শ্যামপুরে বিকট শব্দে সড়কে বিস্ফোরণ, শিশুর মৃত্যু

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২১:২১, জুন ১১, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০২:৪২, জুন ১২, ২০১৯

শ্যামপুর থানা এলাকা

রাজধানীর শ্যামপুরের মুন্সীবাড়ির মোড় সড়কে হঠাৎ বিস্ফোরণে আবির (৬) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এই ঘটনায় শিশুটির মা-বোন ও এক পথচারীসহ আরও তিনজন আহত হয়েছেন। তাদের ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে, স্যুয়ারেজ লাইনে গ্যাস জমে বিস্ফোরণটি ঘটে। মঙ্গলবার (১১ জুন) সন্ধ্যা ৬ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

পথচারী ও স্থানীয়রা জানিয়েছেন, সন্ধ্যার দিকে মুন্সীবাড়ির মোড়টিতে  হঠাৎ বিকট শব্দে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে সড়কটিতে গর্তের সৃষ্টি হয়। ওই মুহূর্তে ঘটনাস্থলের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় বিস্ফোরণে গুরুতর আহত হয় আবির, তার মা সাথী আক্তার (৩০), বোন আদিবা (১১)। তাদের ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে চিকিৎসক আবিরকে মৃত ঘোষণা করেন। তবে বিস্ফোরণের উৎস সম্পর্কে জানাতে পারেননি আহতরা।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ বক্সের ইনচার্জ বাচ্চু মিয়া বাংলা ট্রিবিউনকে এই তথ্য জানান। তিনি বলেন, ‘আহতরা সবাই বিস্ফোরণের কথা বলছে। তবে তারা কেউ নিশ্চিত করে বলতে পারছে না, আসলে কিসের বিস্ফোরণ হয়েছে। আহতদের মধ্যে এক শিশু মারা গেছে।’

নিহত আবিরের বাবার নাম সজীব। তিনি সেলুন ব্যবসায়ী। রাজধানীর ধুপখোলায় বাবা মায়ের সঙ্গে থাকতো সে। আবিরের মা হাসপাতাল কর্মী ও ঢামেক ফাঁড়ি পুলিশকে জানিয়েছেন, দুই ছেলে-মেয়েকে নিয়ে জুরাইনের পাইপলেন এলাকায় বোনের বাসায় যাচ্ছিলেন তিনি। এ সময় তারা এই বিস্ফোরণের মধ্যে পড়েন। এতে তার ছেলে নিহত হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, বিস্ফোরণে আশেপাশের ঘরবাড়ি কেঁপে উঠে। মানুষের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। তবে সেখানে সন্ত্রাসী তৎপরতার কোনও আলামত তাৎক্ষণিকভাবে দেখতে পাওয়া যায়নি। এ ঘটনায় রুবেল নামে আরও এক ভ্যানচালক আহত হয়েছেন। তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। 

এলাকাবাসীর ধারণা, সুয়ারেজ লাইনে গ্যাস জমে এই বিস্ফোরণ হয়েছে। এ বিষয়ে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের নিয়ন্ত্রণ কক্ষের দায়িত্বরত অফিসার জহিরুল ইসলাম জানান, সুয়ারেজ লাইনে জমে থাকা বর্জ্যের গ্যাস বিস্ফোরিত হয়েছে। এ সময় একটি ম্যানহোলের কংক্রিটের ঢাকনা উড়ে পথচারীদের গায়ে পড়ে বিকট শব্দ হয়। এতেই পথচারীরা আহত হয়েছেন।

 

 

/এআইবি/এআরআর/ওআর/টিএন/

লাইভ

টপ