স্কুলছাত্র আদনান হত্যা মামলার অভিযোগপত্র গ্রহণ শুনানি হয়নি

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৩:১৪, জুন ১৩, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৩:১৮, জুন ১৩, ২০১৯

আদনান কবির রাজধানীর উত্তরায় স্কুলছাত্র আদনান কবির হত্যা মামলায় অভিযোগপত্র গ্রহণ শুনানি হয়নি। পরবর্তী অভিযোগপত্র গ্রহণ শুনানির জন্য ২২ জুলাই দিন ধার্য করেন আদালত। বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) মামলার বাদী কবির হোসেনের উপস্থিতিতে অভিযোগপত্র গ্রহণ শুনানি হওয়া কথা ছিল। তবে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতের বিচারক মোহাম্মদ দিদার হোসাইন আজ ছুটিতে থাকায় ভারপ্রাপ্ত বিচারক দেবব্রত বিশ্বাস পরবর্তী দিন ধার্য করেন। বাদী পক্ষের আইনজীবী জাহেদুল ইসলাম কোয়েল এ তথ্য নিশ্চিত করেন।
এর আগে গত ২৮ এপ্রিল অভিযোগপত্র গ্রহণের বিষয়ে শুনানির দিন ধার্য ছিল। কিন্তু ওই দিন
বাদী আদনানের বাবা কবির হোসেন অভিযোগপত্র ভালোভাবে দেখতে পারেননি বলে তার আইনজীবী অভিযোগপত্র গ্রহণ শুনানি পেছানোর জন্য সময়ের আবেদন করেন। এরপর বিচারক আবেদন মঞ্জুর করে ১৩ জুন দিন ধার্য করেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উত্তরা পশ্চিম থানার পুলিশ পরিদর্শক মুহাম্মদ আব্দুর রাজ্জাক ২৩ জনকে অভিযুক্ত ও ১২ জনকে অব্যাহতির আবেদন করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।
অভিযুক্তরা হলো, মারসাতুল রহমান রাব্বি (১৬), জাহিদুল ইসলাম জুইস (১৭), হাসিবুল হক শিশির (১৬), আল আমিন তুষার (১৫), রাজিন আহমেদ হৃদয় (১৭), ফকরুল ইসলাম ওরফে শ্রাবণ (১৫), শাকিল সরকার (১৭), করিম মিয়া (১৬), সাদ বিন সাত্তার ওরফে ডিস্কো সাদ (১৭), নাইমুর রহমান অনিক (১৯), শাহরিয়ার বিন সাত্তার ওরফে সেতু (২২), রবিউল ইসলাম ওরফে সিয়াম খান (১৮), আক্তারুজ্জামান ছোটন (১৯), রনি মৃধা (২০), মো. সোহাগ (১৯), বাহাউদ্দিন হাসান শাওন (১৯), স্বপন মন্ডল ওরফে পটলা বাবু (২৪) ,নুরে আলম (১৯),সাদাফ জাকির (১৬), মো. রায়হান ইসলাম জিহান (১৪), নাফিজ মো. আলম ওরফে ডন (১৭), খন্দকার মেহরাব হোসেন (১৫) ও সাফিন হোসাইন (১৬)। এদিকে অভিযুক্ত ২৩ জনের মধ্যে ১৪ জন অপ্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ায় তাদের বিচার কিশোর আদালত হবে বলে জানা যায়।
অভিযোগপত্র থেকে জানা গেছে, উঠতি বয়সীদের বিভিন্ন গ্রুপ- যেমন ডিসকো বয়েজ উত্তরা, নাইন স্টার গ্রুপ, সেভেন স্টার গ্রুপ, নাইন এমএম বয়েজ উত্তরা, বিগবস ইত্যাদি ফেসবুকে পেজ খুলে নিজেদের বিভিন্ন বিষয়ে তথ্য আদান-প্রদান করতো। গ্রুপের মধ্যে কেউ এক গ্রুপ থেকে অন্য গ্রুপে চলে যাওয়াকে কেন্দ্র করে কিংবা কোনও বকাঝকাকে কেন্দ্র করে ছোটখাটো ঝগড়া বা মারামারি হয়। পরবর্তীতে তাদের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি হলে তাদের একজনকে অন্য এলাকায় একা পেয়ে মারপিট করা হয়। এর জের ধরে আদনান খুন হয়।
প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের ৬ জানুয়ারি সন্ধ্যায় উত্তরার ১৩ নম্বর সেক্টরের ১৭ নম্বর রোডে ট্রাস্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র আদনানকে কুপিয়ে আহত করে প্রতিপক্ষ একটি গ্রুপ। উত্তরা লুবানা হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ওই ঘটনায় আদনানের বাবা কবির হোসেন উত্তরা পশ্চিম থানায় মামলা করেন।

আরও পড়ুন: ‘ডিসকো বয়েজ’ ও ‘নাইন স্টার’ গ্রুপের দ্বন্দ্বেই মৃত্যু আদনানের!

 

/টিএইচ/ওআর/

লাইভ

টপ