‘আদালতের মর্যাদা রক্ষার্থেই বিচারাধীন বিষয়ে সংবাদ পরিবেশন না করার বিজ্ঞপ্তি’

Send
বাংলা ট্রিবিউন ডেস্ক
প্রকাশিত : ০২:৪৪, মে ২২, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০৩:২৭, মে ২২, ২০১৯

সুপ্রিম কোর্টের বিজ্ঞপ্তিসুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট তানজিমুল আলম  বলেছেন, ‘বিচারাধীন বিষয় নিয়ে সংবাদ পরিবেশন সংক্রান্ত বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টের দেওয়া বিজ্ঞপ্তি নিয়ে অনেকের মধ্যে কনফিউশন তৈরি হয়েছে। অনেকেই ভাবছেন, এখানে ঢালাও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। আমার মনে হয় আজকের বিজ্ঞপ্তিটি এ ধরনের বিতর্কের অনেকটা অবসান করেছে। হাইকোর্টের নির্দেশের মূল উদ্দেশ্য, মানুষের মনে কোর্ট কিংবা কোর্টের প্রক্রিয়া বা কোর্টের মর্যাদা সম্পর্কে কোনও ধরনের সন্দেহের সৃষ্টি কিংবা কোর্টের মর্যাদাহানি হয় সে ধরনের সংবাদ পরিবেশন না করা।’

বিচারাধীন বিষয়ে সংবাদ পরিবেশন-সংক্রান্ত সুপ্রিম কোর্টের দেওয়া দুটি বিজ্ঞপ্তি প্রসঙ্গে মঙ্গলবার (২১ মে) বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল একাত্তরের একটি অনুষ্ঠানে সঞ্চালকের এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি এসব কথা বলেন।

এ প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, ‘আদালত অবমাননা করলে শাস্তির বিধান রয়েছে তা আমরা জানি। এই পরিপ্রেক্ষিতে এই বিজ্ঞপ্তির উদ্দেশ্য কী? আদালত যেটা মনে করে, আদালত অবমাননার জন্য আপনি যে-কারও বিরুদ্ধে অভিযোগ করতে পারেন। সেটা তো আসলে সমাধান নয়। আদালত অবমাননার শাস্তি দেওয়াটা মুখ্য উদ্দেশ্য নয়। মুখ্য উদ্দেশ্য, সবাইকে এমন কর্মকাণ্ড থেকে বিরত রাখা যাতে সাধারণ জনগণের সামনে আদালতের মর্যাদাহানি না হয়।’ 

‘সুপ্রিম কোর্টের দেওয়া বিজ্ঞপ্তি সাংবাদিকদেরকে কোনওভাবে মতামত প্রকাশে বাধা সৃষ্টি করছে সেভাবে দেখা ঠিক হবে না। বিজ্ঞপ্তিটি একটি জিনিস নিশ্চিত করেছে, আদালত সব সময় সাংবাদিকদের রিপোর্ট বা মতামত প্রকাশে বিশ্বাস করে। কোর্ট হয়তো লক্ষ করছে, রিপোর্ট করতে গিয়ে এমন ধরনের কনটেন্ট ব্যবহার করা হচ্ছে কিংবা রিপোর্ট করতে গিয়ে অযত্ন বা অবহেলার কারণে কোর্টের মনে হয়েছে যে, এ ধরনের সন্দেহের অবকাশ রয়ে গেছে যে আদালতের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হওয়ার একটা সম্ভাবনা আছে।’

আদালত কোন কোন বিষয়ে ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হতে পারে বলে মনে করে? এ ধরনের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আদালত কোন কোন বিষয়ে ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হতে পারে বলে মনে করে সে বিষয়ে অনেকগুলো জাজমেন্ট বিভিন্ন দেশের মতো আমাদের দেশেও দেওয়া আছে।কিন্তু মানুষের যে প্রপাগান্ডা সেটার লিস্ট করে “এই এই কথা বললে আদালতের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হবে” এভাবে বলা খুব মুশকিল। এ কারণে মুশকিল যে, এ বিষয়ে কোনও লিস্ট করা যায় না। বিষয়বস্তু অনুযায়ী আপনার মন্তব্যে মানুষের মনে কী প্রভাব পড়বে সেটার ওপরে এটি নির্ভর করে। সে কারণে আমাদের এটা মনে করা উচিত হবে না, আমরা একটা লম্বা লিস্ট পেলাম– এই এই কথা বললে আদালতের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হতে পারে। সুতরাং আমরা তা বলবো না। বিষয়টি এমন নয়।’

প্রসঙ্গত, বিচারাধীন বিষয়ে সংবাদ পরিবেশন না করার বিজ্ঞপ্তির পর পুনরায় নিজেদের বক্তব্য স্পষ্ট করেছেন সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন। প্রশাসনের নতুন বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘আদালতের ভাবমূর্তি ও মর্যাদা ক্ষুণ্ন হয় এবং বিচারকাজ প্রভাবিত করে, এমন সংবাদ পরিবেশন ও প্রচার প্রত্যাশিত নয়।’

মঙ্গলবার (২১ মে) সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল ড. মো. জাকির হোসেনের স্বাক্ষরিত এ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট সবসময় সংবাদপত্রের স্বাধীনতায় বিশ্বাসী। আদালতের ভাবমূর্তি ও মর্যাদা ক্ষুণ্ন হয় এবং বিচারকাজ প্রভাবিত হয়, এমন সংবাদ পরিবেশন ও প্রচার প্রত্যাশিত নয়। এ অবস্থায় গত ১৬ মে জারি করা বিজ্ঞপ্তিটি স্পষ্ট করা হলো এবং বিষয়টি সংশ্লিষ্ট সবাইকে অবহিত করা হলো।’

আরও পড়ুন:

‘বিচারাধীন মামলার রিপোর্টিংয়ে বাধা নেই, ব্যক্তিগত মতামতে আপত্তি আছে’

 

/এমএএ/

লাইভ

টপ