ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে ওঠা সব অভিযোগের তদন্ত হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

Send
বাংলা ট্রিবিউন ডেস্ক
প্রকাশিত : ০২:০০, জুন ১৭, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০৮:২৭, জুন ১৭, ২০১৯

আসাদুজ্জামান খান কামাল (ছবি- অনলাইন থেকে নেওয়া)

ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির জবানবন্দির ভিডিও ধারণ ও তা ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ার ঘটনার পাশাপাশি তাকে আগুন দেওয়ার ঘটনায় সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনের বিরুদ্ধে ওঠা সব অভিযোগের তদন্ত শেষে আদালতে চার্জশিট (অভিযোগপত্র) দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। রবিবার (১৬ জুন) দিনগত রাতে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল একাত্তর টিভির অনুষ্ঠান ‘একাত্তর জার্নালে’ ভিডিও কলে সংযুক্ত হয়ে একথা বলেন তিনি।

‘একাত্তর জার্নালে’ ভিডিও কলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সংযুক্ত হওয়ার পর পরই অনুষ্ঠানের সঞ্চালক মিথিলা ফারজানা জানতে চান, ‘নুসরাত হত্যা মামলার চার্জশিটে ফেনীর সোনাগাজী থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেনকে আসামি করা হয়নি; তাকে আইসিটি আইনে দায়ের করা মামলায় আসামি করা হয়েছে এবং গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ব্যাপারটাকে আপনি কীভাবে দেখছেন, মাননীয় মন্ত্রী?’

এর জবাবে আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘নুসরাত হত্যার ঘটনায় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) যে তদন্ত করেছে তা সঠিক ও সুন্দরভাবে হয়েছে। নুসরাত হত্যায় পিবিআই যে তদন্ত করেছে সে অনুযায়ী সব আসামিকে ধরা হয়েছে। ওসির নামে আইসিটি আইনে মামলা হয়েছে এবং সে অনুযায়ী তাকে ধরা হয়েছে। এ মামলায় তার যে সংশ্লিষ্টতা, সে অনুযায়ী তার বিচার হবে। আমরা কাউকেই ছাড় দিচ্ছি না; সে ওসি হোক, আর যেই হোক।’

এপর্যায়ে মিথিলা ফারজানা প্রশ্ন রাখেন, ‘ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে মামলা হওয়ার পর তিনি ফেনী থেকে ঢাকা এলেন, এখান থেকে রংপুরে পোস্টিং হলেন। সেখান থেকে তিনি আবার মামলার কাজে ঢাকায় এলেন। এসব কীভাবে সম্ভব হলো? অর্থাৎ পরোয়ানা জারির পরও, তাকে সারেন্ডার করতে বলার পরও তিনি ঘুরছিলেন কী করে?’

জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘যখন তার নামে মামলা হয়েছে, চার্জশিট হয়েছে। এর পর পরই তাকে আমরা সারেন্ডার করতে বলেছি। সে তা না করে ঘুরছিল, তখন তাকে ধরা হয়েছে। পুলিশ তাকে শেষমেশ খুঁজে বের করেছে। আজ সকালেও আমি বলেছি, সে যেকোনও সময় আমাদের হাতে ধরা পড়বে; পুলিশ তাকে ধরে ফেলবে। পুলিশ তাই-ই করেছে।’

এরপর মিথিলা ফারজানা প্রশ্ন করেন, ‘ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে পিবিআই তদন্ত করেনি। তার বিরুদ্ধে আইসিটি আইনে মামলা হয়েছে। কিন্তু নুসরাত হত্যার ঘটনাকে তিনি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেছেন। এসব অভিযোগের তদন্ত হবে কিনা? এ ছাড়া, এ ঘটনায় ফেনীর পুলিশ সুপারের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন আছে। এসব প্রশ্নের ব্যাপারে তদন্ত হবে কিনা?

মন্ত্রী বলেন, ‘আপনাদের আশঙ্কার কোনও কারণ নেই। ওসির বিরুদ্ধে উঠা সব অভিযোগের তদন্ত শেষে চার্জশিট দাখিল হবে। তখন আপনারা দেখবেন, চুলচেরা বিশ্লেষণ করেই চার্জশিট যাবে; এখানে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।’

অনুষ্ঠানে বেসরকারি টিভি চ্যানেল এটিএন বাংলা-এর নিউজ এডিটর মানস ঘোষও প্রায় একই প্রশ্ন করেন। তিনি জানতে চান, ‘নুসরাতের ভিডিও করা, তা ছড়িয়ে দেওয়া ছাড়াও তার হত্যার ঘটনাকে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেওয়ারও অভিযোগ আছে ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে। এ অভিযোগের সত্যতা যাচাইবাছাই হবে কিনা?’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘অবশ্যই এসব অভিযোগেরও তদন্ত হবে। আমাদের দৃষ্টিতে যে ব্যাপারটি এসেছে, সে অনুযায়ী তার নামে মামলা হয়েছে। আমাদের তদন্ত কর্মকর্তারা এখন একটা চার্জশিট দিয়েছেন যারা হত্যাকাণ্ডে সরাসরি জড়িত তাদের নিয়ে। ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে অন্য যেসব অভিযোগ রয়েছে তারও তদন্ত হবে। আমি আশা করি, শিগগিরই সব ব্যাপার ক্লিয়ার হয়ে যাবে। তার নামেও একটি চার্জশিট যাবে।’

এপর্যায়ে অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট লীনা পারভীন জানতে চান, ‘নুসরাতের ভাই অভিযোগ করেছেন, নুসরাত হত্যায় ওসি মোয়াজ্জেম ছাড়াও আরও কয়েকজন পুলিশ সদস্য জড়িত বলে তারা মনে করছেন। ওইসব পুলিশ সদস্যের ব্যাপারে কী সিদ্ধান্ত হবে? এ ছাড়া, ডিআইজি মিজানকে নিয়ে দেশজুড়ে তোলপাড় চলছে, কিন্তু তাকে কেন গ্রেফতার করা হচ্ছে না? এর বাইরেও পুলিশের নানা কর্মকাণ্ড নিয়ে সমালোচনা হচ্ছে। এসব ব্যাপারে আপনার (আসাদুজ্জামান খান কামাল) বক্তব্য বা সিদ্ধান্তটা জানতে চাই।’

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘কেউ আইনের উর্ধ্বে নয়। আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দিক-নির্দেশনা দিয়েছেন, যেই অপরাধ করবে, সে জনপ্রতিনিধি হোক বা প্রশাসনের লোক কিংবা পুলিশ সদস্য হোক, তার বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। যেই অন্যায় করছে, আমরা তাকেই ধরছি। ওসিকে ধরতে একটু বিলম্ব হয়েছে। সে কেন আত্মগোপন করেছিল, কেন সে পালিয়েছিল, সেটা তো তদন্তের বিষয়, এ নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ হবে। ডিআইজি মিজানের বিরুদ্ধে তার ডিপার্টমেন্ট থেকে অ্যাকশন নেওয়া হচ্ছে। এর পাশাপাশি তার বিরুদ্ধে যেসব মামলা হয়েছে, তার মধ্যে কয়েকটি তদন্তাধীন রয়েছে। তদন্ত শেষ হলে তার বিরুদ্ধেও যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

 

/এমএ/

লাইভ

টপ