবৈধ ঘোষণা দিয়ে সংবাদ সম্মেলন করতে গেলে  তাদের ওপর হামলা চালায় ছাত্রলীগের কমিটিভুক্ত অংশের নেতা-কর্মীরা।

সোমবার (১৩ মে) রাত আটটার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে এ ঘটনা ঘটে।

এ হামলায় ছাত্রলীগের হল কমিটির সাবেক নেতাসহ কমপক্ষে ৭ জন আহত হয়েছেন বলে দাবি করেছেন ভুক্তভোগীরা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সোমবার বিকালে পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় বিক্ষোভ শুরু করেন ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা। বিক্ষোভের একপর্যায়ে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে ঘোষিক কমিটিকে ‘অবৈধ’ আখ্যা দিয়ে মধুর ক্যান্টিনে সংবাদ সম্মেলন করতে যান পদবঞ্চিত এসব নেতাকর্মীরা।  জানা গেছে, পদবঞ্চিত এসব নেতাকর্মী সাবেক সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইনের অনুসারী।

প্রত্যক্ষদর্শীরা আরও জানান, মধুর ক্যান্টিনে আগে থেকেই অবস্থান করছিলেন সদ্য পদপ্রাপ্ত নেতাকর্মীরা। এর ফলে সেখানে দু’পক্ষ মুখোমুখি অবস্থান নিলে উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। এ অবস্থায় ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিকে ‘অবৈধ’ ঘোষণা করে সংবাদ সম্মেলন শুরু করতে গেলে পদপ্রাপ্ত নেতাকর্মীরা এর পাল্টা হিসেবে মুহুর্মূহু স্লোগান দিতে থাকে। ফলে সংবাদ সম্মেলন শুরু করতে বাধা পায় প্রতিপক্ষ।

 মধুর ক্যান্টিনে পদভুক্তদের মারধরে আহত ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতরা

ঘটনাস্থলে থাকা নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ছাত্রলীগ নেতা জানান, এ সময় পদপ্রাপ্তদের কেউ একজন সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসাইনকে শিবির বলে আখ্যায়িত করেন। এটা শুনে জাকিরের অনুসারীরা সংবাদ সম্মেলন রেখে দাঁড়িয়ে এই কথার প্রতিবাদ জানান। এরপর দুই পক্ষ মুখোমুখি থেকে হাতাহাতিতে জড়ায়। এসময় কমিটিভুক্ত অংশ পদবঞ্চিতদের সংবাদ সম্মেলনের ব্যানার ছিঁড়ে ফেললে দুই গ্রুপের হাতাহাতি ছড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে উভয় গ্রুপ একে অন্যের দিকে চেয়ার ছুঁড়ে মারতে থাকে। এতে পদবঞ্চিত দশ নেতাকর্মী আহত হন।

আহত এক পদবঞ্চিত ছাত্রলীগ নেতা

আহতরা হলেন ছাত্রলীগের সাবেক উপ-অর্থ সম্পাদক ও ডাকসুর সদস্য তিলোত্তমা শিকদার, গত কমিটির প্রচার সম্পাদক সাঈফ বাবু, ডাকসুর ক্রীড়া সম্পাদক তানভীর ভুঁইয়া শাকিল, ডাকসুর সদস্য ও কুয়েত মৈত্রী হল ছাত্রলীগের সভাপতি ফরিদা পারভীন, সাধারণ সম্পাদক শ্রাবণী শায়লা, ডাকসুর কমনরুম ও ক্যাফেটেরিয়া সম্পাদক ও রোকেয়া হল ছাত্রলীগের সভাপতি বিএম লিপি আক্তার। এসময় চেয়ারের আঘাতে রোকেয়া হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শ্রাবণী দিশার মাথা ফেটে যায়। আহতরা সবাই ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন এবং সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীকে একাধিকবার ফোন দিলেও তারা ফোন রিসিভ করেননি।

উল্লেখ্য, আজ সোমবার (১৩ মে) বিকালে ছাত্রলীগের ৩০১ সদস্যবিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ  কমিটি ঘোষণা করা হয়। 

 

আরও পড়ুন:
পূর্ণাঙ্গ হলো ছাত্রলীগের কমিটি

ছাত্রলীগে ‘পদোন্নতি’ পেলেন ঢাবি ভিসি’র ছেলে

 

/এসআইআর/টিএন/

লাইভ

টপ