ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির বিতর্কিত ৯৯ নেতার তালিকা প্রকাশ

Send
ঢাবি প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৫:০৪, মে ১৬, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৬:৫৬, মে ১৭, ২০১৯

ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের সংবাদ সম্মেলনপূর্ণাঙ্গ কমিটিতে ১৭ জন নয়, ৯৯ জন বিতর্কিত ব্যক্তি রয়েছে বলে দাবি করেছেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। বৃহস্পতিবার (১৬ মে) দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যানটিনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে থাকা বিতর্কিত ৯৯ জনের নামের তালিকা প্রকাশ করেন তারা। ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত এবং কাঙ্ক্ষিত পদ না পেয়ে নাখোশ নেতাকর্মীরা তালিকায় থাকা নেতাকর্মীদের কমিটি থেকে বাদ দিয়ে যোগ্যদের অন্তর্ভুক্ত করার দাবি জানান।

সংবাদ সম্মেলনে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর মাদক ব্যবসায় জড়িত থাকার প্রমাণ রয়েছে বলেও দাবি করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে কবি জসীমউদদীন হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাহেদ খান বলেন, `কমিটির বিষয়ে আমরা ৪৮ ঘণ্টার সময় বেঁধে দিয়েছিলাম। তবে আমাদের যৌক্তিক দাবির প্রতি সাড়া দিয়ে প্রধানমন্ত্রী ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে ডেকে ঘোষিত কমিটি থেকে বিতর্কিতদের সরিয়ে যোগ্যদের স্থান করে দেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন। সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক গণমাধ্যমে ১৭ জনের নাম প্রকাশ করে আমাদের আন্দোলন যে যৌক্তিক তা-ই প্রমাণ করেছেন। আমাকে যদি কমিটিতে না রাখা হয়, তাহলে এতে কোনও দুঃখ নেই। তবে বিতর্কিতরা যখন ছাত্রলীগে প্রবেশ করবে তখন তারা সংগঠনকে বিতর্কিত করবে।'

তিনি আরও বলেন, `ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী বলেছেন, যারা আন্দোলন করেছেন তাদের বিরুদ্ধে তিনি ব্যবস্থা নেবেন। কিন্তু আমরা তার কাছে বিনয়ের সঙ্গে জানতে চাই, যারা আমাদের বোনের ওপর হামলা করেছে তাদের বিরুদ্ধে তিনি কী ব্যবস্থা নিয়েছেন? আপনারা গতকাল রাতে সংবাদ সম্মেলন করে প্রমাণ করেছেন আমাদের আন্দোলন যৌক্তিক ছিল। আপনারা ১৭ জনের তালিকা গণমাধ্যমে দিতে বাধ্য হয়েছেন। আমাদের আন্দোলন যদি অযৌক্তিক হতো তাহলে আপনারা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিতে যেতেন। কিন্তু শ্রদ্ধা না জানিয়ে আপনারা স্বীকার করেছেন যে একটি বিতর্কিত কমিটি দিয়েছেন।'

প্রধানমন্ত্রী তাদের শেষ আশ্রয়স্থল মন্তব্য করে তিনি আরও বলেন, ‘আপনার কাছে আমরা অনুরোধ জানাবো, সংস্কার করার পরে যেন কমিটিতে আর বিতর্কিত কেউ স্থান না পায়। পরে যে কমিটি পুbর্গঠন করা হবে, তা যেন বানরের রুটি ভাগ করার মতো না হয়। ছাত্রলীগের ত্যাগীরা বঞ্চিত হবে, এই মতাদর্শে আমরা বিশ্বাস করতে চাই না।'

সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা আরও বলেন, হামলার সুষ্ঠু তদন্তে যে কমিটি গঠন করা হয়েছে তারা এখনও আমাদের সঙ্গে কোনও যোগাযোগ করেনি। এর মাধ্যমে ছাত্রলীগের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক হামলাকে বৈধতা দিয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন গত কমিটির প্রচার সম্পাদক সাঈফ বাবু, কর্মসূচি ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক রাকিব হোসেন, সুফিয়া কামাল হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ইফফাত জাহান এশা, ডাকসুর সদস্য তিলোত্তমা সিকদার, তানভীর হাসান সৈকত প্রমুখ।

ছাত্রলীগের বিতর্কিত ৯৯ নেতা যারা

সহসভাপতি পদে বিতর্কিতরা হলেন—তৌহিদুর রহমান, মাহমুদুল হাসান, সৃজন ভূঁইয়া, তৌহিদুর রহমান, কামাল খান, আবু সাঈদ শাহজালাল, খালিদ হাসান, আমিনুল ইসলাম, রুহুল আমিন, সোহানী হাসান, মাহমুদুল হাসান, এস এম হাসান আতিক, সুরঞ্জন ঘোষ, জিয়ান আল রশিদ, সোহেল রানা, মুনমুন নাহার, তরিকুল ইসলাম ও রাকিব উদ্দীন, তানজিল ভূইয়া তানভীর, রেজাউল করিম, আরেফিন সিদ্দিক, আতিকুর রহমান খান, বরকত হোসেন হাওলাদার, আবু সালমান প্রধান, শাহরিয়ার কবির, ফুয়াদ রহমান খান, সাদিক খান, তৌহিদুল ইসলাম চৌধুরী, এস এম তৌফিকুল হাসান। 

যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে— মো. শাকিল ভূইয়া, প্রদীপ চৌধুরী, মোরশেদুল হাসান। সাংগঠনিক সম্পাদক ফেরদৌস আলম, উপ-প্রচার সম্পাদক সিজাদ আরেফিন শাওন, উপদফতর সম্পাদক মাহমুদ আব্দুল্লাহ বিন মুন্সি, উপগ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক সৌরভ নাথ, সংস্কৃতিবিষয়ক উপসম্পাদক আফরিন লাবণী, উপআন্তর্জাতিক সম্পাদক ফুয়াদ হাসান, উপপাঠাগার সম্পাদক রুশী চৌধুরী, ধর্মবিষয়ক সম্পাদক তাজ উদ্দিন, গণশিক্ষাবিষয়ক উপসম্পাদক মনিরুজ্জামান ত্রাণ ও দুর্যোগবিষয়ক উপসম্পাদক সালেকুর রহমান, স্বাস্থ্য ও চিকিৎসাসেবা বিষয়ক উপসম্পাদক ডা. শাহজালাল, গণযোগাযোগ ও উন্নয়নবিষয়ক উপসম্পাদক সালাউদ্দিন জসীম ও সুশোভন, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়বিষয়ক সম্পাদক আসিফ ইকবাল, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়বিষয়ক উপসম্পাদক মো. তুষার, ও রাকিবুল ইসলাম।

উপআপ্যায়ন সম্পাদক শাহরিয়ার মাহমুদ, মানবসম্পদ উন্নয়নবিষয়ক উপসম্পাদক হিরণ ভূইয়া, কৃষি শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক এস এম মাকসুদুর রহমান, কর্মসংস্থানবিষয়ক উপসম্পাদক অভিমন্যু বিশ্বাস, সহসম্পাদক জাফর আহমেদ, তানভীর আব্দুল্লাহ, সামিহা সরকার, ফারজানা ইসলাম, তামান্না তাসনিম, মেহেদী হাসান, আঞ্জুমান আরা, আসিফ রায়হান ও শফিকুল ইসলাম শেখ আরজু।

সদস্য ফয়সাল করিম দাউদ খান, কর্মসংস্থানবিষয়ক উপসম্পাদক আল ইমরান, আন্তর্জাতিকবিষয়ক উপসম্পাদক ওয়াহিদুজ্জামান, সহসম্পাদক সোহেল রানা, মানবসম্পদবিষয়ক উপসম্পাদক বেলাল, প্রশিক্ষণবিষয়ক উপসম্পাদক মেশকাত হোসেন, সহসভাপতি শহিদুল ইসলাম, সহসভাপতি ফরহাদ হোসেন, সহসভাপতি তানজীদুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক সোহানুর রহমান, উপপ্রচার সম্পাদক আরিফ শেখ, ক্রীড়াবিষয়ক উপসম্পাদক বায়েজিদ কোতোয়াল, উপঅর্থ সম্পাদক মহসিন খন্দকার, আন্তর্জাতিক সম্পাদক রাকিনুল হক চৌধুরী, সহসম্পাদক রনি চৌধুরী, সহসভাপতি এম সাজ্জাদ হোসেন, আন্তর্জাতিকবিষয়ক উপসম্পাদক এস এম মাহবুবুর রহমান, সহসম্পাদক ওমর ফারুখ, সহসভাপতি আলিমুল হক, অর্থসম্পাদক মো. রাকিব হোসেন, স্বাস্থ্য ও চিকিৎসাসেবাবিষয়ক উপসম্পাদক শফিউল ইসলাম, সহসভাপতি মাজহারুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক নাজিম উদ্দিন, সহসম্পাদক রেজাউল করিম, ত্রাণ ও দুর্যোগবিষয়ক উপসম্পাদক ফেরদৌস শাহরিয়ার, উপ-প্রচার সম্পাদক নিলায়ন বাপ্পী, উপদফতর সম্পাদক মোমিন শাহরিয়ার, নাট্য ও বিতর্কবিষয়ক উপসম্পাদক মাজহারুল কবির এবং গণযোগাযোগ ও উন্নয়নবিষয়ক উপসম্পাদক নাজমুল হুদা। 

/এসআইআর/আইএ/টিটি/এমওএফ/

লাইভ

টপ