বৈধ সিটের দাবিতে ঢাবি শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

Send
ঢাবি প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ২২:২৯, অক্টোবর ১৭, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:৩৬, অক্টোবর ১৭, ২০১৯

single pic template-1বৈধ সিটের দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন করেছেন৷ বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে ‘বৈধ সিট আমার অধিকার’ ব্যানারে এ মানববন্ধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু শিক্ষার্থী। এ সময় তারা হলে বৈধ সিটের পাশাপাশি শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ দাবি করেন। 

এ সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্র ফেডারেশনের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. সজিব বলেন, ‘বৈধ সিট প্রত্যেক শিক্ষার্থীর ন্যায্য অধিকার। কিন্তু আমরা দেখলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও ভিসি দায়িত্বের চেয়ে রাজনৈতিক কর্মীর ভূমিকা বেশি পালন করেন। ঢাবিকে পুতুলে পরিণত করেছেন তারা। সবকিছু দেখেও লেজুড়বৃত্তি করছেন তারা।’

মানববন্ধনে আবরার হত্যার প্রসঙ্গ টেনে সমাজবিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী নাহিদ ইসলাম বলেন, ‘আবরার হত্যাকাণ্ড বুয়েটের কোনও বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। এটি পুরো বাংলাদেশের নির্যাতনের বহিঃপ্রকাশ। আবরার হত্যা, হাফিজ,  আবু বক্কর হত্যারই প্রতিফলন।’

সমাজবিজ্ঞান বিভাগের আরেক শিক্ষার্থী ইশরাতুল জাহান নিশি বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ে এসেছি স্বাধীনচেতা মনোভাব নিয়ে বেড়ে উঠতে। কিন্তু সেই পরিবেশ পাচ্ছি কই? আমরা আমাদের অধিকার পাচ্ছি না। ভয়ে কথা বলতে পারি না। বাক-স্বাধীনতা কেনো বাধাগ্রস্ত হবে? বুয়েটে যদি ছাত্র রাজনীতি বন্ধ করতে পারে তাহলে আমরা কেন আমাদের অধিকার বৈধ সিট পাব না।’

ইংরেজি বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী শাহজাহান তানিম হলে থাকার তিক্ত অভিজ্ঞতা বর্ণনা করে বলেন, ‘হলে ম্যানার শেখানোর কথা বলা হচ্ছে। যারা হত্যা আর খুনের রাজনীতি করে, যারা হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের দমিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে, তারা শেখাবে ম্যানার?  এ সময় তিনি আবাসিক হলগুলোতে বৈধ সিট নিশ্চিতের জন্য শিক্ষার্থীদের প্রতি ঐক্যবদ্ধ হয়ে আন্দোলন করার আহ্বান জানান।’

মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা বৈধ সিট নিশ্চিত করার জন্য কয়েকটি দাবি জানিয়েছেন। সেগুলো হলো– প্রথম বর্ষ থেকে প্রশাসন কর্তৃক বৈধ সিট বরাদ্দ দেওয়া, গেস্টরুম সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করা, অবৈধ সিট দখলদারিদের অবিলম্বে হল ত্যাগে বাধ্য করা, রাজনৈতিক গণরুম বাতিল করা, সিট বরাদ্দে রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ বন্ধ করা, পলিটিক্যাল রুমের নামে রুম দখল বন্ধ করা।

 

/এসআইআর/এমএএ/

লাইভ

টপ