ওয়াসায় দুদকের অভিযান

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৯:২৭, মে ২২, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪৩, মে ২৩, ২০১৯



অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগে রাজধানীর উত্তরায় ওয়াসার মডস জোন-৯-এ অভিযান চালিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। আরেক অভিযানে কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আর্থিক অনিয়ম উদঘাটিত হয়েছে। এছাড়া, বরিশালের উজিরপুরে নদী দখলের অভিযোগেও অভিযান চালায় দুদক।
বুধবার (২২ মে) দুদক উপ-পরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য জানান, উত্তরায় ওয়াসার মডস জোন-৯-এ দুদক সহকারী পরিচালক শেখ গোলাম মাওলার নেতৃত্বে অভিযান পরিচালিত হয়। অভিযানে পুলিশসহ ৫ সদস্যের এনফোর্সমেন্ট টিম অংশ নেয়।
দুদক টিম নির্বাহী প্রকৌশলীর দফতরে গ্রাহকদের আসা অভিযোগ রেজিস্টার যাচাই করে। কিছু গ্রাহকের সঙ্গে মোবাইলে কথা বলে সমস্যা জানতে চায়। অভিযানের সময় ওয়াসার পানি বহনকারী ট্রাকের দুই জন কর্মচারীর বিরুদ্ধে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ পায় দুদক টিম। এছাড়া, দুদক টিম উত্তরা ১০ নম্বর সেক্টরের ১৮ নম্বর রোডের পানির লাইন যাচাই করে অবৈধ সংযোগের সন্ধান পায়। ওয়াসা কর্তৃপক্ষ দুদকের উপস্থিতিতে সেই সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে। উত্তরা ১২ নম্বর সেক্টরেও ৬টি অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়।
কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ব্যাপক আর্থিক অনিয়মের তথ্যপ্রমাণ পেয়েছে দুদক। দুদক অভিযোগ কেন্দ্রে (হটলাইন ‘১০৬’ নম্বর) অভিযোগ পেয়ে দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয় চট্টগ্রাম-২-এর একটি টিম সেখানে অভিযান চালায়। দুদক টিম সরেজমিনে দেখতে পায়, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের তিনটি গাছের টেন্ডার দেখিয়ে সবগুলো বিক্রি করে টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জেনারেটর অকেজো অবস্থায় পড়ে আছে। এই জেনারেটর মেরামতের কথা বলে ২০১৮ সালে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ পায় দুদক।
বরিশালের উজিরপুরে নদী দখলের বিরুদ্ধে অভিযান চালায় দুদক। দুদক টিম স্থানীয় ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকৌশলীকে সঙ্গে নিয়ে ঘটনাস্থলে যায়। সেখানে দেখতে পায়, গৌরনদী-ধামুড়া-মিরেরহাটের ওপর দিয়ে প্রবাহিত সন্ধ্যা নদীর ধামুড়া পয়েন্টে প্রায় ২০০ অবৈধ স্থাপনা গড়ে উঠেছে। এসব স্থাপনা উচ্ছেদের নির্দেশ দিয়েছে দুদক।


/ডিএস/এইচআই/এপিএইচ/

লাইভ

টপ