‘আমাদের প্রাইভেট ইউনিভার্সিটিতে পিএইচডির সুবিধা নেই’

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৮:৪০, মে ২৭, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:০৮, মে ২৭, ২০১৯

5ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশের (ইউল্যাব) অধ্যাপক সলিমুল্লাহ খান বলেছেন, ‘আমাদের প্রাইভেট ইউনিভার্সিটির কোনওটিতেই পিএইচডি, এমফিল করার সুবিধা নেই। বিশ্ববিদ্যালয়ে তো গবেষণা নেই। তাহলে যে গবেষণার কৃতিত্ব দেখানো হচ্ছে, ৫০ নম্বর দেখানো হচ্ছে ফ্যাকাল্টির ওপরে, তারা কয়জন পিএইচডি? পিএইচডিকে অবজেক্টিভ ক্ষেত্র ধরতে হবে। কিন্তু পিএইচডি হলেই যে একজন ভালো শিক্ষক হবে এটির কোনও নিশ্চয়তা নেই। সুতরাং এখানে অনেকগুলো অনুমান আছে। অনেক এমএ, বিএ করা শিক্ষক পিএইচডির চেয়ে ভালো। অক্সফোর্ড, ক্যাম্ব্রিজে পিএইচডি ছিল না। বিশ্বসেরা অধ্যাপকরা পিএইচডি ছাড়াই ছিলেন। তাই এগুলো হচ্ছে আমাদের শিক্ষাব্যবস্থাকে আমেরিকাকরণ যে, পিএইচডি ডিগ্রিওয়ালাকে বেশি মূল্য দিতে হবে। এটা কিন্তু সত্য না। আমাদের দেশে যেহেতু শিক্ষকদের শিক্ষা ছুটি নেই, তারা গবেষণা করবেন কীভাবে? গবেষণার জন্য যে পরিমাণ টাকা দেওয়া হচ্ছে তা লজ্জাজনক।’

দেশের শীর্ষস্থানীয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল বাংলা ট্রিবিউনের আয়োজনে ‘বিশ্ববিদ্যালয় র‌্যাংকিং’  শীর্ষক বৈঠকিতে তিনি এসব কথা বলেন। সোমবার (২৭ মে) বিকালে শুরু হয়েছে বাংলা ট্রিবিউনের সাপ্তাহিক এই আয়োজন।

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনায় অর্থের প্রয়োজনীয়তা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘প্রাইভেট ইউনিভার্সিটি চালু করেছিলেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, তিনি চালাতে পারেননি। তাকে সেটা ভারত সরকারের কাছে সমর্পণ করতে হয়েছে। তিনি পারেনি কারণ, যারা দান খয়রাত করতো, তাদের খয়রাত নিয়ে এটি চলছিল। কিন্তু এরপর সরকারি খয়রাতে আর চলেনি। এখন যুগ বদলেছে, আমরা প্রাইভেট ইউনিভার্সিটি চালাচ্ছি শিক্ষার্থীদের পয়সা দিয়ে। সুতরাং বাজারে প্রতিযোগিতা করতেই হবে। “আমারটা ভালো” এটা আপনাকে বলতেই হবে। এখন আমরা যে সংস্থার মাধ্যমে র‌্যাংকিং করছি, তাদের কোনও “কনফ্লিক্ট অব ইন্টারেস্ট” আছে কিনা, সেটি প্রকাশ করতে হয়। এদিক থেকে এগুলো পরিষ্কার নয় এখনও।’

সাংবাদিক মুন্নী সাহার সঞ্চালনায় আজকের বৈঠকিতে আরও অংশ নিয়েছেন– বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য ইউসুফ মাহবুবুল ইসলাম, ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক তানবীর আহমেদ চৌধুরী, গবেষণা প্রতিষ্ঠান ওআরজি কোয়েস্টের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মনজুরুল হক, ইনস্টিটিউট অব ইনফরমেটিক্স অ্যান্ড ডেভেলপমেন্টের (আইআইডি) প্রধান নির্বাহী সাঈদ আহমেদ, ইংরেজি দৈনিক ঢাকা ট্রিবিউনের সম্পাদক জাফর সোবহান এবং বাংলা ট্রিবিউন সম্পাদক জুলফিকার রাসেল।

রাজধানীর পান্থপথে বাংলা ট্রিবিউন স্টুডিও থেকে এ বৈঠকি সরাসরি সম্প্রচার করে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল এটিএন নিউজ। পাশাপাশি বাংলা ট্রিবিউনের ফেসবুক ও হোমপেজে লাইভ দেখা গেছে এ আয়োজন। ইউল্যাবের সহযোগিতায় বৈঠকিটি আয়োজিত হয়েছে।

 

/এসও/এমএএ/

লাইভ

টপ