behind the news
Vision  ad on bangla Tribune

মুন্সীগঞ্জ ও মিরকাদিম পৌরসভায় আ.লীগ জয়ী

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি২৩:৫২, ডিসেম্বর ৩০, ২০১৫

মুন্সীগঞ্জ

মুন্সীগঞ্জ ও মিরকাদিম পৌরসভায়ও আওয়ামী লীগ প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। মুন্সীগঞ্জ পৌরসভায় আওয়ামী লীগের মোহাম্মদ ফয়সাল বিপ্লব মেয়র পদে জয়লাভ করেছেন। ৭৬ শতাংশ ভোট কাস্ট হয়েছে ।বুধবার রাতে রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ ফজলে আজিম এ ফলাফল ঘোষণা করেন।

নৌকা প্রতীক নিয়ে ফয়সাল বিপ্লব পেয়েছেন ২৭ হাজার ৩১৯ ভোট। ধানের শীষ নিয়ে তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বর্তমান মেয়র বিএনপির একেএম ইরাদত মানু পেয়েছেন ৫ হাজার ৮৩১ ভোট।

মেয়র পদে অপর দুই প্রার্থী ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মহিউদ্দিন ব্যাপারী  ৩২৮ ও স্বতন্ত্র রেজাউল ইসলাম সংগ্রাম ৫২৩ পেয়ে জামানত খুইয়েছেন। মোট ভোট পড়েছে ৩৪ হাজার ৬১১ এবং বাতিল হয়েছে ৬২০ ভোট।

এ পৌরসভায় মোট ভোটার ৪৫ হাজার ৪২৮ জন। মোট ২৫টি কেন্দ্রে সবকটিতে সকাল ৮টা থেকে টানা বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়।

 

এদিকে মিরকাদিম পৌরসভায় আওয়ামী লীগের শহিদুল ইসলাম শাহিন মেয়র পদে জয়লাভ করেছেন। বুধবার রাতে রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ ফয়সাল কাদের এ ফল ঘোষণা করেন।

নৌকা প্রতীক নিয়ে বর্তমান মেয়র শহিদুল ইসলাম শাহিন পেয়েছেন ১৩ হাজার ৪৬৪ ভোট। মোবাইল প্রতীক নিয়ে তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মনসুর আহম্মেদ কালাম পেয়েছেন চার হাজার ৬৯ ভোট।

মেয়র পদে অপর তিন প্রার্থীর মধ্যে ধানের শীষ নিয়ে শামসুর রহমান পেয়েছেন তিন হাজার ৭৩৭ ভোট,  ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আব্দুল গফুর পেয়েছেন ৪২৩ ভোট, স্বতন্ত্র প্রার্থী জামান হোসেন ১৪০ ভোট ও জেপির মোহাম্মদ হোসেন রেনু পেয়েছেন ১৬ ভোট।

এ পৌরসভায় মোট ভোটার ৩৩ হাজার ৫১৪ জন। মোট ১৭টি কেন্দ্রে সবকটিতে সকাল ৮টা থেকে টানা বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়।

মুন্সীগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুল হালিম জানান, বিচ্ছিন্ন কয়েকটি ঘটনা ঘটলেও আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ছিল এবং নির্বাচন সুষ্ঠ হয়েছে।

রিটার্নিং কর্মকর্তা মো: ফজলে আজিম জানান, নিরাপত্তার জন্য দুটি পৌরসভায় ৫ হাজার প্লাটুন বিজিবি রাখা হয়। এছাড়া  চার জন  নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও একজন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ভ্রাম্যমান আদালতের কাজ করেন।

/এফএএন/

লাইভ

Nitol ad on bangla Tribune
টপ