অ্যাপসভিত্তিক বাইকে অনিরাপদ হাফ হেলমেট (ভিডিও)

Send
তামজিদা তুবা
প্রকাশিত : ০৭:৫০, জুলাই ১১, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:৩২, জুলাই ১১, ২০১৯

রাজধানীতে কম সময়ে গন্তব্যে পৌঁছাতে মানুষ বিভিন্ন অ্যাপসভিত্তিক যানবাহনের ওপর নির্ভরশীল হয়ে পড়েছে। বিশেষ করে মোটরসাইকেলে অসংখ্য মানুষ যাতায়াত করছেন। এই বাহনে নিরাপত্তার জন্য হেলমেট পরা বাধ্যতামূলক। তবে রাইডাররা যাত্রীদের যেসব হেলমেট পরতে দেন সেসবের বেশিরভাগই নিরাপদ নয়। কারণ এগুলো পরিপূর্ণ হেলমেট নয়। বলা চলে হাফ হেলমেট দিয়ে যাত্রীদের ঝুঁকির মুখে ফেলছেন তারা।

কয়েকজন রাইডার বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, পুলিশের হাত থেকে বাঁচার জন্য হেলমেট ব্যবহার করেন তারা। তাদের কাছে নিরাপত্তা মুখ্য নয়! পুলিশের বাধ্যবাধকতা না থাকলে তারা হেলমেটই ব্যবহার করতেন না বলে হতবাক করা কথা শুনিয়েছেন।

তেজগাঁও জোনের সার্জেন্ট (ট্রাফিক পশ্চিম) ইমরান আলীর দেওয়া তথ্যে এর সত্যতা পাওয়া গেছে। তিনি জানান, ৯৫ শতাংশ রাইডার পুলিশের ভয়ে হেলমেট ব্যবহার করেন। নিজেদের নিরাপত্তার কথা ভেবে কিন্তু হেলমেট মাথায় রাখেন না তারা। এ ধরনের হেলমেট অনিরাপদ কিনা, তা জানেনই না অনেক রাইডার। তাদের অনেকের কথায়, ‘সবাই এখন এ ধরনের হেলমেট ব্যবহার করে। সবাই যেহেতু করছে, আমিও করছি।’
যদিও রাইডাররা নিজেরা ঠিকই পরিপূর্ণ হেলমেট মাথায় রাখেন। কিন্তু, যাত্রীদের জন্য দায়সারা হেলমেট সঙ্গে থাকে তাদের। এগুলো পরলেও মুখের বেশিরভাগ অংশই খোলা থাকে, আর এসব হেলমেট খুব হালকা হয়। তাই অল্প কয়েকদিনে এর অবস্থা হয়ে পড়ে নাজুক।
একজন রাইডারের মন্তব্য, হেলমেটগুলো যারা তৈরি করেন তারা সঠিকভাবে তা পারেন না বলে ভেঙে যায়। রাইডারদের দেওয়া হাফ হেলমেট মেনে নিয়ে পথ চলছেন যাত্রীরা। এর কারণ জানতে চাওয়া হয় কয়েকজন যাত্রীর কাছে। তারা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, বিকল্প না থাকায় দৈনন্দিন প্রয়োজনীয়তা মেটাতে এসব দিয়েই কাজ চালিয়ে নিচ্ছেন তারা।
বেশিরভাগ রাইডারের কাছ থেকে নাজুক হেলমেট পাওয়ার কথা স্বীকার করেছেন যাত্রীরা। এমন পরিস্থিতির জন্য অ্যাপসভিত্তিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে দুষলেন তাদের একজন। তিনি মনে করেন, তারা হেলমেটের মানের দিকে গুরুত্ব দেয় না। তাই রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠানগুলোকে এক্ষেত্রে কঠোর হওয়ার প্রয়োজনীয়তা দেখছেন যাত্রীরা। কেউ কেউ মনে করেন, তীব্র গরমে হাফ হেলমেটই বরং ভালো! নিরাপত্তার চেয়ে স্বস্তিটাই তাদের কাছে মুখ্য। কারও মন্তব্য, রাইডারদের উচিত ভালো হেলমেট দেওয়া। আর পুলিশের উচিত হাফ হেলমেট পরা কাউকে দেখলে আটকানো।
তবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে এ ধরনের কোনও নিয়ম নেই। তেজগাঁও জোনের সার্জেন্ট (ট্রাফিক পশ্চিম) ইমরান আলী মনে করেন, কেউ যেন হাফ হেলমেট ব্যবহার করতে না পারে, তেমন নিয়ম থাকা দরকার। তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মোটরসাইকেল আরোহীরা হেলমেট ব্যবহার না করলে প্রাণঘাতী দুর্ঘটনার শিকার হতে পারেন। তবে হাফ হেলমেট পরাটাও অনিরাপদ। দুর্ঘটনায় হাফ হেলমেট কোনোভাবেই সুরক্ষা দিতে পারে না। চালক ও যাত্রীর নিরাপত্তার জন্য পরিপূর্ণ হেলমেট ব্যবহার করা বাধ্যতামূলক করা প্রয়োজন।’

/জেএইচ/টিএন/এমএমজে/

লাইভ

টপ