কাকরাইলে মা ও ছেলেকে হত্যা: পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণ ২৭ জুন

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৫:৫৭, জুন ১৩, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৬:০১, জুন ১৩, ২০১৯

মহানগর দায়রা জজ আদালত

রাজধানীর কাকরাইলে মা ও ছেলেকে গলা কেটে হত্যা ঘটনায় দায়ের করা মামলায় বাড়ির দারোয়ান আবু নোমানের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ করেছেন আদালত। এদিন এ সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ না হওয়ায় তা শেষ করতে আগামী ২৭ জুন দিন ধার্য করেছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজের বিচারক রবিউল আলম এ দিন ধার্য করেন। এ পর্যন্ত মামলাটিতে পাঁচজনের সাক্ষ্য নেওয়া হয়েছে।

মামলার আসামিরা হলেন নিহত শামসুন্নাহারের স্বামী আব্দুল করিম, করিমের দ্বিতীয় স্ত্রী শারমিন মুক্তা, মুক্তার ভাই আল-আমিন ওরফে জনি।

এর আগে ২০১৮ সালের ১৬ জুলাই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা রমনা থানার পরিদর্শক মো. আলী হোসেন ঢাকা মহানগর হাকিম খুরশীদ আলমের আদালতে এ অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, ২০১৭ সালের ১ নভেম্বর সন্ধ্যায় কাকরাইলের আঞ্জুমান মুফিদুল ইসলাম রোডের ৭৯/১ বাড়িতে শামসুন্নাহার (৪৫) ও তার ছেলে ‘ও’ লেভেল শিক্ষার্থী শাওনকে গলা কেটে হত্যা করা হয়। নিহতের স্বামী আবদুল করিম পুরান ঢাকার শ্যামবাজারের ব্যবসায়ী। তিনি আদা, রসুন ও পেঁয়াজ আমদানিকারক।

ওই ঘটনায় পরের দিন ২ নভেম্বর নিহত শামসুন্নাহারের ভাই আশরাফ আলী বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলায় নিহতের স্বামী আব্দুল করিম, করিমের দ্বিতীয় স্ত্রী শারমীন মুক্তা ও মুক্তার ভাই জনিসহ অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করা হয়।

                         

 

/টিএইচ/টিএন/

লাইভ

টপ