টঙ্গীর চুন্নু হত্যা মামলার আসামি মিন্টু গ্রেফতার

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ০১:৩২, জুন ১৪, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০১:৪৪, জুন ১৪, ২০১৯

আসামি মিন্টু মোল্লা

গাজীপুরের টঙ্গীর পূর্ব আরিচপুর এলাকায় চুন্নু ভূইয়া (৫৫) হত্যার ঘটনায় হওয়া মামলার আসামি মিন্টু মোল্লাকে (৩২) গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। বুধবার (১২ জুন) রাত পৌনে ৮টার দিকে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী থানার শনির আখড়া বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

আসামি মিন্টু মোল্লা নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ থানার রামদেবপুর গ্রামের আজিজ মোল্লার ছেলে। টঙ্গী পূর্ব থানার পূর্ব আরিচপুরের মধুমিতা হাউজ বিল্ডিংয়ে সে বসবাস করতো।

গত ৯ জুন রাত ১২টার দিকে টঙ্গীর পূর্ব আরিচপুরে ছুরি দিয়ে কুপিয়ে আতাউর রহমান খান জুয়েল (৬১) ও তার সম্বন্ধী চুন্নু ভূইয়াকে জখম করে মিন্টু মোল্লা। পরে আহত দুইজনকে টঙ্গী আহসান উল্লাহ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে চুন্নু ভূইয়াকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে আনা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় টঙ্গী পূর্ব থানায় একটি  হত্যা মামলা (নং-২৩) দায়ের করে নিহতের পরিবার।

র‌্যাব-১ এর অধিনায়ক (সিও) লে. কর্নেল মো. সারওয়ার-বিন-কাশেম বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, চুন্নু হত্যার ঘটনায় র‌্যাব-১ ছায়া তদন্ত করে। ঢাকা, ময়মনসিংহ, জামালপুরসহ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালানো হলেও আসামি মিন্টুকে পাওয়া যায়নি। পরে গোয়েন্দা নজরদারিতে পাওয়া তথ্যে হত্যাকাণ্ডের চারদিন পর বুধবার (১২ জুন) রাতে ঢাকার শনির আখড়া বাসস্ট্যান্ড থেকে মিন্টুকে গ্রেফতার করা হয়।

র‌্যাবের এই কর্মকর্তা বলেন, ‘জিজ্ঞাসাবাদে আসামি জানায়, গত ৯ জুন নিজ বাসা থেকে বের হয়ে শ্বশুরবাড়িতে যাচ্ছিল মিন্টু। এসময় মোবাইল ফোনে তার বন্ধুর সঙ্গে উচ্চস্বরে কথা বলছিল। আতাউর রহমানের বাড়ির সামনে গেলে তিনি মিন্টুকে মোবাইল ফোনে উচ্চস্বরে কথা বলতে নিষেধ করেন। এতে মিন্টু আতাউর রহমানকে গালিগালাজ করে। এরপর আতাউর রহমান তার বাড়িতে বেড়াতে আসা সম্বন্ধী চুন্নু ভূইয়াকে সঙ্গে নিয়ে বাসার নিচে রাস্তায় আসেন এবং গালিগালাজের কারণ জানতে চান। এসময় দুইপক্ষে ধাক্কাধাক্কি হয়। এর একপর্যায়ে মিন্টু প্যান্টের পকেটে থাকা ছুরি দিয়ে চুন্নু ভূইয়ার বুকে ও পিঠে এলোপাতাড়ি কোপ দেয়। পরে আতাউর রহমানকেও ছুরিকাঘাত করে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।’

 

/এসজেএ/এমএ/

লাইভ

টপ