ঝড়ে বায়তুল মোকাররমের প্যান্ডেল ভেঙে মৃত ১, বাড্ডায় দেয়াল ধসে ২

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৯:৫৭, মে ১৭, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:৫০, মে ১৭, ২০১৯

ভেঙে পড়া প্যান্ডেল

রাজধানীতে হঠাৎ ঝড়-বৃষ্টিতে বায়তুল মোকাররম মসজিদের দক্ষিণ গেটের প্যান্ডেল ভেঙে একজনের মৃত্যু ও ১৫ জন আহত হয়েছেন। এদিকে, বাড্ডায় একটি ভবনের দেয়াল ধসে মারা গেছেন দুই জন। এই ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও একজন।  শুক্রবার (১৭ মে) সন্ধ্যায় এসব ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে উদ্ধার কাজ চালাচ্ছে। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) বাড্ডা জোনের সহকারী কমিশনার (এসি) এলিন চৌধুরী ও ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক মো. বাচ্চু মিয়া এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। 

বায়তুল মোকাররমের প্যান্ডেল ভাঙার ঘটনায় মৃত ব্যক্তির নাম মো. শফিকুল ইসলাম (৩৮)। তার গ্রামের বাড়ি লালমনিরহাটের আদিতমারী। বর্তমানে ডেমরার পোস্তগোলায় থাকতেন। তিনি টায়ার কারখানায় কাজ করতেন। আহতরা হচ্ছেন— পুলিশের সিটিএসবি’র এসআই শরিফুল (৩৬), বিপ্লব (৩৪), মনির (৩৫), তারেক (৩৫), জানে আলম (২৫), শাকিল (২৩), মাসুদ (৩২), সজিব (২৮), আউয়াল (৩০), আলাল (৩৫), আরিফুল (২৫), আমানউল্লাহ (২৫), রফিউজামান (২৭)-সহ ১৬ জন।

বাড্ডায় দেয়াল ধসে যারা মারা গেছেন, তারা হলেন বুলবুল (৩০) ও তপন (২৮)। বুলবুল বিশ্বাস (৩০) বাসের টিকিট চেকার হিসেবে কাজ করতেন। তার পিতার নাম  আব্দুল রাজ্জাক বিশ্বাস। গ্রামের বাড়ি নড়াইল জেলার নরাগাথী থানা এলাকায়। নিহত আরেকজন হলেন তপন (২৮)। তিনি চায়ের দোকানের কর্মচারী। তার গ্রামের বাড়ি নীলফামারী জেলার সোনাপুরী থানা এলাকায়। 

ডিএমপির বাড্ডা জোনের সহকারী কমিশনার (এসি) এলিন চৌধুরী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘ঝড়-বৃষ্টিতে বাড্ডা প্রাণ আরএফএল এর ভবনের পাশেই দেয়াল ধসে পড়ে ৩ জন আহত হয়। এরমধ্যে একজনের মৃত্যু হয়েছে। বাকি দুজনকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বাড্ডা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. রফিকুল ইসলাম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘দুজনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখাতে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।’

ঢাকা মেডিক্যালে আহতদের একজন

এদিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. বাচ্চু মিয়া বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘বায়তুল মোকাররম মসজিদে আহত ১৬ জনের মধ্যে শফিকুল (৩৮) নামে একজন মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া বাড্ডায় দেয়াল ধসের ঘটনায় নিহত হয়েছেন দুইজন। ১৬ জন বর্তমানে ঢাকা মেডিক্যালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পরিচালক (মসজিদ ও মার্কেট বিভাগ) মুহাম্মদ মহীউদ্দিন মজুমদার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘শুক্রবার মসজিদে প্রচুর লোক হয়। এরমধ্যে রমজান মাস, তাই মসজিদের দক্ষিণ গেটে মুসল্লিদের নামাজের জন্য একটি প্যান্ডেল করা হয়। আজ মাগরিবের নামাজের সময় প্রবল ঝড়ে প্যান্ডেলটি ভেঙে পড়ে যায়। তখন সেখানে ১০০ থেকে ১৫০ জনের মতো মুসল্লি ছিলেন। আমরা ১৪-১৫ জন মুসল্লিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছি। এরমধ্যে ২-৩ জনের অবস্থা গুরুতর দেখেছি।’

ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স সদর দফতরের কন্ট্রোল রুমের ডিউটি অফিসার মো. রাসেল সিকদার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘বায়তুল মোকাররম মসজিদের দক্ষিণ গেটে নামাজের জন্য তৈরি একটি প্যান্ডেল ঝড়ো বাতাসে ভেঙে পড়ে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের দুই ইউনিট ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে।’

ঢাকা মেডিক্যালে আহতদের একজন

পল্টন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মাহমুদুল হাসান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘ঝড়ে মসজিদের দক্ষিণ গেটের প্যান্ডেল ভেঙে পড়ে। এ ঘটনায় বেশ কয়েকজন মুসল্লি আহত হয়েছেন। ফায়ার সার্ভিস উদ্ধার কাজ চালাচ্ছে। তাদের সঙ্গে পল্টন থানা পুলিশও কাজ করছে।

/এসজেএ/এআইবি/আইএ/এএইচ/ এমওএফ/

লাইভ

টপ