উপজেলায় মনোনয়ন নিয়ে আ. লীগে অভ্যন্তরীণ বিরোধ

Send
মাহবুব হাসান
প্রকাশিত : ২০:০৪, ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:০৬, ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৯

আওয়ামী লীগ

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মনোনয়নকে কেন্দ্র করে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগে আবারও অভ্যন্তরীণ বিরোধ চাঙ্গা হয়েছে। কোথাও এমপি, মন্ত্রী ও প্রভাবশালী নেতার হস্তক্ষেপে মনোনয়ন প্রত্যাশী যোগ্য ব্যক্তিরা বাদ পড়ায় এই বিরোধ তৈরি হয়েছে। আবার কোথাও এমপির সঙ্গে প্রার্থীর, অথবা বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যানের ত্রিমুখী বিরোধ দেখা দিয়েছে। এনিয়ে প্রার্থীদের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটছে।

যদিও মনোনয়নকে কেন্দ্র করে উদ্ভূত বিরোধকে পাত্তা দিতে রাজি নয় আওয়ামী লীগের হাই কমান্ড। দলের সভাপতিমণ্ডলী এবং সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের সদস্য কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘দলে সবারই কমবেশি অবদান আছে। যখন নির্বাচন আসে অনেকেই মনোনয়ন প্রত্যাশা করেন। এনিয়ে সাময়িক উত্তেজনাকর পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে। কিন্তু চূড়ান্ত মনোনয়ন শেষে এসব বিরোধ মিটে যাবে। সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে দলের মনোনীত প্রার্থী তথা নৌকার পক্ষে কাজ করবেন, যার উদাহরণ আমরা গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দেখেছি।’

জানা যায়, উপজেলার মনোনয়নকে কেন্দ্র করে ১০ ফেব্রুয়ারি (রবিবার) লালমনিরহাটের আদিতমারীতে ক্ষমতাসীন দলের দু’পক্ষের সংঘর্ষে পুলিশসহ ১৫ জন আহত হন। এসময় ১০টি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়। উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাপ্তিবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল আলম  এবার উপজেলা চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন পেয়েছেন। ঘটনার দিন সকাল থেকে সমর্থকরা তাকে অভ্যর্থনা জানানোর প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। দুপুরে মনোনয়ন বঞ্চিত ইমরুল কায়েস ফারুকের সমর্থকরা তাদের কাজে বাধা দিলে উভয়পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলায় মনোনয়ন পাওয়া মোহাম্মদ আলী আকন্দকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছে উপজেলা আওয়ামী লীগের একাংশ। তাদের অভিযোগ, তৃণমূলের ভোটে প্রথম হওয়া সাজ্জাদুল হককে মনোনয়ন না দিয়ে মোহাম্মদ আলীকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে।

বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সরদার খালেদ হোসেন স্বপনের বদলে এবার কাজী ইমদাদুল হক দুলালের নাম দলের মনোনীত একক  প্রার্থী হিসেবে কেন্দ্রে পাঠানো হয়। একইভাবে উজিরপুরের বর্তমান চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান ইকবালের পরিবর্তে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মজিদ সিকদার বাচ্চুর নাম পাঠানো হয়। এই দুই উপজেলার মনোনয়ন বঞ্চিতরা বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

এদিকে, উপজেলা চেয়ারম্যান পদের প্রার্থী যাছাই-বাছাই নিয়ে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগের সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ পড়েছে কয়েকশ’।  অভিযোগকারীদের মধ্যে কয়েকজন হলেন— ঝালকাঠি জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান সুলতান হোসেন খান, কেরানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য মো. তাহের হোসেন, যুবলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য মো. ইউসুফ আলী চৌধুরী সেলিম। তাহের হোসেনের অভিযোগে বলা হয়, নিয়ম অনুযায়ী উপজেলা নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার ক্ষেত্রে উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা করে মতামতের ভিত্তিতে প্রার্থী চূড়ান্ত করার কথা। কিন্তু উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক বর্তমান চেয়ারম্যান শাহীন আহমেদ কোনও বৈঠক না করে নিজের নাম কেন্দ্রে পাঠিয়েছেন।

ঝালকাঠি সদর উপজেলা চেয়ারম্যান সুলতান হোসেন খান বাংলা ট্রিবিউনের কাছে অভিযোগ করেন— তার থানায় নামমাত্র একটি বর্ধিত সভা করে মাত্র একটি নাম কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। আওয়ামী লীগের একজন কেন্দ্রীয় প্রভাবশালী নেতার ইশারায় কোনও ধরনের ভোট ছাড়াই এভাবে নাম পাঠানো হয়েছে বলে তিনি দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের কাছে অভিযোগ দিয়েছেন।

উপজেলায় প্রার্থী মনোনয়নে অনিয়মের বিষয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, ‘নিয়ম ভঙ্গ করে যদি কোনও নাম বা তালিকা আসে, সেজন্য মনোনয়ন বোর্ড আছে। সেখানে এসব অভিযোগ খতিয়ে দেখা হবে। সঠিকভাবে নাম না আসলে জরিপ রিপোর্ট ও অন্যান্য তথ্য মিলিয়ে মনোনয়ন দেওয়া হবে। শুধু তৃণমূলের রিপোর্টের ওপরে ভিত্তি না করে অন্যান্য মাধ্যমেও খবর নেওয়া হবে।’

দলের সভাপতি বরাবর একই ধরনের অভিযোগ করেছেন টাঙ্গাইল সদর উপজেলা চেয়ারম্যান তোফাজ্জল হোসেন।তার অভিযোগে বলা হয়, তিনি তৃণমূলের ভোটে সর্বোচ্চ ২২ ভোট পেলেও তালিকায় তার নাম পাঠানো হয়নি। ভোটের ফলাফলের শিট পাল্টে অন্য তিন জনের নাম পাঠানো হয়েছিল।

প্রসঙ্গত, উপজেলা চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নের জন্য স্থানীয়ভাবে অভ্যন্তরীণ ভোট, বা বর্ধিত সভার মাধ্যমে সর্বনিম্ন তিন জনের নাম কেন্দ্রে পাঠানোর নির্দেশনা দিয়ে জেলা-উপজেলায় চিঠি পাঠিয়েছিল আওয়ামী লীগ। এরইমধ্যে দুই ধাপে ২৫০ জনের বেশি প্রার্থীকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে।

/এপিএইচ/

লাইভ

টপ