লন্ডন মিশনে ব্যস্ত জামায়াত সেক্রেটারি ডা. শফিক

Send
মুনজের আহমদ চৌধুরী, লন্ডন
প্রকাশিত : ০২:১৪, এপ্রিল ৩০, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:৩৪, এপ্রিল ৩০, ২০১৯

যুক্তরাজ্যে জামায়াতে ইসলামীর সাংগঠনিক কার্যক্রম সংহত রাখতে জোর তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন লন্ডন সফররত দলের সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান। দলের সংস্কারপন্থী অংশের নেওয়া রাজনৈতিক উদ্যোগে সেখানে জামায়াতের সাংগঠনিক কার্যক্রম ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। সেই ক্ষতি রুখতেই লন্ডন সফরে গিয়ে দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে ধারাবাহিকভাবে সাক্ষাৎ করছেন ডা. শফিক। অংশ নিচ্ছেন ওয়ান টু ওয়ান বৈঠকে। দায়িত্বশীল সূত্র থেকে জানা গেছে, জন আকাঙ্ক্ষার বাংলাদেশ নামে আবির্ভূত রাজনৈতিক মঞ্চের নেপথ্যে যার ভূমিকাকে সবথেকে বড় করে দেখা হচ্ছে, সেই পদত্যাগী সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল ব্যারিস্টার আব্দুর রাজ্জাকের সঙ্গেও ডা. শফিকের বৈঠক হয়েছে। তবে বাংলা ট্রিবিউনের পক্ষ থেকে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও এসব ব্যাপারে ডা. শফিক কোনও কথা বলতে রাজি হননি। 

দলীয় সংস্কার ও মুক্তিযুদ্ধ প্রশ্নে সম্প্রতি প্রকাশ্যে আসে জামায়াতের অভ্যন্তরীণ কোন্দল। এর রেশ ধরে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি পদত্যাগ করেন সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল ব্যারিস্টার আবদুর রাজ্জাক। একই ইস্যুতে প্রকাশ্য অবস্থান নেওয়ায় দল থেকে বহিষ্কৃত হন ছাত্রশিবিরের সাবেক সভাপতি মজিবুর রহমান মঞ্জু। শ‌নিবার (২৭ এপ্রিল) দুপুরে সেই মঞ্জুর নেতৃত্বে ‘জন আকাঙ্ক্ষার বাংলা‌দেশ’ না‌মে নতুন রাজনৈতিক মঞ্চ প্রতিষ্ঠা করে দলের সংস্কারপন্থী অংশ। মুক্তিযুদ্ধের আকাঙ্ক্ষা‌ ধারণ ক‌রে প্রতিশ্রুত রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশকে গড়ে তোলার লক্ষ্যের কথা জানিয়ে পাঁচটি কমিটিও গঠন করে তারা।

সংস্কারপন্থীদের রাজনৈতিক উদ্যোগ যেন যুক্তরাজ্যে দলের সাংগঠনিক কার্যক্রমে প্রভাব বিস্তার না করতে পারে, সে ব্যাপারে সতর্ক জামায়াত। কেননা যুক্তরাজ্যকে সাংগঠনিকভাবে যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়ে দেখা হয়। দলের বিভিন্ন পর্যায়ের দা‌য়িত্বশীলরা সেখানে প্র‌তি সপ্তাহে নিয়‌মিত বৈঠক আর সভা আয়োজন করে। আওয়ামী লীগের বিগত এক দশকের শাসনামনে জামায়াত শিবিরের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী সেখানে আশ্রয় নিতে সমর্থ হয়েছে। নী‌তি অনুসরণ করে সেখানকার নেতাকর্মীরা নিয়‌মিত দলীয় ফান্ডে চাঁদা ও আর্থিক অনুদান দেন। মোটা অংকের সেই টাকা সংগঠনের কা‌জে ব্যয় করা হয়। তবে যুক্তরাজ্যে জামায়াতের দলীয় গণ্ডীর বাইরেও ব্যারিস্টার রাজ্জাকের একটি সমর্থক বলয় রয়েছে। তার দলত্যাগ আর সংস্কারপন্থীদের রাজনৈতিক উদ্যোগের কারণে যেন কোনও সাংগঠ‌নিক ক্ষ‌তি না হয়, ‌সেটা নিশ্চিত করার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন ডা. শ‌ফিক।

