‘শিল্পের মধ্যে কোনও রাজনীতি আসা উচিৎ নয়’

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৬:০৪, নভেম্বর ০৯, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:৫৯, নভেম্বর ০৯, ২০১৯

ঢাকা লিট ফেস্টের তৃতীয় দিন শনিবার (৯ নভেম্বর) দুপুরে বাংলা একাডেমির আব্দুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে ‘প্রাইজ পলিটিক্স’ শীর্ষক সেশনে উপস্থিত ছিলেন ভারতীয় সাংবাদিক প্রেয়াগ আকবর, ব্রাজিলিয়ান ঔপন্যাসিক ইয়ারা রদ্রেগিজ, ডিসিসি পুরস্কারপ্রাপ্ত ঔপন্যাসিক, কবি তিশানি দশি এবং ব্রিটিশ প্রকাশক মাইকেল ডেয়ার। সঞ্চালক ছিলেন কবি ও ডাকা লিস্ট ফেস্টের পরিচালক আহসান আকবর।


সেশনের শুরুতেই সঞ্চালক আহসান আকবর তিশানি দশিকে জিজ্ঞেস করেন, পুরস্কারের ক্ষেত্রে কোনও রাজনীতি প্রভাবক হিসেবে কাজ করে কিনা। সঞ্চালকের এই প্রশ্নের জবাবে তিশানি বলেন, ‘আমি মনে করি শিল্পের মধ্যে কোনও রাজনীতি আসা উচিৎ নয়। কোনও লেখকের স্বীকৃতি অর্জনের ক্ষেত্রে কোনও ধরনের ভেতর বা বাহিরের প্রভাব থাকা উচিৎ নয়। এই ক্ষেত্রে তার বইয়ের বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ।’ এই কথার সাথে ইয়ারা রদ্রিগেজ যোগ করে বলেন, ‘শিল্পের ক্ষেত্রে কোনও ধরনের ব্যবসা বা অন্য প্রভাব থাকা উচিৎ না। টাকাও এ ক্ষেত্রে কোনও ইস্যু হয়ে থাকা উচিৎ না।’
সঞ্চালক আহসান আকবর এই কথার পরিপ্রেক্ষিতে বলেন, ‘গত বছরের সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার কিন্তু বাতিল করতে হয়েছিল। এর কারণ আমরা সবাই জানি।’ সঞ্চালকের সাথে যুক্ত করে মাইকেল ডেয়ার বলেন, ‘এই ঘটনার জন্য সাহিত্যাঙ্গন কলঙ্কিত হয়ে গিয়েছিল। এ থেকে দূরে সরে আসতে পারলেও রাজনীতির প্রভাব থেকে আমরা এখনও সরে আসতে পারিনি। জাতীয়তাবাদ এতটাই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে যায় যে প্যালেস্টাইনের কোনও লেখক স্বীকৃতি পেতে তাদের অনেক কাঠখড় পোড়াতে হয়।’
প্রেয়াগ আকবর বলেন, ‘বিশ্ব রাজনীতির অংশ হয়ে গেছে এই পুরস্কার অর্জন। বব ডিলান সাহিত্যে নোবেল পেয়েছেন। কিন্তু এর আগে তিনি এ্যামি বা অন্য কোনও পুরষ্কার পাননি। তিনি নোবেল সাহিত্য পুরস্কার পাওয়ার পর এ বিষয় নিয়ে অনেক সমালোচনা হয়।’
দর্শকের প্রশ্নত্তোর পর্বের মধ্য দিয়ে এই সেশনটির সমাপ্তি ঘটে।

/এনএ/

লাইভ

টপ