বালিশকাণ্ডের দায় মন্ত্রণালয়ও এড়াতে পারে না: প্রকৌশলী আবদুস সবুর

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৭:১২, অক্টোবর ১৯, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:১৬, অক্টোবর ১৯, ২০১৯





রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের বালিশকাণ্ডের মতো কেলেঙ্কারির দায় যেমন প্রকৌশলীরা এড়াতে পারেন না, তেমনি মন্ত্রণালয়ও এড়াতে পারে না বলে মন্তব্য করেছেন ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশের (আইইবি) প্রেসিডেন্ট এবং আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক প্রকৌশলী মো. আবদুস সবুর।
শনিবার (১৯ অক্টোবর) সকালে রাজধানীতে আইইবির কাউন্সিল হলে আয়োজিত ‘সরকারি ক্রয় প্রক্রিয়ার বর্তমান অবস্থা: প্রেক্ষিত বাংলাদেশ’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকের প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন। আইইবির পুরকৌশল বিভাগের উদ্যোগে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।
মো. আবদুস সবুর বলেন, ‘বালিশকাণ্ডের দায় শুধু প্রকৌশলীদের নয়, এই দায়ভার মন্ত্রণালয়েরও রয়েছে। এ ঘটনার পর সেন্ট্রাল প্রকিউরমেন্ট টেকনিক্যাল ইউনিট (সিপিটিইউ) তাদের বক্তব্য জনগণের সামনে তুলে ধরেনি।’
তিনি বলেন, তবে এই বালিশকাণ্ডের মতো কোনও ঘটনা যাতে ভবিষ্যতে আর না ঘটে সে-দিকে প্রকৌশলীদের সঙ্গে মন্ত্রণালয়েরও কড়া নজর রাখতে হবে।
গোলটেবিল বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন আইইবির পুরকৌশল বিভাগের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মো. হাবিবুর রহমান। এতে মডারেটরের দায়িত্ব পালন করেন আইইবির পুরকৌশল বিভাগের সম্পাদক প্রকৌশলী শেখ তাজুল ইসলাম তুহিন। এছাড়া চিপস, বাংলাদেশের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মো. নুরুল হুদা, এলজিইডির প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী মো. জসিম উদ্দিন, বিশ্বব্যাংকের প্রকিউরমেন্ট স্পেশালিস্ট প্রকৌশলী গোলাম ইয়াজদানী, এলজিইডির প্রকিউরমেন্ট ইউনিটের নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুস সাত্তার, সিনিয়র সহকারী প্রকৌশলী মো. শরিফুল ইসলাম, ন্যাশনাল ট্রেইনার প্রকৌশলী সোনিয়া নওরিনসহ বেশ কয়েকজন প্রকিউরমেন্ট স্পেশালিস্ট বক্তব্য রাখেন।
প্রকৌশলী মো. আবদুস সবুর বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সুযোগ দিয়েছেন বলেই আমাদের প্রকৌশলীরা দেশের বড় বড় প্রকল্প পরিচালনা করছেন। দেশের অনেক উন্নয়ন করছেন। তবে প্রকৌশলীদের আর বেশি দক্ষতা প্রয়োজন। প্রকৌশলীরা যত বেশি দক্ষ হবেন দেশের উন্নয়নের তত বেশি ভূমিকা রাখতে পারবেন। তাই প্রকৌশলীদের দক্ষতার কোনও বিকল্প নেই বলে মন্তব্য করেন তিনি। এসময় তিনি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ শেষ করার তাগিদ দেন।

/এসএস/এইচআই/

লাইভ

টপ