ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে কথা বলে নির্বাচনের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে ২০ দলীয় জোট

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২০:৫৪, নভেম্বর ১০, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:১৩, নভেম্বর ১০, ২০১৮


কর্নেল (অব.) অলি আহমেদ
এলডিপির সভাপতি অলি আহমদ বলেছেন, নির্বাচনে যাবো কী যাবো না, এ ব্যাপারে এখনও সিদ্ধান্ত নেইনি। আগামী দুই দিনের মধ্যে ২০ দলীয় জোট, আমাদের মূল দল বিএনপি জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের সঙ্গে কথা বলে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জাতির সামনে উপস্থাপন করবে।

শনিবার (১০ নভেম্বর) রাতে ২০ দলীয় জোটের বৈঠক শেষে সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে অলি আহমদ এ মন্তব্য করেন।

অলি আহমদ বলেন, ‘বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে, তাহলে নির্বাচনের পরিবেশ ফিরে আসবে। এখনও পর্যন্ত সবার জন্য সমান সুযোগ সৃষ্টি হয়নি। এটা নিশ্চিত করা সরকারের দায়িত্ব।’ 
এ সময় সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে অলি আহমদ বলেন, ‘অবশ্যই নিবন্ধনভুক্ত যেসব দল আছে, তারা চিঠি লিখবে। চিঠির ভাষা এরকম হবে, যদি আমরা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করি, সে ক্ষেত্রে আমাদের অনেকে দলীয় প্রতীকে নির্বাচন করবে। অনেকে জোটগতভাবে নির্বাচন করবে, যদি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করি।’ 
অপর এক প্রশ্নের জবাবে অলি আহমদ বলেন, ‘আমরা নির্বাচনে যাওয়া, না যাওয়ার বিষয়ে আলোচনা করেছি। সরকার কথা দিয়েছিল সবার জন্য লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নিশ্চিত করবে। আমরা মনে করি না যে সবার জন্য লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নিশ্চিত হয়েছে। আমরা দেখছি প্রতিনিয়ত বিশেষ করে বিএনপি নেতা-কর্মীদের আটক করা হচ্ছে, রাস্তাঘাটে তাদের নির্যাতন করা হচ্ছে। এসব বন্ধ না করা পর্যন্ত সুস্পষ্টভাবে আমাদের সিদ্ধান্ত আমরা জানাবো না।’
তিনি আরও বলেন, ‘অনেকে আমাকে প্রশ্ন করেছে, আগামীকাল নির্বাচন কমিশনে চিঠি দেওয়ার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। সেক্ষেত্রে আমরা বলবো, যদি আমরা একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করি, সেক্ষেত্রে অনেকে আমরা নিজস্ব দলীয় প্রতীকে অংশগ্রহণ করবো, অনেকে ২০ দলীয় জোটের শীর্ষ দল বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে।’
অলি আহমদ আরও বলেন, ‘অবশ্যই ২০ দলীয় জোটের সিদ্ধান্ত হয়েছে, শুধু ২০ দলীয় জোট নয় জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে কথা বলে মত নিয়ে নির্বাচনে যাওয়া না যাওয়ার সিদ্ধান্ত জাতিকে জানানো হবে ‘

২০ দলীয় জোটের সূত্রে জানা গেছে,  বৈঠকে বিএনপির নেতারা ছাড়া জোটের ১৯ জন নেতা উপস্থিত ছিলেন। বিএনপির নেতারা জোটের নেতাদের কাছে জানতে চান, আগামী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করা নিয়ে কার কী মত। তখন বৈঠকে উপস্থিত ১৬ জন নেতা হ্যাঁ সূচক উত্তর দেন। বাকি তিন জন নেতা না সূচক উত্তর দেন।

বর্তমান পরিস্থিতিতে ২০ দলীয় জোটের নির্বাচনে যাওয়া ঠিক হবে না বলে মত দেন বিজেপির চেয়ারম্যান আন্দালিব রহমান পার্থ। তার সঙ্গে সুর মিলিয়ে বক্তব্য রাখেন ডিএলের সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি ও জাতীয় পার্টির একজন নেতা।

জামায়াতের আব্দুল হালিম, এলডিপির কর্নেল অলি আহমেদ, কল্যাণ পার্টির সৈয়দ মুহাম্মদ ইব্রাহিম নির্বাচনে অংশ নেওয়া সম্পর্কে বলেন, যদি আগামী নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ করে, তাহলে আমরাও অংশ নেবো। আর বিএনপি অংশ না নিলে আমারও অংশ নেবো না। এখন সিদ্ধান্ত নেওয়ার দায়িত্ব বিএনপির।

এছাড়াও বৈঠকে বিএনপির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, যদি জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে অংশ নেওয়ার বিষয়ে ইতিবাচক হয়। তাহলে আগামী কয়েকদিনের মধ্য কে কোন আসনে নির্বাচন করবে সেই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

অলি আহমদের সভাপতিত্বে জোটের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ২০ দলীয় জোটের নেতাদের মধ্যে জামায়াতের আব্দুল হালিম, খেলাফত মজলিসের মাওলানা ইসহাক, বি‌জে‌পির আন্দালিব রহমান পার্থ, কল্যাণ পার্টির সৈয়দ মুহাম্মদ ইব্রাহিম, এনপিপি চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ফরিদুজ্জামান ফরহাদ প্রমুখ। 

/এএইচআর/আইএ/টিএন/

লাইভ

টপ