টাইগারদের খেলা দেখাতে চেয়েও কথা রাখলো না বিটিভি

জাবেদ হোসেন২৩:১৩, জানুয়ারি ৩১, ২০১৬

‘বাংলাদেশ-স্কটল্যান্ডের ম্যাচ সরাসরি বিটিভিতে’—আগেরদিন রাতের খবরে এমন ঘোষণা দিলেও রবিবার খেলাটি প্রচার করেনি রাষ্ট্রীয় প্রচার মাধ্যমটি। তাদের এ প্রতারণায় কোটি কোটি ক্রিকেটপ্রেমীর মন ভেঙেছে। সারাদেশেই ক্রিকেট ভক্তরা অধীর আগ্রহে টিভির সামনে বসেছিল বিটিভিতে খেলাটির সরাসরি সম্প্রচার দেখার আশায়, কিন্তু তার বিপরীতে কারিশমা দেখালো বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) এবং বাংলাদেশের জাতীয় টেলিভিশন (বিটিভি)।

জাবেদ হোসেনযুব বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছানোর সম্ভাবনা থাকায় শনিবার থেকেই কোটি কোটি ক্রিকেট সমর্থক আশায় বুক বেঁধেছিল স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে যুব টাইগারদের ম্যাচ দেখার আশায়। ঠিক তখনই বাংলাদেশ টেলিভিশনের রাত ৮ টার খবরে প্রচার করা  হয় আগামী কালকের (রবিবার) “আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের বাংলাদেশ-স্কটল্যান্ডের ম্যাচ সরাসরি প্রচার করবে বিটিভি।” তখনই খুশিতে আত্মহারা হয়ে অনেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে খবরটি ছড়িয়ে দেয়। এমনকি এটা নিয়ে নিউজও করা হয় বিভিন্ন গণমাধ্যমে। কিন্তু রবিবার ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচারের সময় দেখা গেলো বিষয়টি যেন ভুলেই গেছে বিটিভি। এ ঘটনায় তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে ক্রিকেট পাগল দর্শকদের মধ্যে। গণমাধ্যমগুলোতে এ প্রতিক্রিয়া ছড়িয়ে পড়ে। ক্ষোভে ফেটে পড়েন দেশের কোটি কোটি ক্রিকেট সমর্থক। কিন্তু এর দায় আসলে কার? কেন এরকম করলো বিটিভি এবং কেনই বা কক্সবাজারে বাংলাদেশের ম্যাচ? এর দায় কি এড়াতে পারবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)?
বিসিবি’র কাছে আমাদের স্পষ্ট প্রশ্ন, নিজের দেশের খেলা যেখানে সরাসরি সম্প্রচার করতে সমস্যা হবে, সেখানে কেন ম্যাচ রাখা হয়েছে? এ প্রশ্নের উত্তর জানতে চায় আজ দেশের কোটি কোটি ক্রিকেটপ্রেমী।
যদি ধরেও নেওয়া হয়, খেলার সময়সূচি ও ভেন্যু আগে থেকেই নির্ধারিত ছিল তাহলে কেনই বা বিটিভি এভাবে ঢালাওভাবে প্রচার করল সরাসরি সম্প্রচারের কথা? বিটিভির রবিবারের সিডিউলে স্পষ্ট উল্লেখ করা ছিল, বাংলাদেশ-স্কটল্যান্ড ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করার। একবার বা দুইবার নয়, আগের দিন শনিবার রাত ৮টা, রাত ১০টা, রাত ১১.৩০ মিনিটে এমনকি রবিবার সকাল ৮.০০টার খবরেও প্রচার করা হয়েছে, “বাংলাদেশ-স্কটল্যান্ড অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট দলের মধ্যকার ম্যাচটি সকাল নয়টা থেকে শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম, কক্সবাজার থেকে সরাসরি সম্প্রচার করবে বিটিভি।”

পরিশেষে বিটিভিকে বলতে চাই, দেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের ক্রিকেট উন্মাদনায় ভাসাতে গিয়ে মিথ্যার আশ্বাস নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াবেন না। নিরাশা কাটিয়ে শনিবার যখন আপনারা আনন্দের সংবাদ দিয়ে দর্শকদের ধন্যবাদ গ্রহণ করেছিলেন, রবিবার ঠিক সকাল নয়টার পর তাদের মুখেই অকথ্য কথাও শুনতে হয়েছে।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি’র) কাছে আবদার, নিজের দেশের খেলা যদি নিজ দেশের টেলিভিশনে দেখতে না পাওয়া যায় তাহলে দরকার নেই অন্যের খেলা সরাসরি সম্প্রচার করার। এতে করে বিশ্ববাসী মুগ্ধ হলেও দেশবাসীর কাছে বিভ্রান্তি ছড়াবে।

লেখক: বাংলা ট্রিবিউনের পাঠক

লাইভ

টপ