‘প্রায়োগিক শিক্ষার জন্য সমন্বিত উদ্যোগ দরকার’

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২৩:৪৭, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:৫৮, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০১৯

3a834d13b9d203f5d0ddd5384925f542-5d80ba3730aa3শিক্ষা যেন শুধু সার্টিফিকেট সর্বস্ব না হয়। এটি বাস্তবসম্মত হতে হবে। প্রায়োগিক শিক্ষার জন্য শিক্ষকদের যথাযথ প্রশিক্ষণেরও প্রয়োজন। আমাদের দেশে ইন্ডাস্ট্রি একদিকে, শিক্ষাব্যবস্থা আরেক দিকে। এজন্য সবার সমন্বিত উদ্যোগ দরকার। দেশের শীর্ষস্থানীয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল বাংলা ট্রিবিউনের আয়োজনে ‘যোগ্য গ্র্যাজুয়েট গড়তে প্রায়োগিক শিক্ষার গুরুত্ব’ শীর্ষক বাংলা ট্রিবিউন বৈঠকিতে এসব কথা বলেন বক্তারা। 

মঙ্গলবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বিকাল সাড়ে ৪টায় রাজধানীর শুক্রাবাদে বাংলা ট্রিবিউন স্টুডিও থেকে এ আয়োজন সরাসরি সম্প্রচার করেছে এটিএন নিউজ। পাশাপাশি বাংলা ট্রিবিউনের ফেসবুক ও হোমপেজেও এটি লাইভ সম্প্রচারিত হয়।

সাংবাদিক মুন্নী সাহার সঞ্চালনায় আজকের বৈঠকিতে অংশ নেন– ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশের (ইউল্যাব) উপাচার্য প্রফেসর ড. এইচ এম জহিরুল হক, স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর মুহাম্মদ আলী নকী,  ইউল্যাব স্কুল অব বিজনেসের ডিন প্রফেসর ইমরান রহমান ও ইউল্যাবের ডিপার্টমেন্ট অব মিডিয়া স্টাডিজ অ্যান্ড জার্নালিজমের সহকারী অধ্যাপক মনিরুজ্জামান শিপু।

89e3f5febb61ab862dabf769ef61edb2-5d80c2a0ea6e3বৈঠকিতে ইউল্যাব উপাচার্য প্রফেসর ড. এইচ এম জহিরুল হক বলেন,  ‘শিক্ষা মানেই হচ্ছে প্রায়োগিক শিক্ষা। শিক্ষাদান এমন হতে হবে যেন এটা সার্টিফিকেট দান না হয়।  হাতেকলমে শিক্ষা দিতে হবে, বাস্তবে বোঝাতে হবে। সাহিত্যের যেমন প্রায়োগিক শিক্ষা আছে। তেমনি সব বিষয়কে প্রায়োগিক করে তোলা সম্ভব।’

এ প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, ‘আমরা যারা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সঙ্গে আছি আমাদের লক্ষ্য রাখতে হবে, শিক্ষার্থীরা যেন শুধু সার্টিফিকেট না নিয়ে যায়, যথাযথ শিক্ষা পায়। শিক্ষার্থী চাকরির বাজারে কাজ পায় সেই শিক্ষা দিতে হবে। এ কাজে সবার সমন্বিত উদ্যোগ দরকার। এক্ষেত্রে সিলেবাস, শিক্ষকদের প্রশিক্ষণসহ সামগ্রিকভাবে বিভিন্ন উদ্যোগ নিতে হবে। রাষ্ট্রীয়ভাবেও উদ্যোগ নিতে হতে হবে।  গবেষণা করতে হবে। এসব করতে সমস্যা কোথায়?’

চাকরি না পেলে শিক্ষার্থীরা হতাশাগ্রস্ত হবে উল্লেখ করে ইউল্যাব উপাচার্য বলেন, ‘আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা ১৫০টি। কিন্তু এত বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য উপযুক্ত শিক্ষক আছেন কিনা সেটি দেখা দরকার। ফলে উচ্চশিক্ষার উদ্দেশ্য বিঘ্নিত হচ্ছে। সবার মাথায় থাকা উচিত, শিক্ষার উদ্দেশ কী।’

single pic template-1এ সময় স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর মুহাম্মদ আলী নকী বলেন, ‘সমাজের জন্য অর্থনীতি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আমাদের প্রয়োগ করার জায়গা থাকতে হবে। শিক্ষক হিসেবে একজন ব্যক্তির প্রথম দায়িত্ব এগিয়ে আসার। একজন শিক্ষককে ক্লাসরুমে অ্যাকটিভ রাখতে হবে। কোনও খরচ না বাড়িয়ে ক্লাসকে ইন্টারঅ্যাকটিভ করা যায়।  সিমুলেশন করা যেতে পারে।’

