লিভার প্রতিস্থাপনে সফল হওয়ায় চিকিৎসকদের অভিনন্দন প্রধানমন্ত্রীর

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৬:৪৭, জুলাই ১৮, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:২৯, জুলাই ১৮, ২০১৯





বিএসএমএমইউ-তে সংবাদ সম্মেলনে জাহেদ মালিক ও কনক কান্তি বড়ুয়াসহ অন্যরা

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) সিরাতুল ইসলামের লিভার প্রতিস্থাপনে সফল হওয়ায় সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকদের অভিনন্দন জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার (১৭ জুলাই) রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়াকে টেলিফোন করে অভিনন্দন জানান তিনি। এ সময় লিভার গ্রহীতা ছেলে সিরাতুল ও দাতা মা রোকসানা বেগমেরও খোঁজ নেন প্রধানমন্ত্রী।
বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) লিভার দাতা ও গ্রহীতাকে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেওয়া উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য। সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেকসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্য চিকিৎসকরা।
ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া জানান, এ ধরনের লিভার প্রতিস্থাপন ৩০ লাখ টাকার মধ্যে হওয়া সম্ভব। তবে এ রোগীর ক্ষেত্রে তারা বিনামূল্যে সবকিছু করেছেন। এটি ছিল এই বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম লিভার প্রতিস্থাপন এবং দেশের মধ্যে পঞ্চম। আগামী আগস্টে আরও পাঁচটি লিভার প্রতিস্থাপনের কার্যক্রম তারা হাতে নেবেন বলেও জানান তিনি।

ছেলে সিরাতুল ইসলাম ও মা রোকসানা বেগম

লিভার ও কিডনি প্রতিস্থাপনের ক্ষেত্রে ডোনারের বিষয়ে জানতে চাইলে উপাচার্য বলেন, ‘ডোনার রক্তের সম্পর্কের হলে ভালো হয়। অন্য আত্মীয়রাও দিতে পারেন, তবে রক্তের সম্পর্কিতদের আমরা বেশি উৎসাহিত করি।’
এ সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা আমাদের অনেক কাজের সমালোচনা করেন। সেটা নিশ্চয় করবেন, তবে আমাদের ভালো কাজগুলো তুলে ধরেন।’
উল্লেখ্য, গত ২৪ জুন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথমবারের মতো লিভার প্রতিস্থাপন হয়। সিরাতুল ইসলামকে লিভার দিয়ে বাঁচিয়ে তোলেন তার মা রোকসানা বেগম। বিএসএমএমইউ’র হেপাটোবিলিয়ারি ও প্যানক্রিয়েটিক এবং লিভার ট্রান্সপ্লান্ট বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মো. জুলফিকার রহমান খানের নেতৃত্বে বিভিন্ন বিভাগের চিকিৎসক, নার্স ও ওয়ার্ডবয়সহ প্রায় ৬০ জনের একটি দল এই কার্যক্রমে অংশ নেন।

/জেএ/আইএ/এমওএফ/

লাইভ

টপ