ভিকারুননিসায় নতুন অধ্যক্ষের যোগদানে বাধা নেই

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১২:১৮, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১২:৫৮, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০১৯

নতুন অধ্যক্ষ ফওজিয়া রেজওয়ানভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ হিসেবে ফওজিয়া রেজওয়ানের নিয়োগ স্থগিত চেয়ে হাইকোর্টে দায়ের করা রিট আবেদনের ওপর রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। তবে তার কাজে যোগদানের বিষয়ে কোনও নিষেধাজ্ঞা না থাকায় তিনি দায়িত্ব নিতে পারবেন বলে জানিয়েছেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

মঙ্গলবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ রুল জারির আদেশ দেন।

আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ। অন্যদিকে, রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত দাশগুপ্ত।

পরে রিটকারী আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ বলেন, ‘সংশ্লিষ্ট রিটের ওপর শুনানি নিয়ে হাইকোর্ট ২০০৯ সালের রেজুলেশন ৫১ কেন সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন। একইসঙ্গে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ হিসেবে ফওজিয়ার নিয়োগ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন কেন আইনগত কর্তৃত্ব বহির্ভূত হবে না, রুলে তাও জানতে চেয়েছেন আদালত।’

এদিকে, শুনানি শেষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম  বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আদালত রুল জারি করেছেন। কিন্তু কোনও নিষেধাজ্ঞা দেননি। এর ফলে ফওজিয়া রেজওয়ানের অধ্যক্ষ হিসেবে ভিকারুননিসায় যোগদানে বাধা নেই।’

এর আগে গত ১৫ সেপ্টেম্বর ঢাকার সবুজবাগ সরকারি মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালনরত মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের (মাউশি) বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফওজিয়া রেজওয়ানকে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ হিসেবে নিয়োগ দেয় সরকার।

পরে ফওজিয়া রেজওয়ানের নিয়োগ স্থগিত চেয়ে  সোমবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সকালে রিট দায়ের করেন ভিকারুননিসার গভর্নিং বডির সাবেক সদস্য ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মো. ইউনুছ আলী আকন্দ। ওইদিন এ রিটের ওপর শুনানি নিয়ে আজ  মঙ্গলবার (১৭ সেপ্টেম্বর) আদালতের আদেশ না হওয়া পর্যন্ত ফওজিয়াকে ভিকারুননিসায় যোগদানে বিরত থাকতে নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট।

রিট আবেদনে বলা হয়, ১৯৭৯ সালের রেজুলেশন ২(এ)(ই), ৩(১) (২) অনুযায়ী অধ্যক্ষ নিয়োগের ক্ষমতা গভর্নিং বডির এবং ২০০৯ সালের রেজুলেশন ৪১ (২)(খ)(৪) অনুযায়ী শিক্ষক-কর্মচারী নিয়োগের ক্ষমতা গভর্নিং বডির। কিন্তু সরকার অবৈধ ক্ষমতা ব্যবহার করে মাউশির একজন কর্মকর্তাকে অধ্যক্ষ নিয়োগ দেয়।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালে বেইলি রোডের এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নবম শ্রেণির ছাত্রী অরিত্রী অধিকারীর আত্মহত্যার ঘটনায় উত্তেজনাকর পরিস্থিতির মুখে ভিকারুননিসার তৎকালীন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌসসহ তিন শিক্ষককে সরিয়ে দেওয়া হয়।

এরপর থেকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব চালিয়ে আসছেন কলেজ শাখার সহকারী অধ্যাপক হাসিনা বেগম। তিনি অর্থনীতি বিষয়ের শিক্ষক। এরপর গত এপ্রিলে প্রধান শিক্ষক নিয়োগের প্রক্রিয়া প্রায় চূড়ান্ত হলেও অনিয়মের অভিযোগ ওঠায় তা বাতিল করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

আরও পড়ুন:

সহসাই সংকট কাটছে না ভিকারুননিসায়

/বিআই /এপিএইচ/এমএমজে/

লাইভ

টপ