ইউরোপ ও যুক্তরাজ্যে জামায়াতের মুখপাত্র ব্যা‌রিস্টার আবু বকর মোল্লা সোমবার বি‌কেলে বাংলা ট্রি‌বিউনকে বলেন, ‘দলের সে‌ক্রেটারী জেনারেল ডা. শ‌ফিকুর রহমান বর্তমানে যুক্তরাজ্যে অবস্থান করছেন। বিভিন্ন নেতাকর্মী‌র সঙ্গে দেখা-সাক্ষাতও করছেন। আমার সঙ্গেও তার যোগাযোগ হয়েছে। তবে আনুষ্ঠানিক কোনও দলীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়নি। ‘ সেক্রেটারি জেনারেলের সফরকে ব্যক্তিগত আখ্যা দিয়ে তিনি বলেন, ‘ডা. শফিক কবে এসেছেন, কতোদিন থাকবেন, এসব আমার জানা নেই’।

একটি সূত্র জানিয়েছে, লন্ডনে বসবাসরত ব্যারিস্টার আব্দুর রাজ্জাকের সঙ্গেও বৈঠক করেছেন জামায়াত সেক্রেটারি । অবশ্য এ ব্যাপারে কথা বলতে সোমবার ক‌য়েক দফা ‌যোগা‌যোগ করা হলেও ডা. শফিক কথা বলতে রা‌জি হন নি। ব্যা‌রিস্টার আবু বকর মোল্লাও এ ব্যাপারে কিছু জানেন না বলে দাবি করেছেন। অবশ্য ১১ এপ্রিল (বৃহস্পতিবার) লন্ডনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে ব্যারিস্টার রাজ্জাক বলেছেন, ‘ভবিষ্যতে রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার কোনও ইচ্ছে আমার নেই। ভবিষ্যতে নতুন কোনও রাজনৈতিক দল করারও ইচ্ছে নেই।’ তবে ‘জন আকাঙ্ক্ষার বাংলাদেশ’-এ সরাসরি যোগ না দিলেও সংস্কারপন্থীদের ওই রাজনৈতিক উদ্যোগে তার সমর্থন থাকবে বলে মনে করা হচ্ছে।
এরইমধ্যে ওই রাজনৈতিক মঞ্চকে প্রকাশ্য সমর্থন দেওয়া ছাত্র শিবিরের সাবেক কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ফ‌রিদ আহমদ রেজা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, যদিও ব্যারিস্টার রাজ্জাক স্পষ্ট করে রাজনীতির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট না থাকার কথা জানিয়েছেন, তারপরও মঞ্জুর সংস্কারপন্থী রাজনৈতিক উদ্যোগে তার সমর্থন থাকবে বলে আমার বিশ্বাস। ব্যারিষ্টার রাজ্জাক তার পদত্যাগপত্রে দল ত্যাগের যেসব কারণ উল্লেখ করেছেন, সেসব ইস্যু থেকেই তো জন আকাঙ্ক্ষার বাংলাদেশ নামের প্লাটফর্মটি জন্ম নিলো। সে কারণেই আমার মনে হয়, রাজ্জাক সাহেব এতে সরাসরি সম্পৃক্ত না হলেও তার সমথর্ন অন্তত থাকবে।

লন্ডন প্রবাসী সাবেক শিক্ষক ফরিদ ১৯৮২ সা‌লে ইসলামী ছাত্র শিবিরের সাবেক সেক্রেটারি জেনারেল নির্বা‌চিত হন। তার বলয়ের অনেকেই এরইমধ্যে সংস্কারপন্ধীদের মঞ্চের প্রতি প্রকাশ্য সমর্থনের ঘোষণা দিয়েছেন। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, সফররত ড. শফিকুর রহমানের সঙ্গে কয়েকদিন আগে ইস্ট লন্ডনের এক মসজিদে দেখা হয়েছিল তার। তবে কোনও বৈঠক হয়নি।

/বিএ/

লাইভ

টপ