প্রায়োগিক শিক্ষায় আমাদের ব্যর্থতার চিত্র তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘একজন শিক্ষার্থীরা “ডাক্তার আসার পূর্বে রোগী মারা গেলো” এটা ইংরেজিতে বলতে পারে। কিন্তু “তার নিজের পেটের ব্যথা” এটা ইংরেজিতে বলতে পারে না। কারণ, প্রায়োগিক শিক্ষা নেই। প্রায়োগিক শিক্ষা বিষয়ভিত্তিক কিছুটা ভ্যারি করে।’

তিনি আরও বলেন, ‘সবাইকে একসঙ্গে এগোতে হবে। শিক্ষক নেওয়ার সময় আমাদের বিভিন্ন বিষয় বিবেচনা করতে হবে। তাদেরও যথাযথ প্রশিক্ষণের প্রয়োজন আছে। শিক্ষককে হতে হবে রোল মডেল। প্রতিনিয়ত সবকিছু বদলে যাচ্ছে।’

22ffdf49c6190f243afffc1d9840834d-5d80cb9ef0e73ইউল্যাব স্কুল অব বিজনেসের ডিন প্রফেসর ইমরান রহমান বলেন, ‘প্রায়োগিক শিক্ষার অভাব আমাদের ছোটবেলা থেকেই। এখানে প্রশ্ন করাটাকে বেয়াদবি ভাবা হয়। আমাদের সমস্যা সামাজিক। এটা শুধু বিশ্ববিদ্যালয়ের সমস্যা নয়। শুধু আমেরিকান পাঠ্যবই দিয়ে কাজ হবে না। হাজার হাজার ছেলেমেয়ে গ্র্যাজুয়েট হচ্ছে। কিন্তু নিয়োগকর্তারা বলছেন, যোগ্য লোক পাওয়া যাচ্ছে না।’

তিনি বলেন, ‘৫০ বছর পরে এমন ডিগ্রি থাকবে কিনা জানি না। অনেকে হয়তো ছোট ছোট কোর্স করে কাজে যোগ দেবে।’ বাস্তবতার সঙ্গে আমাদের শিক্ষার তফাত উল্লেখ করে ইমরান রহমান, ‘আমাদের দেশে ইন্ড্রাস্টি একদিকে, শিক্ষা ব্যবস্থা আরেক দিকে। বর্তমানে দূরত্ব কিছুটা কমেছে। এটিকে আরও কমিয়ে আনতে হবে।’

মানসম্পন্ন শিক্ষকের অভাব রয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘বিশ্বেজুড়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতার আগে শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ নেওয়ার চর্চা আমাদের এখানে নেই। বাংলাদেশে শিক্ষকের অভাব আছে। বিদেশ থেকে শিক্ষক আনাও কঠিন। আমাদের অনেক সমস্যা শিক্ষককেন্দ্রিক। আমাদের নিজেদের শিক্ষক ডেভেলপমেন্ট করতে হবে।’

মনিরুজ্জামান শিপুইউল্যাবের ডিপার্টমেন্ট অব মিডিয়া স্টাডিস অ্যান্ড জার্নালিজমের সহকারী অধ্যাপক মনিরুজ্জামান শিপু বলেন,  ‘শিক্ষকরা প্রায়োগিক শিক্ষা বুঝলেও বিশ্ববিদ্যালয়ে সেটি প্রয়োগ করার সুযোগ পাচ্ছেন কিনা তা ভেবে দেখতে হবে। শিক্ষকের যদি প্রায়োগিক বিষয়ে অভিজ্ঞতা থাকে তবে তিনি পরির্পূণ শিক্ষা দিতে পারবেন। এজন্য শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া নিয়ে ভাবা দরকার। আমাদের গ্রেডিং নিয়ে ভাবতে হবে। আবেগ দিয়ে কিছু হবে না।’

 মুন্নী সাহা

/সিএ/এমএএ/

লাইভ

টপ