খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে রাজপথে বিএনপির কর্মসূচিতে সরকারের ‘না’

Send
পাভেল হায়দার চৌধুরী
প্রকাশিত : ২২:১৯, মার্চ ১৪, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ০৮:২৭, মার্চ ১৫, ২০১৮

আওয়ামী লীগ

দুর্নীতির মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত খালেদা জিয়ার কারামুক্তির দাবিতে বিএনপিকে রাজপথে আর কোনও কর্মসূচি পালন করতে দেবে না সরকার। ঢাকা ও ঢাকার বাইরে বিএনপি যেখানেই  খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে রাজপথে কর্মসূচি পালনের সুযোগ বা অনুমতি চাইবে, তা না দিতে ঢাকাসহ সারাদেশে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কর্মকর্তাদের কাছে ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে সরকারের মৌখিক নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে। আওয়ামী লীগের নীতি-নির্ধারণী সূত্রগুলো এ তথ্য জানিয়েছে।

দলীয় সূত্রের দাবি, সরকারের সিদ্ধান্তের অংশ হিসেবে ইতোমধ্যেই খলেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপির বেশ কয়েকটি কর্মসূচি পালনে বাধা দিয়েছে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

আওয়ামী লীগের নীতি-নির্ধারণী সূত্রগুলো মনে করে— খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে আদালতের বাইরে গিয়ে রাজপথে আন্দোলন করা মানে বিচারকদের ওপর মনস্তাত্ত্বিক চাপ সৃষ্টি করা। এটা দেশের স্বাভাবিক পরিস্থিতিকে অস্থিতিশীল করে তুলতে বিএনপির চক্রান্ত। বিএনপিকে কর্মসূচি পালনের অনুমতি দেওয়া মানে বিচার বিভাগের ওপরে মনস্তাত্ত্বিক চাপ তৈরির সুযোগ তৈরি করে দেওয়া। ফলে নৈতিকভাবে সরকার এই সুযোগ বিএনপিকে দিতে পারে না।  

তবে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবির বাইরে অন্য কোনও দাবিতে কর্মসূচি পালনের অনুমতি চাইলে সেক্ষেত্রে বিচার-বিবেচনা সাপেক্ষে অনুমতি দেওয়া যেতে পারে। সংশ্লিষ্টদের এমন মৌখিক নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।  আওয়ামী লীগের নীতি-নির্ধারক ও সরকারের দুজন মন্ত্রী জানিয়েছে, এক্ষেত্রে সরকারের যুক্তি হলো— রায়ের বিরুদ্ধে কোনও কর্মসূচি পালন করতে দেওয়া মানে প্রচলিত আইন বিরুদ্ধ কাজ। সরকার আইনের ধারক-বাহক হয়ে আইন বিরুদ্ধ কোনও কাজ করার সুযোগ কোনও রাজনৈতিক দলকে দেওয়ার এখতিয়ার রাখে না। এই যুক্তি তুলে ধরে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপির আয়োজিত আন্দোলন মোকাবিলা করবে সরকার।

দু’জন গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের তিন জন গুরুত্বপূর্ণ নেতা সরকারের এই অবস্থানের কথা নিশ্চিত করে আরও জানিয়েছেন, খালেদা জিয়ার মুক্তির ইস্যুতে রাজপথ ছাড়তে হবে বিএনপিকে। তার মুক্তির দাবিতে তাদের আদালতে যেতে হবে। আদালত খালেদা জিয়াকে শাস্তি দিয়েছে, মুক্তিও আদালতই দেবে। তাই রাজপথ ছেড়ে আদালতে মামলা মোকাবিলা করতে হবে। সরকার এই অবস্থান গ্রহণ করেছে।

জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন বলেন, ‘বিএনপির চেয়ারপারসন  খালেদা জিয়াকে প্রচলিত আইন মেনে আদালত শাস্তি দিয়েছে। বিএনপির উচিত হবে আইনিভাবে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার পথে যাওয়া। এই দাবিতে রাজপথে আন্দোলন যুক্তিযুক্ত নয়।’

এপ্রসঙ্গে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সাবেক আইনমন্ত্রী আব্দুল মতিন খসরু বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আদালতের বিরুদ্ধে কোনও কর্মসূচি রাজপথে পালন করার সুযোগ নাই। এটা আদালত অবমাননা ও আইন অমান্য করা। এক্ষত্রে সরকার নিশ্চয়ই ভূমিকা পালন করবে।’

জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর আরেক সদস্য ড. আবদুর রাজ্জাক বলেন, ‘আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে যদি কোনও প্রতিবাদ কেউ করতে চায়, সেটা নিয়ম মেনে আদালতেই করতে হবে। আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে রাজপথে নামা আইনের প্রতি অশ্রদ্ধা প্রদর্শন করা।  সরকার এই সুযোগ কোনও রাজনৈতিক দলকে দিতে পারে না ‘

 

 

/এপিএইচ/

লাইভ

টপ